Home » চলচ্চিত্র » ক্যাথরিন মাসুদের লড়াইয়ের গল্প
katherin-masud

ক্যাথরিন মাসুদের লড়াইয়ের গল্প

Share Button

ঢাকা:-

-: পাভেল রহমান :-

নিরবেই কেটে গেলো তিনটি বছর। আজ ১৩ আগস্ট, সেই ভয়াল মর্মান্তিক ট্র্যাজেডির দিন। ২০১১ সালের ১৩ আগস্ট সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারিয়েছিলেন দেশের বরেণ্য চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদ ও চিত্রগ্রাহক মিশুক মুনীর। মানিকগঞ্জ জেলার ঘিওর উপজেলা হাইওয়েতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন দেশের চলচ্চিত্র অঙ্গনের এই দুই মেধাবী মুখ। একই দুর্ঘটনায় তারেক-মিশুক ছাড়াও আরো তিনজন নিহত হয়েছিলেন।

তারেক মাসুদ এবং মিশুক মুনীর কাগজের ফুল নামের একটি নতুন ছবির শুটিং এর জন্য লোকেশন দেখতে মানিকগঞ্জ জেলায় গিয়েছিলেন। ফেরার পথে তাদেরকে বহন করা মাইক্রোবাসের সঙ্গে চুয়াডাঙ্গাগামী একটি চলন্ত বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে, ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান তারেক মাসুদ, মিশুক মুনীর এবং দুর্ঘটনায় আহত হন দেশের প্রখ্যাত চিত্রশিল্পী ঢালী আল মামুন, তারেক মাসুদের স্ত্রী ক্যাথরিন মাসুদসহ গাড়িতে থাকা সবাই।
katherin-masud.gif-1
সেই ভয়াল দিনের ঘটনা এ দেশের ইতিহাসে মর্মান্তিক ট্র্যাজেডি হয়েই থাকবে। তারেক মাসুদের মতো চলচ্চিত্র নির্মাতা এবং মিশুক মুনীরের মতো চিত্রনির্মাতার এমন প্রয়াণ আজো মেনে নিতে পারেনি এ দেশের মানুষ। তাই তো আজ পুরো জাতি গভীর ভালোবাসা আর শ্রদ্ধায় স্মরণ করবে প্রিয় নির্মাতা তারেক মাসুদ এবং মিশুক মুনীরকে।
শোক আর বেদনার মাঝেও স্বপ্নের গল্প নিয়েই আজকের আয়োজন। তারেক মাসুদ তো স্বপ্ন দেখতেই পছন্দ করতেন। তাই তো তারেক মাসুদের অসমাপ্ত স্বপ্ন নিয়ে তার শিল্প সঙ্গী ক্যাথরিনের মুখোমুখি আমি। তারেকবিহীন ক্যাথরিনের লড়াইয়ের গল্প উঠে এসেছে আলাপচারিতায়। এর কিছু অংশ তুলে ধরা হলো পাঠকের জন্য। 

পাভেল রহমান : তারেক মাসুদের সঙ্গে আপনার জার্নিটা কিভাবে শুরু হয়েছিলো?

ক্যাথরিন মাসুদ : ১৯৮৭ সালে তারেকের সঙ্গে আমার পরিচয় হয় আহমদ ছফার মাধ্যমে। তখন সূফি এস এম সুলতানের উপর তথ্যচিত্র আদম সুরত নির্মাণের কাজ করছে তারেক। সূফি সুলতানের সঙ্গে এরও আগে আমার পরিচয় ঘটেছে। আমি ফাইন আর্টস এর শিক্ষার্থি হওয়ায় সুলতানের প্রতি একটু দুর্বলতা ছিলো। তারেক চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের উপর তথ্যচিত্র নির্মাণ করছে শুনে আমার বেশ আগ্রহ হলো। তখন এ তথ্যচিত্রটির ইংরেজী অনুবাদের জন্য তারেক আমার কাছে আসে। এ চলচ্চিত্রের কাজের সূত্রেই আমাদের মধ্যে বন্ধুত্বটা তৈরি হয়।  
পাভেল রহমান : আহমদ ছফার সঙ্গে আপনার পরিচয় হয় কিভাবে?
ক্যাথরিন মাসুদ : আমি ১৯৮৬ সালে প্রথম ঢাকায় আসি, বিশ্ববিদ্যালয় পড়াশুনার অংশ হিসেবে একটা গবেষনার কাজে। এর এক বছর পর আহমদ ছফার সঙ্গে আমার পরিচয় হয়। তখন আহমদ ছফা, সূফি সুলতান, তারেক মাসুদ মিলে দারুণ একটা গ্রুপ ছিলো। আমি এ দলটাকে পেয়ে বেশ খুশি ভাবনাগুলো আরো বিস্মৃত হলো। ফাইন আর্টসের ছাত্রী হিসেবে সুলতানের কাজ আমি দেখেছি। তারেক সুলতানের উপর তথ্যচিত্র নির্মাণ করছে। পুরো বিষয়টা আমাকে মুগ্ধ করলো।  
পাভেল রহমান : গবেষনার জন্য আপনি ঢাকাকে বেছে নিয়েছিলেন কেন?
ক্যাথরিন মাসুদ : বিশ্ববিদ্যালয় থেকে তখন আমাকে অপশন দেয়া হয়েছিলো, আফ্রিকা, বাংলাদেশ, ল্যাটিন আমেরিকার কিছু দেশ। আমার প্রফেসর তখন আমাকে বললো বাংলাদেশে যেতে পারো। এরপরই এক বন্ধুর মাধ্যমে ঢাকায় আসা। এরপর তো আহমদ ছফা, তারেক, সূফি সুলতান সবার সঙ্গে বেশ ভালো বন্ধুত্ব হয়ে গেলো।
পাভেল রহমান : মুক্তির গান নির্মাণের গল্প আপনার মুখ থেকে শুনতে চাই?
ক্যাথরিন মাসুদ : বিয়ের কয়েক মাস পর আমরা আমেরিকা যাই। সেখানে গিয়ে লিয়ার লেভিনের সঙ্গে আমাদের পরিচয় হয়। তখন জানতে পারি বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ের বেশ কিছু ভিডিও ফুটেজ তার কাছে আছে। মুক্তিযুদ্ধের সময় লেভিন তখন আমেরিকাতে বিজ্ঞাপনচিত্র নির্মাণের সঙ্গে যুক্ত ছিলো। তার সঙ্গে দেখা করি এই ফুটেজগুলো সংগ্রহ করি। এরপর তো পাঁচ বছরের দীর্ঘ যাত্রা। এ গল্পটাও অনেক বড়। মুক্তির কথা তথ্যচিত্রে আমরা এর কিছু অংশ বলেছি। 

পাভেল রহমান : মাটির ময়না প্রথম বাংলাদেশি চলচ্চিত্র হিসেবে কান চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কৃত হয়েছিলো। এ অভিজ্ঞতা শুনতে চাই?TAREK-MASUD
ক্যাথরিন মাসুদ : ২০০২ সালে মাটির ময়না কান চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কৃত হয়। কিন্তু তখন বাংলাদেশ সরকার ছবিটিকে নিষিদ্ধ করেছিলো। বাণিজ্যিক ছবির ক্ষেত্রে নিষিদ্ধ হলে ছবি আরো জনপ্রিয় হয়। কিন্ত আমরা এ ধরণের প্রচারণা চাই নি। আমরা মাটির ময়না নির্মাণের পর এটাকে সব মানুষের কাছে নিয়ে যেতে চেয়েছিলাম। সবাইকে দেখাতে চেয়েছিলাম। বাংলাদেশের গ্রামে যে ইসলাম ধর্মের চর্চা রয়েছে সেখানে কিন্তু উগ্রতা নেই। চমৎকার একটা লোক সংস্কৃতি। মাটির ময়না ছবির মাধ্যমে মুসলিম এই লোক সংস্কৃতিকেই তুলে ধরেছি। কান উৎসবে অনেক সাংবাদিক ছবিটির নিষিদ্ধের ব্যাপারে জানতে চেয়েছিলো। আমরা এ বিষয় নিয়ে তেমন কথা বলি নি। কান উৎসবে অনেকেই ছবিটি দেখে প্রশংসা করেছে। এরপর তো আরো অনেকগুলো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ছবিটি প্রদর্শিত হয়েছে। 
পাভেল রহমান : তারেক মাসুদের সঙ্গে শেষ স্মৃতি যদি বলেন?
ক্যাথরিন মাসুদ : আমরা তো সেদিন একই সঙ্গে ছিলাম। গাড়িতে তারেক বেশ উৎফল্ল ছিলো। অনেক গল্প করছিলোম ছবির লোকেশনের গল্প, সুফি সুলতানের গল্প। গল্পের মধ্যেই এ দূর্ঘটনাট ঘটলো। সৈনিকের যেমন স্বপ্ন থাকে যুদ্ধ ক্ষেত্রে প্রাণ দেয়ার, ওরা সিনেমার সৈনিক। তারেক-মিশুকরাও চলচ্চিত্রের কাজের মধ্যেই প্রাণ দিয়েছে। 
পাভেল রহমান : তারেক মাসুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্টের পরিকল্পনা সম্পর্কে শুনতে চাই?
ক্যাথরিন মাসুদ : সামনে আমাদের অনেকগুলো কাজ রয়েছে। তারেকের কিছু অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে হবে। চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের উপর নির্মিত আদম সুরত প্রামাণ্যচিত্রের ডিভিডি প্রকাশ করবো অক্টোবরে। এটি বেঙ্গল ফাউন্ডেশনের সঙ্গে যৌথভাবে তারেক মাসুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্ট করছে। এছাড়া তারেক মাসুদের সাক্ষাৎকার নিয়ে চলচ্চিত্র কথন নামের একটি বই প্রকাশ করবো ডিসেম্বরে। তারেক মাসুদের গ্রামের বাড়ি ফরিদপুরে একটি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র করার ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলছি। এটা নিয়েও কিছু কাজ করবো। সেখানে লাইব্রেরী থাকবে, ছোট একটা মিলনায়তন থাকবে। এ বছরই রানওয়ে ছবির নেপথ্য গল্প নিয়ে একটি ডক্যুমেন্টারী প্রকাশ করবো। তাছাড়া ভাষা আন্দোলন নিয়ে আমরা একটা কাজ করছি যেটা তারেক শুরু করে গিয়েছিলো। 
পাভেল রহমান :কাগজের ফুল চলচ্চিত্রের কাজ শুরু হচ্ছে কবে?
ক্যাথরিন মাসুদ : এটা অনেক বড় একটা কাজ। আগে অন্য কাজগুলো একটু গুছিয়ে নিয়ে তারপর এ কাজটা শুরু করতে যাচ্ছি। কাগজের ফুল তো একটু বড় ক্যানভাসের কাজ। এটা নিয়ে পরিকল্পনা করছি। এখনই বলতে পারছি না কবে কাজটা শুরু করছি। তবে এ বছরের মধ্যে ছোট ছোট কাজগুলো গুছিয়ে নিয়ে কাগজের ফুল নির্মাণের কাজ আমরা শুরু করবো। 
পাভেল রহমান : আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।
ক্যাথরিন মাসুদ : তোমাকেও ধন্যবাদ। –

(কৃতজ্ঞতায়- রাইজিংবিডি)

Check Also

nuru miah o tar beauty driver

নুরু মিয়া ও তার বিউটি ড্রাইভার

মিডিয়া খবর :- গত ২৪ জানুয়ারি কোনও কর্তন ছাড়াই বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পায় …

tanha, shuva

ভাল থেকো চলচিত্রের পোস্টার প্রকাশ

মিডিয়া খবর:- প্রকাশ হল জাকির হোসেন রাজুর নির্মিতব্য চলচিত্রের পোস্টার। জাকির হোসেন রাজুর নির্মাণে আসছে নতুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares