Home » মঞ্চ » আজ শিল্পকলায়
lila-boti-a

আজ শিল্পকলায়

Share Button

মিডিয়া খবর:-

আজ ৫ অক্টোবর সন্ধ্যা ৭টা, শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে মঞ্চায়িত হবে  দৃশ্যপটের  নাটক সক্রেটিসের জবানবন্দী। সক্রেটিসকে নিয়ে প্লেটোর লেখা ‘আপোলোগিয়া সোক্রাতুস’ অবলম্বনে শিশিরকুমার দাশের রচনায়  নটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন আলী মাহমুদ। 

নাটকটির কাহিনী খ্রিস্টের জন্মের চার’শ বছর আগের। পেলোপনেসিয় যুদ্ধে এথেন্স পরাজিত হলে রাজ্যের গণতন্ত্র ব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে গেলে এথেন্সের শাসন ও রাজ্য পরিচালনার ভার নেয় তিরিশজন লোক। এই তিরিশজন লোক নিয়ে গড়া হয় স্বৈরতন্ত্র। তার থেকে এগারো জনকে নিয়ে গঠন করা হয় একাদশ পরিষদ। যাদের কাজ ছিল গণতন্ত্রের গলা টিপে ধরা আর গণতন্ত্র সমর্থকদের শাস্তি দেয়া।

স্বৈরাচাররা তাদের সমর্থক হিসেবে সক্রেটিসকে চাইলে, শুরু হয় গণতন্ত্র সমর্থক আর স্বৈরাচারদের লড়াই। প্রহরীরা সক্রেটিস ভেবে বিভিন্নজনকে ধরে আনতে শুরু করলে, একদিন সক্রেটিস নিজেই এসে উপস্থিত হলেন এই একাদশ চক্রের সামনে।

বিভিন্ন বিচারকার্যের পর সক্রেটিসের মৃত্যুদণ্ড ঘোষণা করা হয়। সক্রেটিস দণ্ড মেনে নিয়ে মৃত্যুর জন্য প্রতীক্ষা করেন এবং শেষ পর্যন্ত হেমলক বিষপান করেন।

কিন্তু মৃত্যুর আগে তিনি দিয়ে যান এক দীর্ঘ জবানবন্দী। যেখানে তিনি স্পষ্ট করে বলেছিলেন– ‘তিনি তার বিবেকের দ্বারা চালিত।’

সন্ধ্যা ৭টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর পরীক্ষণ থিয়েটার হলে মঞ্চায়িত হবে লোক নাট্যদলের (সিদ্ধেশরী) নাটক ‘লীলাবতী আখ্যান’। নাসরীন মুস্তাফা রচিত নাটকটির নির্দেশনা দিয়েছেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী।

নাটকের গল্পে দেখা যায়- লীলাবতী সিংহলের ভাগ্যবিড়ম্বিত রাজকন্যা। তার একদিন বয়সের সময় পিতা সিংহলরাজ শত্রুর হাতে পরাজিত এবং নিহত হন। লীলাবতীকে রক্ষা করেন সিংহলের রাজজ্যোতিষী মুঞ্জল।  একদিন মুঞ্জল সাগরে ভেসে আসা একটি তামার পাত্রের মধ্যে ৭ দিন বয়সী শিশুপুত্র মিহিরকে পান। মিহির উজ্জয়িনী রাজা বিক্রমাদিত্যের রাজজ্যোতিষী পণ্ডিত বরাহের ছেলে। ভুল গণনার মধ্য দিয়ে বাবা জানতে পারেন, মিহিরের আয়ু ১২ দিন। তাই পণ্ডিত বরাহ ছেলে মিহিরকে সাত দিন পর তাম্রপাত্রে রেখে ভাসিয়ে দেন সাগরে। এ দুই শিশুসহ মুঞ্জল বন্দী হন। বন্দী অবস্থায় দুর্গের মধ্যে কাটে ১৬ বছর। মুঞ্জল লীলাবতী এবং মিহিরকে জ্যোতিষবিদ্যা শিক্ষা দেন। এরই মধ্যে সূর্যকে সাক্ষী রেখে লীলাবতী এবং মিহির বিবাহসূত্রে আবদ্ধ হন। লীলাবতী তার অসাধারণ গণনার বলে প্রমাণ করেন, শ্বশুরের অনেক গণনা ভুল। লীলাবতীর প্রতিভায় ঈর্ষান্বিত হয়ে ওঠেন বরাহ। নিজ পুত্রকে নির্দেশ দেন লীলাবতীর কণ্ঠ স্তব্ধ করে দিতে তার জিহ্বা কর্তনের। লীলাবতীর মৃত্যু ঘটে। কিন্তু সাধারণ মানুষের মুক্তিদাত্রী হিসেবে সবার স্মৃতিতে ভাস্বর হয়ে থাকেন ‘খনা’ নামে।

‘লীলাবতী আখ্যান একটি নিরীক্ষাধর্মী নাটক। এতে অভিনয় করেছেন লিয়াকত আলী, মাহফুজ হিলালী হ্যাপী, মাসুদ সুমন, আবু বকর বকশী, চন্দ্রশেখর দেবনাথ, রুবেল শঙ্কর প্রমুখ।

শিল্পকলা একাডেমীর স্টুডিও থিয়েটার হলে সন্ধ্যা ৭টায় প্রদর্শিত হবে জ্যোতি নাট্য সম্প্রদায়ের নাটক বুড়ো শালিকের ঘাড়ে রোঁ। 

Check Also

paicho

হাসির নাটক পাইচো চোরের কিচ্ছার ৫০তম প্রদর্শনী

মিডিয়া খবর :- আগামী ১৭ ডিসেম্বর শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল …

Abdul-Hadi

আব্দুল হাদির দেশের গান ‘সেই দেশেতে জন্ম আমার’

মিডিয়া খবর :- দেশের গান গাইলেন বাংলাদেশের সংগীতের কিংবদন্তী অসংখ্য জনপ্রিয় গানের শিল্পী আব্দুল হাদি। গানের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares