Home » টিভি নাটক » ২০ বছর পর বিটিভিতে ফেরদৌসী মজুমদার
ferdousi

২০ বছর পর বিটিভিতে ফেরদৌসী মজুমদার

Share Button

মিডিয়া খবর:-

দীর্ঘ  চার দশক ধরে দাপটের সাথে একাধারে মঞ্চ, টিভি, সিনেমায় অভিনয় করে চলেছেন অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার। বিটিভির হাত ধরে তার ছোটপর্দায় অভিনয় শুরু হলেও দীর্ঘ দিন তিনি বিটিভির পর্দায় অনুপস্থিত ছিলেন। প্রায় ২০ বছর পর আরারও বিটিভির নাটকে অভিনয় করছেন খ্যাতিমান এই অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার। নাটকের নাম আলো আমার আলো। ঈদুল আজহা উপলক্ষে নির্মিত হচ্ছে একখণ্ডের এই নাটক। এখানেই মূল চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। লম্বা বিরতির পর বিটিভির নাটকে অভিনয় প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমার অভিনয় জীবন শুরু হয়েছিল বিটিভি থেকে। অনেক নাটকে কাজ করেছি। মাঝে নানা ধরনের ব্যস্ততার কারণে প্রায় ২০ বছর অভিনয় করা হয়নি। এত দিন পরে বিটিভিতে কাজ করতে এসে আমিfer-2 রোমাঞ্চিত।’
মান্নান হীরার রচনায় নাটকটি প্রযোজনা করছেন কামাল উদ্দিন। ফেরদৌসী মজুমদার ছাড়াও নাটকটিতে অভিনয় করছেন শহিদুল আলম সাচ্চু, ওয়াহিদা মল্লিক জলি, মাহমুদা আক্তার প্রমুখ।

স্বাধীনতা উত্তরকালে টিভি ও মঞ্চে সমান সফলতার সাথে অভিনয় করে আসছেন তিনি। বিটিভির ধারাবাহিক নাটক সংসপ্তকের ‘হুরমতি চরিত্রে অভিনয় করে বিপুল প্রশংসা লাভ করেন।

ফেরদৌসী মজুমদারের জন্ম বরিশালে হলেও তিনি বেড়ে উঠেছেন ঢাকাতে । তাঁর বাবা খান বাহাদুর আব্দুল হালিম চৌধুরী ছিলেন ডিস্ট্রিক ম্যাজিস্ট্রেট। তাঁর ভাইবোন ছিল মোট ১৪ জন যাদের মধ্যে ৮ জন ভাই এবং ৬ জন বোন। সবচেয়ে বড় ভাই  কবির চৌধুরী এবং মেজ ভাই শহীদ । ফেরদৌসী মজুমদারের পরিবার ছিল খুব রক্ষণশীল। বাড়িতে সাংস্কৃতিক চর্চা ছিল নিষিদ্ধ। তাঁর লেখাপড়া শুরু হয় নারী শিক্ষা মন্দির স্কুল থেকে। এই স্কুলে ক্লাস সেভেন পর্যন্ত পড়ার পর তিনি ভর্তি হন মুসলিম গার্লস স্কুলে যেখান থেকে তিনি ম্যাট্রিক পাশ করেন। তারপর ইডেন কলেজে ভর্তি হন।

 ইডেন কলেজে ইন্টারমিডিয়েট পড়ার সময় তিনি তাঁর বড় ভাই  কবির চৌধুরীর কাছ থেকে প্রস্তাব পান একটা নাটকে রোবটের চরিত্রে অভিনয় করার যার নাম ছিল ‘ডাক্তার আবদুল্লাহর কারখানা’। এটি লিখেছিলেন শওকত  ওসমান  এবং মঞ্চস্থ হয়েছিল ইকবাল হলে যা এখন জহুরুল হক হল। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর তিনি পাবলিক লাইব্রেরিতে ‘দন্ড ও দন্ডধর’ নাটকে অভিনয় করেন তাঁর শিক্ষক রফিকুল ইসলামের বিপরীতে। তারপর  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে একটা নাটকের ফোরামে তিনি জড়িয়ে পড়েন । ফেরদৌসী মজুমদার নীলিমা ইব্রাহিমের লেখা ‘তামসি’ নামক নাটকে অভিনয় করেন। তিনি ১৯৭০ সালের ১৩ই জুন রামেন্দু মজুমদারকে কে বিয়ে করেন।

১৯৭২ সালে ‘থিয়েটার’ গঠন করা হয়, যেখানে ছিল আবদুল্লাহ আল মামুন, রামেন্দু মজুমদার প্রমুখ। ফেরদৌসী মজুমদার সেই দলে যোগ দেন।তিনি মোট ২টি সিনেমায় অভিনয় করেন মায়ের অধিকার’ এবং ‘দমকা’। বাংলাদেশ টেলিভিশনের  তিনি প্রায় তিনশ’র মতো নাটক করেন। আবদুল্লাহ আল মামুন ফেরদৌসী মজুমদারকে নিয়ে একটি ৮৬ মিনিটের একটি তথ্যচিত্র নির্মাণ করেছেন যার নাম ‘জীবন ও অভিনয়’ । তিনি ঢাকার উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুলের শিক্ষয়িত্রী ছিলেন।

ফেরদৌসী মজুমদার অভিনীত উল্লেখযোগ্য নাটক –

কোকিলারা, এখনো ক্রীতদাস, বরফ গলা নদী, জীবিত ও মৃত, বাঁচা, অকুল দরিয়া, যোগাযোগ, সংশপ্তক, চোখের বালি, নিভৃত যতনে, শংখনীল কারাগার, এখনও দুঃসময়, পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায় ইত্যাদি।

Check Also

nisho-faria

নিশো-ফারিয়ার একটি তিন মাসের গল্প

মিডিয়া খবর:- মাবরুর রশিদ বান্নাহ নির্মিত নতুন নাটক ‘একটি তিন মাসের গল্প প্রচারিত হবে আগামীকাল …

ftpo

টিভি চ্যানেলের সামনে এফটিপিও’র অবস্থান ঘোষণা

মিডিয়া খবর :- আগামী ১৯ ডিসেম্বর থেকে চারটি টিভি চ্যানেলের সামনে বিদেশি সিরিয়াল বাংলায় ডাবিং …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares