Home » নিবন্ধ » আমরা নাট্যকর্মী

আমরা নাট্যকর্মী

Share Button

মিডিয়া খবর :-                    -: সেলিম বিশ্বাস :-

দিলীপ চক্রবর্তী কেন আমাদের কাঁদানোর পথ বেছে নিয়েছিলেন তা আমার জানার সুযোগ হয়নি। তবে আমি একটা বিষয় উপলব্ধি করেছি- কোন কিছু আশা করার ক্ষমতা হারিয়ে ফেললেই কেবল মানুষ এই চরম ভুল পথটি বেছে নেয়। যেদিন দিলীপ চক্রবর্তীর প্রয়াণের খবর পাই, সেদিন জাতীয় নাট্যশালায় ‘ঢাকা থিয়েটার’র ‘দ্য টেম্পেস্ট’ দেখতে গিয়েছিলাম। না, আজ নাটকের সম্পর্কে কিছু লিখবো না। অনেক দিনের জ্বর, তাই আজ প্রলাপ বকবো, অরণ্যে রোদন করবো। theatre-w
নাটক শুরুর আগে শ্রদ্ধ্যেয় জনাব নাসির উদ্দিন ইউসুফ সাদা পাঞ্জাবি পরা দীর্ঘ দেহটি নিয়ে মাউথপিসের সামনে দাড়ালেন। তিনি দিলীপ চক্রবর্তী’র কথা তুললেন। তাঁর এ সম্পর্কিত বক্তৃতার নাট্যকর্মীদের হতাশা নিয়ে কথা বললেন। বললেন তাদের মনের কথা। বললেন- নাট্যকর্মীদের জীবনে টিকে থাকার যুদ্ধের কথা। এ যুদ্ধের কথা আজকের মিডিয়ায় তারকা খ্যাতি নিয়ে দাপিয়ে বেড়ানো বহু এক সময়কার মঞ্চকর্মীরা মর্মে মর্মে জানেন। জনাব ইউসুফ বললেন- ‘আমরা যদি এসব ছেলেমেয়েদেরকে মাসে ৫ টা হাজার টাকাও হাতে তুলে দিতে পারতাম, তাহলেও হয়তো হতাশা থেকে ওদের রক্ষা করতে পারতাম। ওরা অনেক পরিশ্রম করে মঞ্চের জন্য, কিন্তু আমরা কিছুই ওদের দিতে পারিনা জীবনযাপনের জন্য।’ এসব বিষয়ে সকলকে সহযোগীতার আহ্বান জানালেনও।
১৮ অক্টোবর’ ১৪ খৃ. ফেইসবুক খুলেই দেখি, শ্রদ্ধ্যেয় সুদীপ চক্রবর্তীর একটি স্ট্যাটাস। তা একবারেই কান গরম হবার মত। হয়তো ভুল পথে নয়। কিন্তু ভুল সময়ে, অপ্রাপ্তি নিয়ে হবিগঞ্জ জীবন সংকেত নাট্যগোষ্ঠীর শিল্পী মীর চলে গেলেন। আর আসবেন না তিনিও। লাল সালাম তোমায় হে যোদ্ধা।
আমি একটা গল্প বলার চেষ্টা করবো এ লেখার শেষে।
জনাব নাসির উদ্দিন ইউসুফ তাঁর বক্তৃতার পর নাট্যকর্মীদের উন্নয়নে কি করেছেন সে প্রশ্ন করার মতো বড় হয়নি আমি, তাই করবো না। করলে আবার কেউ পাল্টা প্রশ্ন করতে পারেন- তিনি কি বক্তব্য দিয়ে ঠেকেছেন? না, এখানে ঠেকাঠেকির কিছু নেই। যেহেতু তিনি বিষয়টা ভেবেছেন। যেহেতু এই অঙ্গনের অভিভাবকদের একজন তাই তার সন্তানদের ভালোমন্দ নিয়ে কাজ করার ঠেকা তাঁর বা তাঁদের আছে বটে।
খুব সম্ভবতঃ কোন এক টিভি অনুষ্ঠানে শ্রদ্ধ্যেয় শিমুল ইউসুফ উৎকন্ঠা প্রকাশ করলেন এভাবে- ‘দেখুন আমরা রুবাইয়্যাতের (ঢাকা থিয়েটারের  রুবাইয়্যাৎ আহমেদ) জন্য কিছু করতে পারছিনা।’ নাট্যকর্মীদের নিয়ে এসব কিংবদন্তীর গল্পের নায়ক-নায়িকাদের এমন উৎকন্ঠা সত্যিই চোখজোড়া ঝাপসা করে দেয়। আসলে দলের মাথা যাঁরা, তাঁরাতো দলের অন্য সবার অভিভাবক। তাঁদেরতো সন্তানদের নিয়ে মাথা ব্যাথা থাকতেই হবে। কিন্তু হায়! সব মান্যবরের কি মাথাব্যাথা হয়? না থাকার চিত্র যে আছে।
কর্তা সংগঠন বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন কি ধরনের ভুমিকা রাখছেন? থিয়েটার চর্চা একটি স্বাধীন বিষয়। তবু ফেডারেশনের অন্তর্ভুক্ত হতে তো কিছু নিয়ম মানতে হয় সব দলেরই। তার মধ্যে নিশ্চয় প্রযোজনা সংখ্যা একটি গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামক। কিন্তু সদস্য বনে যাবার পর বছরের পর বছর কোন নতুন প্রযোজনা উপহার দিতে ব্যর্থ হলে কি কোন ব্যবস্থা নেয়ার ব্যবস্থা আছে? থাকলে কি নেয়া হয়? নাম সর্বস্ব দল নিয়ে নাট্যাঙ্গনের মত পবিত্র একটি জায়গায় কিভাবে বিচরণ করা যায়? নেতৃত্ত্ব নির্ধারণী নির্বাচনের মত ব্যপারে কি অংশগ্রহনের সুযোগ থাকে? কোন অভিভাবক নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকতে পারেন তা আমি বিশ্বাস করতে চাই না। যেমনটি বলেছিলেন সর্বজনাব শ্রদ্ধাভাজনেষু রামেন্দু মজুমদার-‘ নাটকের মানুষেরা ভালো মানুষ হয়।’

বিশ্বায়নের ফলে পৃথিবীটাই গ্রাম। কিন্তু একটা কথা। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলেও নাট্যচর্চা হয়, অনেকে থিয়েটার করেন। তারা কিন্তু ধরতে গেলে বিশ্বায়নের ফলভোগী রাজধানীর বুকে লালিত প্রচার মাধ্যমের আলো প্রায় পান ই না। তবে সাম্যের গান কিভাবে গাইব? তবে বর্তমানে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি’র উদ্যোগ এক্ষেত্রে খুবই কৃতজ্ঞচিত্তে প্রশংসনীয়। প্রতিবছরই প্রায় হাজার হাজার নাট্যকর্মী জাতীয় নাট্যশালার মঞ্চে দাপাতে পারছেন। সংলাপ আওড়াতে পারছেন। মনের মত সেট বানাতে পারছেন। এর পরিসর আরও বহুগুণ বাড়ানো দরকার। মঞ্চের আলো যেন সবচেয়ে মেধাবী নাট্যকর্মীদেরকে দর্শকের সামনে স্থান দেয়। যাঁরা আলোর মশাল নিয়ে পৃথিবী প্রদক্ষিণ করবেন। যেন পুরো পৃথিবীই একটা মঞ্চ। যে মঞ্চ থেকে সমস্ত সৃষ্টির কল্যাণের কাজ করা হবে।
শেষের গল্পটা আজ বলবো না। অন্যদিন বলব। নিকটতম ভবিষ্যতে। এত এলোমেলো অবস্থার মধ্য থেকেও বাংলাদেশ সারা পৃথিবীর নাটকের মোড়ল। বাংলার এই নিরহংকারী সন্তানকে আমরা ‘রামেন্দু দা’ বলে ডাকার দুর্লভ সুযোগ পেলাম জীবদ্দশায়। দাদা উপরের সমস্ত কথায় কোন বেয়াদবি বা ভুল হলে আমায় ডেকে নিয়ে আপনি নিজ হাতে আমার কান মলে দিবেন। আমাদের অভিভাবক হিসেবে।

Check Also

paicho chorer kischa

শুক্রবার পাইচো চোরের কিচ্ছা শিল্পকলায়

মিডিয়া খবর :- ঢাকা পদাতিকের আলোচিত প্রযোজনা পাইচো চোরের কিচ্ছার ৫৫ তম মঞ্চায়ন হবে শুক্রবার। …

boubosonti

শিল্পকলায় উদীচীর নাটক বৌবসন্তি

মিডিয়া খবর :- আজ ৩১ জুলাই সন্ধ্যা ৭টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে অনুষ্ঠিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares