Home » প্রোফাইল » বন্ধুরা হারায় না দিলিপদা
dilip chakraborti

বন্ধুরা হারায় না দিলিপদা

Share Button

মিডিয়া খবর:-       -: কাজী শিলা :-

মঞ্চ নাটকের অসামান্য অভিনেতা, দেশ নাটকের সদস্য নাট্যজন দীলিপ চক্রবর্তীর মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১২ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর মাত্র ৩৫ বছর বয়সে ক্ষণজন্মা এই অভিনয় শিল্পী তার নিজ বাসভবনে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ঘুমের মধ্যে মারা যান।  প্রগতিশীল, সংস্কৃতিমনা পরিবারে জন্ম গ্রহন করে বাবার অনুপ্রেরণায় দীলিপ চক্রবর্তী সংস্কৃতি অঙ্গনে পা রাখেন।

১৯৮৯ সালে ঢাকার দেশ নাটকের সাথে যুক্ত হন। থিয়েটারের জন্য নিবেদিতপ্রান, প্রত্যুৎপন্নমতি এই শিল্পী নিজ অভিনয়শৈলী দিয়ে খুব সহজে দর্শকের হৃদয় জয় করে নেন-সুদৃঢ় করেন দলে নিজের অবস্থান। দর্পনে শরৎশশী’র সিতিকন্ঠ, বীরসাকাব্যে’র ইংরেজ, পুরোহিত, নিত্যপুরান এর ইকলব্য, অরক্ষিতা’র শুক্রাচার্য চরিত্রগুলি জীবন্ত হয়ে উঠেছে তার অভিনয় নৈপুন্যে। নিপুন কারিগরের মত সৃষ্টি করেছেন তিনি এক একটি চরিত্র। তারই সাক্ষ্য বহন করে তার লোহা অহর্কন্ডল প্রভৃতি নাটক। তিনি থিয়েটারের জন্য যেমন ছিলেন আপোষহীন তেমনি পেশাদার নাট্যকর্মী হিসেবে নিজেকে তৈরি করতে করেছেন অনেক সংগ্রাম ও। তার সময়কালীন দেশ নাটকের উপস্থাপিত প্রায় সব নাটকে তিনি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তার বলিষ্ঠ পদভারে ঢাকার শিল্পকলা একাডেমীর থিয়েটার মঞ্চ ছিল মুখরিত।

টানা চার বছর মঞ্চে কাজ করার পর মঞ্চ নাটকের পাশাপাশি টিভি নাটকে অভিনয় শুরু করেন। তার উল্লেখযোগ্য নাটকগুলোর মধ্যে রয়েছে দীপংকর দীপনের ‘টেম্পু’, মেজবাউর রহমান সুমনের ‘দখিনের জানালার খোলা আলো আসে ফিরে যায়’, শিহাব শাহিনের ‘মামুলি একটা মানুষ’ সহ আরো বেশ কিছু খন্ড ও ধারাবাহিক নাটক। এছাড়া তিনি নোমান রবিনের ‘কমনজেন্ডার’, বেলাল আহমেদের ‘অনিশ্চিতযাত্রা’ নামে দুটি চলচ্চিত্রে ও অভিনয় করেন। লিখেছেন নাটকের চিত্রনাট্য।

২০০১ সালে মাসুম রেজা পরিচালিত দেশ নাটকের ‘নিত্যপুরান’ এ ইকলব্য চরিত্রে সুঅভিনয় করে তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার পান। ২০০৫ সালে তনুশ্রী পদক পান অভিনয় প্রতিভার স্বীকৃতি হিসেবে।

নিজ এলাকা টাঙ্গাইলে লোকনাট্য নিয়ে কাজ করার স্বপ্ন ছিল তার। টাঙ্গাইলের নিজস্ব লোকনাট্যধারা সঙ তো আছেই। তা ছাড়া কীর্তন, চড়ক পূজা বা ‍শিব গাজনের পালা ইত্যাদি নিয়ে কাজ করার সূদুরপ্রসারী পরিকল্পনা ছিল তার বলে জানান তারই সহকর্মী দেশ নাটকের নাট্যকর্মী অসীম কুমার নট্ট। তিনি জানান “নিজ এলাকায় অত্যন্ত স্নেহভাজন ও শ্রদ্ধার পাত্র ছিলেন দীলিপ চক্রবর্তী। এলাকার প্রতি মমতা এবং থিযেটারের দায়বোধ থেকে সেখানে কাজ করতে আগ্রহী হন। প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে কাজ করতে গিয়েছিলেনও সেখানে। সঙ্গে আমিও ছিলাম। তার সেই স্বপ্নপূরণ হল না।”

স্বপ্ন পুরন হয়নি দীলিপ দা’র। তার সেই স্বপ্ন পুরনের দায় এখন তার বন্ধুদের, সহকর্মীদের। তুমি স্বপ্নের বীজ বুনেছো। সেই বীজ অঙ্কুরিত হবে, ডালপালা মেলে বিরাজ করবে। সেই কাজ করবে তোমার উত্তরসূরী থিয়েটার কর্মীরা। তোমাকে হারিয়ে দেশ নাটক ই শুধু একজন প্রতিশ্রুতিশীল একনিষ্ঠ নাট্যকর্মী কে হারায়নি, আমরা হারিয়েছি একজন থিয়েটারের স্বজনকে। দুরে চলে গেছো তুমি তবু আছো  হৃদয়ে। যেখানেই থাকো শান্তিতে থাকো।

দীলিপ চক্রবর্তী অভিনীত টিভি নাটক

Check Also

jafor iqbal hero

নায়ক জাফর ইকবাল শুভ জন্মদিন

মিডিয়া খবর :- শুভ জন্মদিন আমাদের নায়ক (জাফর ইকবাল). আশির দশকের রূপালি পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা …

থিয়েটারের স্বজন এস এম সোলায়মান

মিডিয়া খবর:-        -: কাজী শিলা :- এস এম সোলায়মান থিয়েটারের আকাশের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র, …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares