Home » চলচ্চিত্র » সিনেমায় রোমান্টিক জুটি
----

সিনেমায় রোমান্টিক জুটি

Share Button

ঢাকা:-

-: দেওয়ান মাহবুবুল আলম :-

“হৈ হৈ রঙ্গিলা রঙিলা রে, রিমিঝিম এই বরষায় মন নিলা রে…,”

বাংলাদেশী সিনেমা ইতিহাসের গ্রথম বৃষ্টিভেজা এই চটুল গান যখন বেজে উঠে কিংবা প্রিয়া হারানো কোন ব্যথিত হৃদয়ের আশেপাশে যদি কেউ গেয়ে উঠে “অনেক সাধের ময়না আমার বাঁধন কেটে যায়, মিছে কেন শিকল দিলাম রাঙ্গা দু’টি পায়।” তবে সর্বপ্রথম যে চেহারা আমাদের চোখে জ্বলজ্বল করে উঠে বাংলাদেশী চলচ্চিত্রের ইতিহাসের সবচেয়ে জনপ্রিয় জুটিsalman-shabnoor ‘রাজ্জাক ও কবরী’ এর মুখ। অনেকেই হয়তো আমার কথায় বেঁকে বসবেন। আরো তো জনপ্রিয় জুটি আছেন, তারা কেন নয়? তাহলে বাংলাদেশী চলচ্চিত্রে সবচেয়ে সফল বা জনপ্রিয় রোমান্টিক জুটি কারা?

বাংলাদেশী সিনেমায় রোমান্টিক জুটি প্রথার সুচনাকারী হচ্ছেন আনিস (খান আতাউর রহমান) ও সুমিতা। সুমিতা দেবীকে বলা হতো বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ফার্স্ট লেডি। এরপর রহমান-শবনম জুটি বাংলা ও উর্দু দুটি ধরনের সিনেমাতেই ঝড় তুলেছিলেন। লোকগাথাভিত্তিক সিনেমায় আলোড়ন সৃষ্টি করেছিলেন আজিম-সুজাতা জুটি। গ্রামীন কাহিনীভিত্তিক সিনেমায় ফারুক-কবরী জুটি পেয়েছেন অন্যমাত্রার জনপ্রিয়তা। পারিবারিক আটপৌড়ে গল্প নিয়ে নির্মিত সিনেমায় উজ্জল হয়ে আছেন আলমগীর-শাবানা জুটি। টিনএজ প্রেমের সিনেমায় নতুন মাত্রা যোগ করেছিলেন নাঈম-শাবনাজ, সালমান-শাবনুর জুটি। একেএকে আরো অনেক রোমান্টিক জুটি আমরা দেখতে পেয়েছি। তাদের অনেকে দর্শক হৃদয়ে আসন করে নিয়েছেন আবার কেউ হারিয়ে গিয়েছেন। দর্শক নন্দিত অন্যান্য রোমান্টিক জুটি হচ্ছেনঃ রাজ্জাক-সুচন্দা, রাজ্জাক-কবরী, রাজ্জাক-শাবানা, রাজ্জাক-ববিতা, ওয়াসিম-অঞ্জু ঘোষ, ইলিয়াস কাঞ্চন-অঞ্জু ঘোষ, মান্না-চম্পা, সালমান-মৌসুমী, ওমরসানি-মৌসুমী, মান্না-মৌসুমী, রিয়াজ-পুর্ণিমা, ফেরদৌস-শাবনুর, শাকিব-অপু এবং সর্বশেষ বাপ্পী-মাহী।

jutiজুটিবদ্ধ হয়ে সর্বাধিক ১২৬ টি সিনেমা করেছেন আলমগীর-শাবানা, এরপরই আছেন শাকিব-অপু জুটি। কিন্তু জয়প্রিয়তার বিচারে রাজ্জাক-কবরী জুটি এবং সালমান-শাবনুর জুটি অন্য মাত্রা লাভ করেছেন। কারন এই দুটি জুটির প্রায় সকল সিনেমা ব্যবসায়িক দিক দিয়ে সফল হবার পাশাপাশি বাংলার সিনেমাপাগল মানুষের হৃদয়ে স্থায়ী আসন লাভ করেছেন।

তথাপি আমি রাজ্জাক – কবরী জুটিকে এগিয়ে রাখব। কারন এই জুটির প্রথম অস্ত্র ছিল তাদের ভুবন ভোলান হাসি। আর দ্বিতীয় অস্ত্র ছিল মায়াভরা চোখ। কোন সংলাপ না বলেও শুধু চোখর ভাষায় অনেক কিছু বুঝিয়ে দিতে পারতেন। নায়করাজ রাজ্জাক ও মিষ্টি মেয়ে কবরী’র পর্দায় কেমিষ্ট্রিটাই ছিল অন্য রকম। অবাক করা সাবলীল অভিনয় ও গুণী নির্মাতার অপুর্ব গল্প গাঁথুনীর কারনে দর্শকগন তাদের অভিনিত সিনেমার গভীরে প্রবেশ করতেন। ফলে হল থেকে বের হওয়ার পরও দেখা যেত একটা মোহগ্রস্থভাব দর্শকের মাঝে লেগে আছে। তখন দর্শকদের কেউ কেউ নিজেদেরই রাজ্জাক বা কবরী ভাবতে শুরু করতেন। এই মোহগ্রস্থ মানুষগুলি কারনে অকারনে সারান গুনগুনিয়ে গেয়ে চলতেন রাজ্জাক-কবরী জুটির কোননা কোন সিনেমার গান। হয়তো কাউকে প্রপোজ করতে হবে তাহলে গাইতো কিংবা চিঠির শিরোনামে লিখে ফেলতো ‘কাছে এস যদি বলে, তবে দুরেই কেন থাক..’। প্রেয়সীকে নিয়ে ঘুরতে বের হয়েছে, হঠাৎ এক পশলা বৃষ্টি নামলে প্রেমিক মন বৃষ্টিতে ভিজতে ভিজতে গেয়ে উঠতো – ‘ হৈ হৈ রঙ্গিলা রঙিলা রে, রিমিঝিম এই বরষায় মন নিলা রে…’ কিংবা কোথাও অপো করছে, তো গাইছে – ‘সে যে কেন এলো না, কিছু ভাল লাগেনা..’, আবার কখনো কখনো দেখা যেত প্রেমে ছ্যাকা খেয়ে দর্শক গেয়ে চলছে – ‘প্রেমের নাম বেদনা, সেকথা বুঝিনি আগে..’।azim-sujata

এভাবে হাজার হাজার দর্শককে যারা বছরের পর বছর মোহগ্রস্থ করে রাখতে পারেন আমি তাদের কেন এগিয়ে রাখব না? 
এই সফলতার মুলে ছিল তাদেও কাজের প্রতি একাগ্রতা, পুরো ইউনিট এক পরিবারের মতো কাজ করা এবং সর্বোপরি কুশলী চলচ্চিত্র নির্মাতাদের নির্দেশনা বিনাদ্বিধায় মাথা পেতে নেওয়ায় রাজ্জাক – কবরী জুটি জনপ্রিয়তার শীর্ষে পৌঁছতে পেরেছিলেন এবং হয়তো আরো কয়েক প্রজন্ম তাদের শ্রদ্ধাভরে স্মরন করবে।

স্বপ্নের জুটি রাজ্জাক-কবরী অভিনিত সিনেমাগুলি হচ্ছেঃ
ক খ গ ঘ ঙ, বেইমান, দীপ নেভে নাই, নীল আকাশের নীচে, রংবাজ, বাঁশরী, ঢেউয়ের পর ঢেউ, দর্পচুর্ণ, আবির্ভাব, অনির্বান, আঁকা বাঁকা, চোখের জলে, স্মৃতিটুকু থাক, ময়নামতি, অবাক পৃথিবী, গুন্ডা, কাঁচ কাটা হীরা, কে তুমি, মতিমহল, অধিকার, পরিচয়, স্বপ্ন দিয়ে ঘেরা, সোনালী আকাশ, আমাদের সন্তান।

Check Also

nuru miah o tar beauty driver

নুরু মিয়া ও তার বিউটি ড্রাইভার

মিডিয়া খবর :- গত ২৪ জানুয়ারি কোনও কর্তন ছাড়াই বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পায় …

tanha, shuva

ভাল থেকো চলচিত্রের পোস্টার প্রকাশ

মিডিয়া খবর:- প্রকাশ হল জাকির হোসেন রাজুর নির্মিতব্য চলচিত্রের পোস্টার। জাকির হোসেন রাজুর নির্মাণে আসছে নতুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares