Home » নিউজ » শিল্পীদের নিষিদ্ধ করার বিরুদ্ধে বাপ্পারাজের ক্ষোভ
bappa raj

শিল্পীদের নিষিদ্ধ করার বিরুদ্ধে বাপ্পারাজের ক্ষোভ

Share Button

মিডিয়া খবর :-

নিষেধাজ্ঞার মতো বিতর্কিত পদক্ষেপের সমালোচনা করলেন অভিনেতা বাপ্পারাজ।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি কর্তৃক শাকিব খানসহ বেশ কয়েকজন তারকার বিরুদ্ধে নেওয়া নিষেধাজ্ঞার মতো বিতর্কিত পদক্ষেপের সমালোচনা করে সবধরণের শিল্পীদের নিষিদ্ধ করা থেকে বিরত থাকার আহবান জানিয়েছেন তিনি। সবাই এক ছাদের নিচে না এলে আর কখনও এফডিসিতে আসবেন না বলে অভিমানের সুরে জানিয়েছেন জনপ্রিয় এই তারকা।

শনিবার (২৬ আগস্ট) সকালে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থার (বিএফডিসি) ৮ নম্বর ফ্লোরে রাজ্জাক স্মরণে শোকসভা ও মিলাদ মাহফিলে রাজলক্ষ্মী কমপ্লেক্স প্রসঙ্গে বাপ্পারাজ বলেন, ‘একটা ভুল ধারণা আছে, উনি (রাজ্জাক) সিনেমা হলের নামে মার্কেট করেছেন। কমপ্লেক্স গড়ার অনুমতিটা সিনেমা হলের কথা বলে নিয়েছেন। না, মার্কেট করা হবে উল্লেখ করে অনুমতি নেওয়া হয়েছিল। মার্কেটটা ওখানে মার্কেট হিসেবেই তৈরি করা হয়েছে। পরবর্তীতে আমরা সিনেমা হল করার জন্য চেষ্টা করেছিলাম, কিন্তু রাজউক অনুমতি দেয়নি। তাছাড়া ভবনটিতে অনেক পিলার। সেগুলো ভেঙে জায়গা বের করে সিনেমা হল বানানোর সুযোগ ছিল না।’
এখানেই থেমে যেতে চাননি রাজ্জাক। এরপর ভবনের ওপরেও সিনেমা হল করার চেষ্টা করেছিলেন তিনি। কিন্তু তখনও তাকে অনুমতি দেওয়া হয়নি বলে দাবি বাপ্পারাজের। তার ভাষ্য, ‘কিছুদিন আগেও ওখানে বিসিকের একটি মিলনায়তন ছিল, ওটাও আমরা নেওয়ার চেষ্টা করেছিলাম সিনেমা হল করার জন্য। কিন্তু পাশে একটি স্কুল থাকায় অনুমতি দেওয়া হয়নি।

‘আমরা আমাদের পরিবারের সদস্যদের বুকে নেওয়ার অভ্যাসটা গড়ে তুলি। আমাদের যদি যুদ্ধ করতে হয় পরিবারের বাইরের লোকদের সঙ্গে তা করবো, নিজেদের মধ্যে না। হয়তো এটাই আমার শেষ আসা। আমি আর কোনোদিন ফিল্মে আসবো না। যদি না কালকে শুনি আমরা আবার মিলে গেছি, সবার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। তাছাড়া বাপ্পারাজ এফডিসিতে না এলে কারও কিছুই আসে যায় না। তবে এটা আমার প্রতিবাদ। আমাকেও নিষিদ্ধ করেন। আমার অনেক ভাই আছে যারা কাজ করতে চায়, আমরা কাজ করতে চাই। আমরা কাজ করি। আসুন আমরা নিষিদ্ধ খেলা বন্ধ করে দিই।’শাকিবের ওপর বিভিন্ন অভিযোগ ও নিষেধাজ্ঞা প্রসঙ্গে বাপ্পারাজের ভাষ্য, ‘আমার বাবার দাফন হয়ে যাওয়ার পর পেছনে তাকিয়ে দেখি শাকিব এবং জায়েদ (চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক) আছে। তাদের কাছে আমার প্রথম কথাই ছিল, তোমরা কোলাকুলি করো, কোনও বিভেদে জড়াবে না। আমার বাবা চলে গেছেন, আমি হাতজোড় করে বলি— তার সম্মানে হলেও আসুন নিষিদ্ধ খেলাটা বন্ধ করে দিই। রাজ্জাক সাহেব কখনও বিভেদ করেননি, বিভাজন করেননি, কাউকে বহিষ্কারও করেননি, নিষিদ্ধও করেননি। তার সম্মানে আমি দাবি নিয়ে বলবো, সব ভুলে গিয়ে আজ থেকে সব নিষেধাজ্ঞা তুলে নিন।’

একই প্রসঙ্গে বাপ্পারাজের মন্তব্য— ‘আজ সুচন্দা আন্টি সামনে আছেন, তিনি যদি শাকিবকে ফোন করে বলেন— তুমি এফডিসিতে পরিচালক সমিতিতে আসো, আমি তোমার সঙ্গে কথা বলবো। শাকিব কখনও বলবে না সে আসবে না। ফারুক সাহেব, আলমগীর সাহেব, পারভেজ সাহেব (সোহেল রানা) যদি বলেন— শাকিব আসো, তোমার সঙ্গে কথা বলবো। শাকিব আসতে বাধ্য। এজন্য মামলা করার দরকার হয় না। বাড়িতে উকিল নোটিশ পাঠানোর দরকার হয় না। আমাদের নিজেদের সম্মান আমরা করি না। আমরা এটা ভুলে গেছি। আমরা নিজেদের অবস্থান বুঝতে পারছি না বলেই এ অবস্থা।’

শনিবারের শোকসভা আয়োজন করে ১৮টি সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিবার। এ প্রসঙ্গ টেনে বাপ্পারাজের কথা, ‘আমরা মুখে বলি পরিবার। কিন্তু সদস্যদের বহিষ্কার করে দিই। পরিবার কখনও তার সদস্যকে বহিষ্কার করে না, শাসন করে। আপনারা শাসন করবেন, একসঙ্গে মিলেমিশে থাকবেন। আজ এটাই আমার দাবি। আমাদের মুরুব্বিরা এখনও আছেন। যারা আমাদের শাসন করতে পারেন, পথ দেখাতে পারেন। যারা বেঁচে আছেন, তাদেরকে সম্মান দেবেন। আমরা যারা ছোট আছি তারা অগ্রজদের সম্মান দেবেন। তাদের যে যোগ্যতা ও আসন, তা যেন আমরা দিতে পারি। সেই চেষ্টাই আমরা করবো।’

‘আমাদের ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক বাইরের লোক ঢুকে গেছে, যারা আমাদের যুদ্ধে নামিয়ে দিয়ে তালি বাজিয়ে নিজেদের ফায়দা লুটতে চায়। আমরা আমাদের ইন্ডাস্ট্রিকে আবারও ফেরত পেতে চাই। আমাদের ইন্ডাস্ট্রি এখন ফিল্মের লোকের হাতে নেই, বাইরের লোকের হাতে। এখানে নাটক ও বিজ্ঞাপনচিত্রের শুটিং হয়, কিন্তু আমরা ফিল্মের লোকেরা শুটিং করতে পারি না।’

Check Also

জাজের ‘বেপ‌রোয়া’ ছবির শু‌টিং বন্ধ

মিডিয়া খবর :- ওয়ার্ক পারমিট না থাকায় ছবির শুটিং না করেই ফিরে যেতে হয়েছে ভারতীয় …

চিত্রায় নৌকাবাইচ

মিডিয়া খবর :- সুলতান বেঁচে থাকতেও তার জন্মদিন উপলক্ষে চিত্রা নদীতে চলতো নৌকাবাইচ। প্রায় ২৭ বছর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares