Home » মঞ্চ » শিল্পকলায় গহর বাদশা ও বানেসা পরী
gahor badsha o banecha pori

শিল্পকলায় গহর বাদশা ও বানেসা পরী

Share Button

মিডিয়া খবর :-

শিল্পকলা একাডেমীর মূল হলে আজ মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় নাগরিক নাট্যাঙ্গনের ২০তম প্রযোজনা ‘গহর বাদশা ও বানেছা পরী’ মঞ্চস্থ হবে।

শিকারের উদ্দেশ্যে রাজা এসেছে বনে শিকার নাহি দেখে কোন খানেgahor badsha o banecha pori সারাবন খুঁজে বিশ্বিং হয়রে হয়রান তবু শিকারের না পায় সন্ধান গীলামাইট বনে বিশ্বিং বাদশাহ এসেছিল শিকার করতে। সারা বন খুঁজে শিকার না পেয়ে পরিশ্রান্ত বাদশাহ যখন দুষছিল নিজের ভাগ্যকে ঠিক তখনি অদূর জলাশয়ে হরিণ শাবকের আগমনে তীর ছোঁড়ে বাদশাহ, পরক্ষনেই মানব সন্তানের কানড়বায় বুঝতে পারে কি ভীষন নিষ্ঠুরতায় হাত রাঙালো আজ। অন্ধ মুনি সন্তান হারানোর বেদনায় অভিশাপে জর্জরিত করল সন্তানহীন বাদশাহ বিশ্বিংকে।  দেবে তোমায় পুত্র সন্তান বিশ্বিং ভগবান লিখে রাখ পাথরে এ কথা Ñ হে নিষ্ঠুর রাজন বলি যাহা হয় তাহা হয়নি খন্ডন পুত্র বিচ্ছেদে হবে জর্জরিত তোমার জীবন।  মুনির অভিশাপে দুই পুত্রের চন্দ্রমুখ দেখার সৌভাগ্য হয়  বাদশাহর। কিন্তু রাজ্য জুড়ে যখন আনন্দের বন্যা, বাদশাহর মনে তখন সন্তান হারানোর ভয়।
দিন যায় যায় যায় যায় দিন যায়
বছর ঘুরে গাছের পাতা রঙ যে বদলায়
রানী কাঁদে রাজা কাঁদে কাঁদে সারা বন
অন্ধকূপে বন্দী হল গহর সনাতন।
শত আয়োজনেও বাদশাহ কি আটকে রাখতে পারে তার নিয়তি! বার বছর বয়সে বিশ্বিং যখন বড় পুত্র গহরকে রাজ্য অধিপতি করলো তখন উজিরের চক্রান্তে গহর আবদার ধরল গীলামাইট বনে শিকারে যাবার। মায়ের আকুতি, স্ত্রী কলাবতীর মিনতি সব এড়িয়ে দ্বিতীয় স্ত্রী সরাবনকে বাবা ও মা এর দায়িত্ব দিয়ে গহর যায় শিকারে। লোভ, ইর্ষা আর ক্ষমতার মোহে উজির এখন পাগলপ্রায় তবে কি রাজ্যে বইবে এখন শোকেরই মাতম বইবে ঝড় নড়বে প্রাসাদ ভাঙ্গবে কি স্বপন উচাটন, তাইতো মায়ের মন আজ বড়ই উচাটন গীলামাইট বনে উজির দল গহরকে ফাঁদে ফেলে রাজ্যে ফিরে আসে। গহর বন্দী হয়

বিশ্বিংদানবের হাতে। বাবার মিতা বলে মৃত্যু gahor-badsha-o-banechaথেকে রেহাই পেলেও বানেসা পরীর প্রেমতীরে বিদ্ধ হয় গহর।

কি অপরুপ দেখলাম একি পরীর রুপের ঝিকিমিকি ঝিকিমিকি ও আমি কোথায় গেলে তারে পাব কোন দেশে তালাশে যাব।
গহর – বানেসার অকৃত্রিম প্রেমে বিশিস্ট দানব হার মানলেও, উজির যে এখন বিশ্বিং রাজ্যের অধিপতি Ñ আμমন করে গহরের জন্য অপেক্ষমান একা বানেসাকে। উজিরের হাত থেকে বাঁচার জন্য বানেসাকে পাড়ি জমাতে হয় পরী রাজ্যে। তোমারে ফেলিয়া বন্ধু গেলাম নিজের দেশে জানি তুমি ঘুরবে এখন পাগলেরই বেশে।  বন্ধু পারলেম না তোমার কথা রাখতে কোথা থেকে এলো মানব আমায় হরণ করতে তোমায় ফেলে ওগো বন্ধু কেমনে থাকব একা পরীর দেশে যেওগো প্রাণ সেথায় পাবে দেখা। পরী প্রেমে বিদগ্ধ গহর পন করে প্রেয়সী বানেসাকে ছাড়া ফিরবেনা নিজ দেশে কিছুতেই। অবশেষে, বহু যুদ্ধ – সংগ্রাম পেরিয়ে এক যুগ পর গহর সন্ধান পায় বানেসার; পৌঁছায় পরীস্থানে। মানব হয়েও পরীস্থানের হাজার হাজার দানবকে করে পরাজিত, জয় করে নেয় গোলেস্তা এরাম শহরের বাদশাহ শাহজাদী বানেসা পরীর বাবার মন । বাদশাহ ফিরোজ মুক্ত করে দেয় নিজ সন্তান বানেসাকে; আদম ভালবাসার অপরাধে যে ছিল এতদিন কারাগারে বন্দী। মুক্ত গহর আর বানেসা পাড়ি জমায় বিশ্বিংরাজ্যের পথে। গীলামাইট বন পেরোনের সময় হঠাৎ ওদের চোখ পরে কালি মাখা হত দরিদ্র এক যুবতীর দিকে। বারো বৎসর হইল বনে  দিল মোরে নির্বাসনে যে করেছে এই অপমান তাহার যেন বিচার হয় অনলে ঝাপিয়া মরব প্রাণেতে আর নাহি সয়।

ঘোর অরণ্যে নবীন জীবন বিসর্জন দেবার মূহুর্তে গহর বাদশাহ বাঁধা দিতে যেয়ে চিনতে পারে তার প্রথম স্ত্রী কলাবতীকে। কলাবতীর কাছ থেকেই জানতে পারে বিশ্বিংরাজ্য এখন উজিরের দখলে। গহর তাই নতুন করে বুদ্ধি আঁটে, বাউল সেজে প্রবেশ করে নিজ রাজ্যে। সত্যের জয় অবধারিত, তাই সকল বাঁধা পেরিয়ে গহর পরিশেষে জয় করে বিশ্বিংরাজ্য।

জয় হয় প্রেমের জয় হয় সত্যের জয় হয় সুন্দরের
——————————————————————————————————–
নির্দেশনা- হৃদি হক, মঞ্চ পরিকল্পনা – সাজু খাদেম, সঙ্গীত ও আবহ সঙ্গীত- কামরুজ্জামান রনি, আলো পরিকল্পনা- ঠান্ডু রায়হান, দ্রব্য সম্ভার- দীপক সরকার ও তরুন
কোরিওগ্রাফি – ওয়ার্দা রিহাব, পোষাক পরিকল্পনা- মাহমদুল হাসান মুকুল, রূপসজ্জা ও কেশ সজ্জা- অরা বিউটি লাউঞ্জ, প্রযোজনা (২০ তম)- নাগরিক নাট্যাঙ্গনbanecha-pori

 

Check Also

নননপুরের মেলায় একজন কমলাসুন্দরী ও একটি বাঘ আসে

মিডিয়া খবরঃ          – সাজেদুর রহমানঃ- হাত ঘড়ির কাটা বলছে ২৮ এপ্রিল …

নাটক পাইচো চোরের কিচ্ছা আজ শিল্পকলার মূল হলে

মিডিয়া খবর :- আজ  সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় ঢাকা পদাতিকের ‘পাইচো চোরের কিচ্ছা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares