Home » টিভি চ্যানেল » আসবে কি চ্যালেন ওয়ান?
Channel_1_logo

আসবে কি চ্যালেন ওয়ান?

Share Button

ঢাকা:- কি আশায় বাধি খেলাঘর বেদনার বালুচরে- এক বুক আশা নিয়ে এখনও আশায় দিন গোনেন চ্যানেল ওয়ানের প্রাক্তন কর্মীরা। প্রাণচঞ্চল মিডিয়া কর্মীদের পদভারে সদা ব্যাস্ত একসময়ের চ্যানেল ওয়ান এখন অস্থি মজ্জা  নিয়ে কালের সাক্ষী হিসেবে স্থবির হয়ে আছে গুলশান ১ এর উদয় টাওয়ারের ষষ্ঠতলায়। দুটি ফ্লোরের মধ্যে পঞ্চম তলা ছেড়ে দিয়ে শুধুমাত্র ষষ্ঠতলায় সব মালমাল ঠাসাঠাসি করে রাখা হয়েছে। মৃত চ্যানেল ওয়ান পাহারা দেবার জন্য গুটিকতক কর্মী অলস বসে থাকেন রাতদিন। বেশকিছুদিন ধরে চ্যানেল ওয়ানের প্রোগ্রাম স্টুডিওটি ভাড়া নিয়ে অনুষ্ঠান নির্মান করছিল ক্যামব্রিয়ান কলেজ। এই আয় থেকে সবার বেতন ভাতা চলছিল। সম্প্রতি ক্যাম্রিয়ান এর নিজস্ব সিটিভি অনুমতি পায় এবং তারা নিজেদের তৈরী করা ষ্টুডিওতে অনুষ্ঠান বানাবার কথা বলে চুক্তিটি বাতিল করে। এখন এশিয়ান টিভির কাছে লাইট সামগ্রী ভাড়া দিয়ে কোনমতে বেতন ভাতা প্রদানের কাজ চলছে।এসি না থাকার কারণে নষ্ট হতে চলেছে মূল্যবান যন্ত্রপাতি এবং একটি সমৃদ্ধ আর্কাইভ।তবু সেই যন্ত্রপাতি আগলে বসে আছেন কয়েকজন কর্মী।মাঝেমধ্যে ব্রডকাস্ট কর্মী রাসেল আহমেদ এসে ঢু মেরে দেখে যান যন্ত্রপাতি ঠিক আছে কিনা। বিগত নির্বাচনের সময় জোর গুজব ওঠে চ্যালেন ওয়ান আবার আসছে, কিন্তু তা ছিল শুধুই গুজব, ভাগ্যের চাকা গড়ায়নি চ্যানেল ওয়ানের। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মী জানান, চ্যানেল ওয়ানের পরিচালক মাজেদুল ইসলাম মাঝে মধ্যে খবর নেন বটে কিন্তু বেতন ভাতার জন্য চ্যানেলের যন্ত্রপাতির ভাড়াই ভরসা। তিনি আরও বলেন যে আমরাও আশা নিয়ে বসে আছি কোন একদিন হয়ও আবারও চ্যানেল ওয়ান আসবে তার হারান গৌরব নিয়ে। আমরা সেই শুভক্ষণের আশায় আছি। তিনি  জানিয়েছেন চ্যানেল ওয়ানের ক্যামেরা, লাইট, স্টুডিও, এডিটিং প্যানেল ভাড়ায় পাওয়া যাবে, যে কেউ এবিষয়ে উদয় টাওয়ারের ষষ্ঠ তলায় যোগাযোগ করতে পারেন।

সিকিউরিটি অফিসার মিজানুর রহমান, লুৎফর রহমান এবং প্রশাসনিক কর্মী রিনি খান সহ ৭ জন কর্মী এখানে কাজ করছেন।

এদিকে উদয় টাওয়ারের সুত্রে জানা গেছে তারা বেশ কয়েকবার চেষ্টা করেও চ্যানেল ওয়ান কর্তৃক দখলকৃত স্থানের ভাড়া আদায় করতে পারেনি। ফ্লোর ভাড়া, বিদ্যুৎ বিল, লিফট বিল ইত্যাদী সহ প্রায় ৪ কোটি টাকা বকেয়া পাওনা পড়েছে। সম্প্রতি স্টুডিও ভাড়া থেকে প্রাপ্ত ৭০ লক্ষ টাকা ভাডা বাবদ পরিশোধ করা হয়েছে বলে চ্যানেল ওয়ান সুত্রে জানা গেছে।

গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের এক ঘনিষ্ট চ্যালেন ওয়ানের প্রাক্ত কর্মী কালাম ফয়েজী জানান গিয়াসউদ্দিন আল মামুন এখন এসব বিষয় নিয়ে ভাবছেননা।, ভবিষতে যদি কখনও সুযোগ আসে তখন দেখা যাবে বলে এড়িয়ে যান।

উল্লেখ্য ২০১০ সালের ২৬ ‍এপ্রিল তৎকালীন সরকার চ্যানেল ওয়ানের যন্ত্রাপাতির মালিকানা হস্তান্তরের অভিযোগ এনে চ্যানেলটি বন্ধ করে দেয়।

বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় ২০০৫ সালের ১ জুন চ্যানেল ওয়ান প্রতিষ্ঠিত হয়। গুলশানের প্রধান কার্যালয় থেকে ২০০৬ সালের ২৪ জানুয়ারি এটি আনুষ্ঠানিকভাবে সম্প্রচার শুরু করে। ২০০৭ সালের এক-এগারোর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় দুর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগে এর মালিক বিতর্কিত ব্যবসায়ী গিয়াসউদ্দিন আল মামুনের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের করা হয়, এখন তিনি কারাগারে আছেন।

২০১০ সালের ২৬ সন্ধ্যায় দেশবাসীকে বস্তুনিষ্ঠ সত্য সংবাদ জানাতে গিয়েও তা পারেনি দেশের অন্যতম জনপ্রিয় স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল ‘চ্যানেল ওয়ান’ কর্তৃপক্ষ। সম্প্রচার যন্ত্রের মালিকানা হস্তান্তরে অনিয়মের অজুহাত দেখিয়ে ওয়ান এন্টারটেইনমেন্ট লিমিটেড এর প্রতিষ্ঠান চ্যানেল ওয়ান বন্ধ করে দেবার আগে টিভি স্টেশনটির পক্ষ থেকে সংবাদ প্রচার বন্ধ রেখে বেশ কিছুক্ষণ ধরে এর সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া সম্পর্কে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হয়। এতে বলা হয়েছিল, “প্রিয় দর্শক, ‘সম্ভাবনার কথা বলে’ স্লোগানে এ দেশের সবচেয়ে আধুনিক প্রযুক্তি নিয়ে ২০০৬ সালের ২৪ জানুয়ারি যাত্রা শুরু করে স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল_চ্যানেল ওয়ান। দীর্ঘ এ পরিক্রমায় এরই মধ্যে দেশে-বিদেশে দর্শকদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে চ্যানেলটি। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, এখন থেকে চ্যানেল ওয়ান-এর সম্প্রচার সাময়িকভাবে বন্ধ হচ্ছে। এ জন্য চ্যানেল ওয়ানের সব দর্শক, কেব্ল অপারেটর, কলাকুশলী ও বিজ্ঞাপনদাতাদের কাছে আমরা আন্তরিকভাবে দুঃখিত। আশা করি শিগগিরই আমরা আবারও আমাদের সংবাদ এবং অনুষ্ঠান নিয়ে ফিরে আসব আপনাদের মাঝে।”

কিন্তু আজও ফিরে আসেনি ‘চ্যানেল ওয়ান।

বিটিআরসি কর্মকর্তারা যাওয়ার আগে মাজেদুল ইসলাম তার প্রতিষ্ঠানের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, বিটিআরসি যে ক’টি শো-কজ নোটিশ চ্যানেল ওয়ানকে পাঠিয়েছে, তার সব কটির যথাযথ উত্তর দেওয়া হয়েছে। চ্যানেল ওয়ানের বিষয়টি মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে বিবেচনা করার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, “প্রয়োজনে সরকারের সব কথা আমরা মেনে চলবো।”

মাজেদুল ইসলাম বলেন, চ্যানেল ওয়ানের সপ্রচার যন্ত্র নিলামে বিক্রি হয়েছে কিনা সে বিষয়ে প্রাইম ব্যাংক কোনো নোটিশ পাঠায়নি। যন্ত্রপাতি নিলাম হওয়ার পর ব্যাংকের বিরুদ্ধে মামলা করে চ্যানেল ওয়ান। পরে হাইকোর্ট রায় দেয় যন্ত্রপাতি নিলামে বিক্রি করা যাবে।

এরপর ব্যাংক নিলামে যন্ত্রপাতি বিক্রি করে, তবে তারা বলেছে, লেনদেন পুরোপুরি না হওয়ায় যন্ত্রপাতি হ্যান্ডওভার করা হয়নি।

বর্তমানে চ্যানেল ওয়ানের প্রাক্তন কর্মীগন দেশের বিভিন্ন চ্যানেলে সুনামের সাথে গুরুত্বপূর্ণ পদ সমুহে  দ্বায়িত্ব পালন করছেন।

 

Check Also

media unity

দ্বন্দের অবসান, মামলা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত ফরিদুর রেজা সাগরের

মিডিয়া খবর :- নিজেদের মধ্যেকার ঝগড়া মিটিয়ে নিলেন চ্যানেল মালিকগন। শনিবার ঢাকা ক্লাবে টেলিভিশন চ্যানেল সংগঠন …

poriborton

বিটিভিতে আনজাম মাসুদের পরিবর্তন

মিডিয়া খবর :- আজ (২০ নভেম্বর) রবিবার রাত ১০টার বিটিভর সংবাদের পর আনজাম মাসুদের ‘পরিবর্তন’ সম্প্রচার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares