Home » চলচ্চিত্র » প্রসঙ্গঃ ঢালিউডের দেবদূতদ্বয়
ananta images

প্রসঙ্গঃ ঢালিউডের দেবদূতদ্বয়

Share Button

ঢাকা, ২৮ মার্চ:-রেজওয়ান সিদ্দিকী অর্ণ-

বাংলাদেশের সিনেমার কথা শুনলে এখন মানুষ নাক শিটকাতে ভুল করে না। আর এর ফাঁকে কোলকাতার সিনেমা এদেশের বাজার দখল করে ফেলেছে। এদেশে কোলকাতার সিনেমা এমন বাজার তৈরী করে ফেলেছে যে, কোলকাতার ‘লাল্টু-বল্টুর’ সিনেমাও এদেশের মানুষ ‘হা’ করে দেখে। (মুখে মাছি ঢুকলেও টের পায় না)। তবে ঢালিউডের সিনেমা পিছিয়ে পড়ার পিছনে পরিচালকদেরই দায়ভার বেশী। কিছু কিছু সাকিব খান মুখী পরিচালক এবং মুনাফালোভী প্রযোজকরা নিজেদের পকেট ভরতে বাংলাদেশের সিনেমার লাল বাতী জ্বালিয়েছেন। সাকিবমুখী পরিচালক এবং প্রযোজকদের কারণে হারিয়ে গেছে জনপ্রিয় নায়ক রিয়াজ,আমিন খান সহ বেশ কয়েকজন নায়ক। যা খুবই হতাশাজনক। হারিয়ে যাওয়া নায়কদের ফিরিয়ে আনার চেষ্টাও কেউ করেন না। সবাই স্রোতের দিকে গা ভাসাচ্ছেন। সাকিব খানের সিনেমা মানে হিট। কিছুদিন পর যখন বাপ্পী অথবা সায়মন সহ আরো কয়েকজনের একজন সাকিব খানের জায়গা দখল করে নিবেন তখন এই কতিপয় সুবিধাবাদী পরিচালক এবং প্রযোজকরা সাকিব খানের দিকে ফিরেও তাকাবেননা। এটাই হয়তোবা নিয়ম। তখন সুযোগের সদ্ব্যাবহার করতে বাপ্পী অথবা সায়মন সাদিক এর নামেই সিনেমা নির্মান করবে তারা। যেমনটি হয়েছিলো প্রয়াত মান্না এবং সাকিব খানের ক্ষেত্রে। সিনেমা যেখানে টলিউডের কাছে মার খেয়ে খাদের কিনারায় বসে হাপাচ্ছিলো তখন দেবদূতের মতো যেনো হাল ধরতে চাইলেন জাজ মাল্টিমিডিয়া এবং এম এ জলিল অনন্ত। কিছুদিন আগের সেই নাক শিটকানো মানুষ এখন হলে যাচ্ছে। জাজের সিনেমা দেখছে, অনন্ত’র সিনেমা দেখছে। জাজের সিনেমা নিয়ে দর্শকদের তেমন কোন আপত্তি নেই। যদিও সমালোচকরা ছেড়েও কথা বলেন না। অন্যদিকে কতিপয় কিছু নিন্দুকেরা অনন্ত’র পিছনে আদা জল খেয়ে লেগেছে। তাদের মতে অনন্ত অভিনয় জানেননা। এটা ঠিক অনন্ত অভিনয়ে কাঁচা। তবে উনি চেষ্টার ত্রুটি করেন না। আমি উনার চেষ্টাকে প্রশংসা করি। অনন্ত চান বাংলাদেশের সিনেমা আর্ন্তজাতিক মানে পৌছাক। আর এ কারণে তিনি লোকসানের ভয় না করে একের পর এক ব্যয়বহুল সিনেমা নির্মাণ করছেন। যা আগে কেউ কখনো করেননি বা করতে সাহস পাননি। তবে অনন্ত’র উচিত নতুনদের সুযোগ দেয়া। যদিও এটা তার চরিত্রের সাথে যায় না। পরিচালক এ কিউ খোকন অনন্ত’র বিষয়ে এক সাক্ষাতকারে বলেছিলেন-“অনন্ত আর জাজ যা করছে এটা এখন কেউ বুঝবে না,কয়েকবছর গেলে মানুষ বুঝতে পারবে বাংলাদেশের সিনেমার জন্য তারা কি করেছে।” আমিও খোকন ভাইয়ের সঙ্গে একমত। অনন্ত তো আমাদের কোন ক্ষতি করছে না। জাজ তো কোন ক্ষতি করছে না। বরং বাংলা (ঢালিউড) সিনেমাকে বিশ্ববাজারে পৌছে দেয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করছে। আসুননা আমরা সকলে অনন্তকে সাহায্য করি। জাজকে সাহায্য করি। আর যারা অনন্তকে অপছন্দ করেন,জাজকে নিয়ে সমালোচনা করেন তারা দয়াকরে তাদের পথ চলাকে বাধাগ্রস্থ করবেন না। আমি জানি,এক সময় আপনারা নিন্দুকেরা নিজেদের ভুল বুঝতে পারবেন। আর তখন হয়তো বাংলদেশের সিনেমা জাজ মাল্টিমিডিয়া এবং অনন্ত’র হাত ধরে অনেক দূরে যাবে। তাদের দেখাদেখি অনেকে এগিয়ে আসবে বাংলা সিনেমার উন্নয়নে।

Check Also

bhalobasha emone hoy

চিত্র পরিচালক হিসেবে তানিয়া আহমেদের অভিষেক

মিডিয়া খবর:- অভিনেত্রী তানিয়া আহমেদের প্রথম চলচ্চিত্র ‘ভালোবাসা এমনি হয়’। চিত্র পরিচালক হিসেবে এ চলচ্চিত্রের …

borsha

তাহসান ও ভাবনা চলচ্চিত্রের নতুন জুটি

মিডিয়া খবর :- চলচ্চিত্রে জুটি বাঁধতে যাচ্ছেন জনপ্রিয় অভিনয়শিল্পী তাহসান ও ভাবনা। অনিমেষ আইচ পরিচালিত …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares