Home » প্রোফাইল » অভিনয় ছাড়ছেন না নায়করাজ রাজ্জাক

অভিনয় ছাড়ছেন না নায়করাজ রাজ্জাক

Share Button

মিডিয়া খবর:-

শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে হঠাৎ করে হাসপাতালে যেতে হয় অভিনেতা নায়করাজ রাজ্জাককে । চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন তিনি। শারীরিক অসুস্থতার জন্য গত তিন বছর ধরেই চিকিৎসকের নিয়মিত তত্ত্বাবধানে থাকতে হচ্ছে তাকে। হাসপাতালে থাকার সময়ে হঠাৎ করেই খবর ছড়াল, রাজ্জাক আর অভিনয় করবেন না।

রাজ্জাক জানালেন ভিন্ন কথা। তার কথা হল— ‘অভিনয় কেন ছাড়ব! অভিনয় ছাড়ার প্রশ্নই আসে না। আমি ছিলাম, আমি আছি, আমি থাকব। অভিনয়ের কারণেই কিন্তু দেশের মানুষ আমাকে ভালোবেসেছেন, আজকের রাজ্জাক বানিয়েছেন। অভিনয় আমার শরীরের প্রতিটি রক্ত কণার সঙ্গে মিশে আছে। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত অভিনয় ছাড়ার কোনো চিন্তা করাও আমার পক্ষে সম্ভব না। আমৃত্যু আমাকে চলচ্চিত্রের সঙ্গেই থাকতে হবে।’

অভিনয় না ছাড়লেও চিকিৎসকের পরামর্শে আপাতত অভিনয় থেকে দূরে আছেন রাজ্জাক। আরও মাস দু-এক পূর্ণাঙ্গ বিশ্রামে থাকতে হবে তাঁকে। রাজ্জাক জানান, ‘বলতে পারেন, এখন আমি অনেকটাই সুস্থ। একা একাই চলাফেরা করি। মন চাইলে গাড়ি নিয়ে ঘুরতে বেরিয়ে পড়ি। নাতি-নাতনিদের নিয়ে কেটে যায় অনেকটা সময়। এ আনন্দ একেবারেই অন্যরকম। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী চলছি। হাসপাতাল থেকে বাসায় ফেরার পর শুরুর দিকে অনেকগুলো ওষুধ খেতে হতো, এখন ওষুধ খাওয়ার পরিমাণও কমে গেছে। বেশ কিছুদিন ধরে আমি কিন্তু ধূমপান ছেড়ে দিয়েছি। শুধু তাই নয়, এমনকি যারা ধূমপান করে তাদের আশপাশেও যাই না।’

শুধু দর্শকের কাছ থেকে নয়, দীর্ঘ চলচ্চিত্রজীবনে সহশিল্পীদের কাছ থেকেও ভালোবাসা, সহযোগিতা পেয়েছেন ‘নায়করাজ’। আর তা কোনো দিন ভোলার নয় বলেও জানান তিনি। রাজ্জাক বলেন, ‘এ দেশের মানুষ নির্দ্বিধায়, নিঃশঙ্কচিত্তে আমাকে বছরের পর বছর ধরে যে ভালোবাসা দিয়ে গেছেন, তা আমার সবচেয়ে বড় পাওয়া। আমার মতো একজন সাধারণ নায়ককে তাঁরা “নায়করাজ” বানিয়েছেন। তাঁদের প্রতি সম্মান রেখেই আমি কাজ করি। আমি ভাগ্যবান শিল্পী। ভাগ্যবান নায়ক। পাঁচটি প্রজন্মকে ৭৩ বছরের জীবনে বিনোদন দিয়ে আসতে পারছি। মাঝে মাঝে নিজেকে তৃপ্ত মনে হয়। ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে একটা দেশের মানুষের মনের মণিকোঠায় থাকা সহজ কথা নয়।’

১৯৪২ সালের ২৩ জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন বাংলা চলচ্চিত্রের এই গুণী অভিনয়শিল্পী। শুধু নায়ক হিসেবেই নয়, পরিচালক হিসেবেও তিনি সফল। সর্বশেষ ‘আয়না কাহিনি’ ছবিটি নির্মাণ করেছেন রাজ্জাক। নায়ক হিসেবে প্রথম অভিনয় করেন জহির রায়হান পরিচালিত ‘বেহুলা’ ছবিতে। এতে তাঁর বিপরীতে ছিলেন সুচন্দা।

রাজ্জাক প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন ‘কি যে করি’ ছবিতে অভিনয় করে। এরপর আরও চারবার তিনি জাতীয় সম্মাননা পেয়েছেন। ২০১১ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের আজীবন সম্মাননা অর্জন করেন। এ ছাড়া, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস) পুরস্কার পেয়েছেন অসংখ্যবার।

 

Check Also

nirob, labonya

বিয়ে করছেন নীরব-লাবণ্য

মিডিয়া খবর:- আগামী ২৮ অক্টোবর বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হতে যাচ্ছেন শ্রোতাপ্রিয় আরজে-টিভি উপস্থাপক নীরব এবং …

jafor iqbal hero

নায়ক জাফর ইকবাল শুভ জন্মদিন

মিডিয়া খবর :- শুভ জন্মদিন আমাদের নায়ক (জাফর ইকবাল). আশির দশকের রূপালি পর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares