Home » চলচ্চিত্র » চলচ্চিত্রে নিজস্বতাই পারে দর্শকদের হলমুখী করতে
1aper-oper

চলচ্চিত্রে নিজস্বতাই পারে দর্শকদের হলমুখী করতে

Share Button

রেজওয়ান সিদ্দিকী অর্ন:-

কেউ বলেন এইতো আমাদের চলচ্চিত্র বদলে গেছে। কেউ আবার বদলানোর আগে জোরেশোরে আওয়াজ তোলেন মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করেন। তাদের মধ্যে কারো কারো মতবাদ আমরা হলিউড হতে যাচ্ছি, কেউ বলছে এইযে বলিউড হয়ে গেলাম । তখন ভীষণ মিশ্র অনুভূতি মনে জাগে আসলেই কি তাই? যদি হয়ে যায়, তখন আসুন ছুটে যাই তাদের সেই হলিউড/বলিউড মানের চলচ্চিত্র দেখতে । কিন্তু কই তাদের অধিকাংশই তো আগের বাংলা ছবির মানও টপকাতে পারছে না । চলচ্চিত্র বলতে তাদের ভাষ্য কি তা আমাদের মত নগন্যদের জানা নেই। তবে এইটুকু বুঝতে কষ্ট হয় না ফার্মের মুরগীর চেয়ে দেশী মুরগী সুস্বাদু বেশী। ফার্মের ডিমের উৎকট গন্ধে খাওয়ার ইচ্ছে উবে যায়। দেশী রুই মাছের স্বাদও অনেক আলাদা । নানান রঙে রাঙানো বিদেশী ছাই-পাশ খাবারের চেয়ে দেশী খাবার কেনো ভালো লাগে? আমরা নিজেদের এই সব প্রশ্ন করলেই হয়তো বোঝা যাবে কেন স্বাদহীন হয়ে পড়ছে আমাদের খাবারগুলো । চেনা বিষয়গুলো যখন প্রতিনিয়ত দেখার বাহিরে নতুন হয়ে সামনে আসতো, তখনই নিজস্ব ঢং এর উপস্থিতিই তার পূর্ণ পরিতৃপ্তি ঢেলে দিতো ।

চলচ্চিত্র একটি সামাজিক কর্মযজ্ঞের মোহজাল। যেখানে চিত্রের সাহায্যে মহৎ ধারণা উত্থাপিত হয় । দৃশ্যমান সত্য বা ভাবনার যৌক্তিক কল্পনায় কল্পনা করেন যিনি, তিনি সত্যটি জানেন । ফলে যে সত্য নির্মোহ সাবলীল তাই তিনি উপস্থাপন করেন।  এখন প্রশ্ন,  কি ভাবে সত্য নিরুপিত হবে ?  কে নির্নয় করবেন ? নিশ্চয়ই তিনি নির্নয় করবেন যার মধ্যে সত্য অন্বেষনের ক্ষমতা আছে,যিনি সত্য-মিথ্যার পার্থক্য করতে পারেন । তাহলে কিভাবে তিনি ক্ষমতাপ্রাপ্ত হন, তা জানলেই বুঝতে কষ্ট হবার নয় তার সত্য অন্বেষণের সামর্থ্য আছে কি না ?

একজন নির্মাতা সত্যকে শুধুমাত্র গ্রহনযোগ্য করেন চলচ্চিত্রের মাধ্যমে । তাই তাকে ভাব নিয়ে জগতের সাথে সম্পর্ক তৈরীর দায়িত্ব নিতে হয় । তিনি হন নির্দেশনাকারী । যিনি সকল সত্য আহরণ করেন এবং তা বুঝতে দর্শককের নিকট সাবলীল করে দেন । তাহলে নিশ্চয়ই নির্মাতা হবেন সেই ক্ষমতাবান যিনি অর্জন করেন কাউকে ভোগ করাতে, যা থেকেই তার তৃপ্তি হয় । ছবি রিলিজের আগে যে ভাবে আমাদের নির্মাতা এবং প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো উচ্চবাচ্য শুরু করেন, তাতে আমাদের মতো অনেকেই হলে গিয়ে আহম্মক হয়ে যান । হালের নির্মিত একটি ছবি নিয়ে কথাগুলো বলতে হলো । তাদের দাবী ছবিতে বিষ্ময়কর হলিউডের কারুকাজের উপস্থিতি, নায়িকাকে দেখা যাবে অঞ্জেলিনা জেলির মতো সহ আরো নানান কথা । বাস্তবতা কি তাই? ছবিটি যিনি নির্মান করেছেন তার মধ্যে হলিউড/বলিউডের ভুত যে ভর করেছে তা বুঝতে কষ্ট হবার নয় । মেটালিক নিরাত্মা শরীর দিয়ে দৌড়ানো হলিউড নায়িকার সাথে বাঙ্গালী ললনার দৌড় হাস্যকর! তাহলে নির্মাতার এখানে স্বকীয়তা কোথায় ? ছোপ-ছোপ করে বসিয়ে দেয়া অন্য বিদেশী গল্পের অবয়ব কখনই আমাদের বাংলা-চলচ্চিত্রকে সমৃব্ধ করবে কি ? তাহলে অন্যের দেখা এবং শোনা সত্যে দিয়ে, কি করে নির্মাতারা এবং প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো আমাদের আসল সত্য দেখতে আমাদের সাহায্য করবে, যা নিয়ে গর্ব করবে এটাই প্রথম এর আগে কেউ করে দেখাতে পারেনি! আসলে আমরা নিজেদের দৈন্যতাই প্রকাশ করে যাচ্ছি ।

কারণ বর্তমানে চলচ্চিত্র নিয়ে যারা ভাবছেন তাদের মধ্যে নিজেস্বতার অনেকেরই আভাব তীব্র । তাই অবশ্যই চলচ্চিত্র নির্মানে আমাদের সংস্কৃতিকে প্রাধান্য দিলে , দর্শক দেশী ডিমের ন্যয় স্বাদ পাবে । ফলে চলচ্চিত্র দেখতে দর্শক হলমূখী হবে ।

Check Also

nuru miah o tar beauty driver

নুরু মিয়া ও তার বিউটি ড্রাইভার

মিডিয়া খবর :- গত ২৪ জানুয়ারি কোনও কর্তন ছাড়াই বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পায় …

tanha, shuva

ভাল থেকো চলচিত্রের পোস্টার প্রকাশ

মিডিয়া খবর:- প্রকাশ হল জাকির হোসেন রাজুর নির্মিতব্য চলচিত্রের পোস্টার। জাকির হোসেন রাজুর নির্মাণে আসছে নতুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares