Home » মঞ্চ » নিরাপদ খাদ্য আন্দোলনের নাটক ‘চন্দ্রমূখী’
chandramukhi-3

নিরাপদ খাদ্য আন্দোলনের নাটক ‘চন্দ্রমূখী’

Share Button

মিডিয়া খবর:-         -: সেলিম বিশ্বাস :-

‘নাটক শুধু সুস্থ্য বিনোদনই নয়, এটি শ্রেণী সংগ্রামের সুক্ষ্ণ হাতিয়ার।’ কথাটি ‘আরণ্যক’ নাট্যদলের গান হিসেবে লেখা হয়। আসলেই নাটক মানুষের কথা, সমাজের কথা বলে। সমাজের বিচ্যুতিগুলো তুলে এনে তা মঞ্চায়ন করে দেখায়। বিনোদনের মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ বার্তাগুলো মানুষের মাঝে পৌঁছে দেবার কাজটা নাট্যকর্মীরাই করে থাকেন।
আমার একবার মনে হলো- সব নাট্যদলের কমপক্ষে একটি করে প্রডাকশনের মহড়া থেকে শুরু করে মঞ্চায়ন পরবর্তী সেট গোছানো পর্যন্ত উপস্থিত থাকবো। উদ্দেশ্য হল- নাট্যকর্মী গণনা করা! কারণ, একটি দলের সবাই নাট্যকর্মী হতে পারে না। কেউ হয় আর্টিস্ট, কেউ বা ফরমায়েশ দাতা, কেউ আবার দুদিনের জেষ্ঠ্য শিল্পী কিংবা উদীয়মান তারকা! এ গোত্রের সবাই অলটাইম ‘ক্যারেক্টারে’ থাকে। এদের গায়ে ধুলা-ময়লা লাগতে পারবে না, ঘামতে পারবে না। এদের দুর্বার ধারণা- আর্টিস্ট হলে মানে অভিনয় করলে অন্য কাজ করা লাগেনা। পারলে তাদের সাথে একজন ছাতাওয়ালা দিয়ে দিলেই বেশ ভালো হত। আর কিছু ব্যক্তি থাকেন নাট্যকর্মী। এঁরা হাত দিয়ে ধুলা পরিষ্কার থেকে শুরু করে প্রডাকশনের সব করে ঘর্মাক্ত শরীরে সংলাপ দেয় মঞ্চে উঠে, মাঝখানে জেষ্ঠ্যদেরকে চা পান করায়, সবদিক খেয়াল রাখে-কোন কুশলীর অসুবিধা হচ্ছে কি না, শো শেষে আবার সেট গোছাতে লেগে যায়। গা ব্যাথা করে জ্বর বাঁধিয়ে আবার পরবর্তী কলে যোগ দেয়। তবুও হয়ত তার মূল্যায়ন হয়না কোন কালে।
গণনার কাজটি হয়তো সম্ভব হবে না। কারণ, প্রতিটি দলের কিছু ‘প্রাইভেসি’ আছে।chandramukhi
যে কথা বলছিলাম,‘নিরাপদ খাদ্য আন্দোলন’ এর ব্যনারে নির্মিত হলো পথনাটক- ‘চন্দ্রমূখী’। মোমেনা চৌধুরী‘র নেতৃত্বে মান্নান হীরা’র রচনায়, মনিরুল হোসেন শিপন’র নির্দেশনায় এ পথ নাটকের মহড়ায় একদিন যাবার দুর্লভ সুযোগ আমার হয়েছিল। তাও আবার নেতৃত্বদানকারী মহিয়সী’র মহানুভবতায়। খাবারে ভেজাল বা বিষাক্ত রাসায়নিক দ্রব্য মিশ্রণের ভয়াবহতা ও তার শিকার কারা হচ্ছে- তার একটি চিত্র দেখানো হয়েছে এই পথনাটক -‘চন্দ্রমূখী’তে। বিষাক্ত রাসায়নিক মেশানো ফল খেয়ে ফুটফুটে শিশু চন্দ্রমূখীর অকাল প্রয়াণ যেন সব দর্শকের বুক-কোল খালি করে দেয়। এই চন্দ্রমূখী যেন সকলের প্রিয়জনের প্রতীক। কে চায় বুকের মানিক হারাতে। নাটকটি কারওয়ান বাজার, মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটসহ রাজধানীর বেশকিছু পয়েন্টে প্রদর্শিত হয়েছে। এভাবে বিভিন্ন পয়েন্টে চলতে থাকবে শুক্রবার ছাড়াও অন্যান্য দিনে। নাটকটিতে বিভিন্ন পর্যায়ে কাজ করেছেন- শামীমা শওকত লাভলী, মুখাভিনয় শিলপী নিথর মাহ্বুব, লিঠু রাণী মন্ডল, শান্তনা, হাশিম মাসুদ, ফাহমিদা পলি, পরিমল চক্রবর্তী, শিমুল, শাহ্রান, সময়, মুন্না, জুয়েল মিজি, নাহিদা, অর্পা বিশ্বাস, সোহান, অপু ইমন, শাহেদ। প্রযোজনা অধিকর্তা হিসেবে যুক্ত আছেন প্রকৌশলী মোঃ বদরুল আমীন।
খাদ্যে ভেজাল বিরোধী অভিযান চলছে একদিকে- আর এবার শুরু হল আসল কাজ- সচেতনতার কাজ। এটা করতেই হবে। আসলে একটি অপকর্মের বহুমাত্রিক ক্ষতিকর প্রভাব থাকে। সে প্রভাবে অঙ্গার হয় বহু প্রাণ, মন। তার পুরোভাগ কোন মাধ্যম দিয়ে কি এক লহমায় তুলে ধরা সম্ভব? একটা বিশেষ মাত্রার প্রভাব দেখিয়ে দর্শকদের মনে যদি নাড়া দেয়া যায় তবে দর্শক তার উর্বর মস্তিষ্ক দিয়ে অন্য মাত্রাগুলো ভেবে নিতে পারেন।
আমি সব সময় ‘ধান ভানতে শীবের গীত‘ গাই। আজও তার ব্যতয় ঘটল না।
নাটক দিয়ে শুরু হল ভেজাল বিরোধী আন্দেলন। সবাই একসাথে কবে করা হবে? যার যার অবস্থান থেকে কবে শুরু করবেন? হোক না আরও নাটক। সবাই জানাক। সবাই জানুক। সফল হোক নিরাপদ খাদ্য আন্দোলন। নাটকের হাতিয়ার গর্জে উঠুক।chandramukhi-1

Check Also

Untitled-1

সেলিম আল দীন মুক্তমঞ্চে ‘শিখণ্ডী কথা’

মিডিয়া খবর:  হিজলতলী গ্রামে বাড়ি রমজেদ মোল্লার। তার পরিবারে জন্ম হয় রতন মোল্লার। কিন্তু বয়ঃসন্ধিকালে …

জাদুর প্রদীপ

শিল্পকলায় স্বপ্নদলের ‘জাদুর প্রদীপ’

মিডিয়া খবর : স্বপ্নদলের ব্যতিক্রমী প্রযোজনা মাইমোড্রামা ‘জাদুর প্রদীপ’। আজ ৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় শিল্পকলা একাডেমির …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares