Home » নিউজ » নিজাম উদ্দিন ডিগ্রি কলেজে নবীনবরণ

নিজাম উদ্দিন ডিগ্রি কলেজে নবীনবরণ

Share Button

মিডিয়া খবর:-

পুরাতনকে বিদায় দিয়ে নতুনকে বরণ করে নেয়ার রীতি সর্বত্রই। প্রকৃতিতে, মানুষের জীবনে, কর্মক্ষেত্রে, স্কুল কলেজ সবখানে প্রবীনরা জায়গা ছেড়ে দেয় নবীনদের জন্য। কলেজে নতুনদের বরণ করে নেয়ার রীতি দীর্ঘদিনের। ছেলেমেয়েরা স্কুলজীবন শেষ করে যখন কলেজ জীবনে প্রবেশ করে তখন শুরু হয় এক নতুন অধ্যায়। ছাত্রজীবনের নতুন এই চলার পথকে সুন্দর সুগম করার শুভাশিষ দিতেই নবীনবরণ উদযাপিত হয়।

আর এ নবীনবরণ উদযাপিত হল নিজাম উদ্দিন ডিগ্রি কলেজে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেনির ছাএ-ছাএীদের। গতকাল ২ সেপ্টেম্বর বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় নিজাম উদ্দিন ডিগ্রি কলেজ মিলায়তনে নানান আয়োজনে কলেজের একাদশ শ্রেণীর নবীন শিক্ষার্থীদের বরণ করে নেয়া হয়েছে।

জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্যে দিয়ে অনুষ্ঠান শুরু করা হয়। অনুষ্ঠানে একাদশ শ্রেণীর শিক্ষার্থরিা প্রধান অতিথিকে ফুল দিয়ে বরণ করেন এবং অধ্যক্ষের পক্ষ থেকে নবীনদেরকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়। বাবু প্রদীপ কুমার নাগ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে অতিথি বিন্দু উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন কলেজের অধ্যক্ষ অসীম কুমার সিকদার, সাংবাদিক এবং আরো অনেকে।  

অনুষ্ঠানে রুহুল আমিন ভুইয়া বলেন “প্রকৃতির আমন্ত্রণে বৃষ্টিস্নাত স্নিগ্ধ ধরনী যখন পুষ্প সৌরভে প্রবাহিত, দখিনা সমীরনে বিস্তীর্ণ শস্যক্ষেত যখন ঢেউ খেলে উদভ্রান্ত পথিকের ন্যায়, বনজবৃক্ষে আঙ্কুরিত হয় নব কিশালয়, ঝাউ শাখে পাখি ডাকে, বাজে নূপুরের নিক্বন, ঠিক তখনই তোমাদের আগমনী বার্তা অনুরণিত করে ঐতিহ্যবাহী নিজাম উদ্দিন ডিগ্রি কলেজের সবুজ গালিচা।

অনুষ্ঠানে বক্তরা আরো বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার পাশাপাশি নৈতিক শিক্ষাগ্রহণের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছতে হবে। সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারলেই একজন মানুষ নৈতিকতা সম্পর্কে সচেতন হবে। শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রগতিশীল সংগঠনের সাথে জড়িত হয়ে দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করার আহ্বান জানান বক্তারা। অনুষ্ঠান শেষে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

Check Also

জাজের ‘বেপ‌রোয়া’ ছবির শু‌টিং বন্ধ

মিডিয়া খবর :- ওয়ার্ক পারমিট না থাকায় ছবির শুটিং না করেই ফিরে যেতে হয়েছে ভারতীয় …

চিত্রায় নৌকাবাইচ

মিডিয়া খবর :- সুলতান বেঁচে থাকতেও তার জন্মদিন উপলক্ষে চিত্রা নদীতে চলতো নৌকাবাইচ। প্রায় ২৭ বছর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares