Home » ইভেন্ট » মানুষের আসল সৌন্দর্য তার মনে- শানু
shanu2

মানুষের আসল সৌন্দর্য তার মনে- শানু

Share Button

ঢাকা, ১৭ মে :-

(মিডিয়াখবরডটকমের সাথে একান্ত সাক্ষাৎকারে লাক্স সুপারস্টার শানারেই দেবী শানু)

মিডিয়াখবর:  প্রথমেই জানতে চাই সাংস্কৃতিক অঙ্গণে আপনার শুরুটা কিভাবে হয়েছিল?

শানুঃ  আমি সিলেটের মেয়ে। নাচ করতাম, গান করতাম, একটা সময় থিয়েটার করতাম। আমার থিয়েটার দলের নাম দর্পন থিয়েটার।বাংলাদেশ বেতারে তলিকাভুক্ত অভিনয় শিল্পী ছিলাম। মোট কথা সিলেটের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সাথে আমি ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলাম।

মি:খঃ  লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতায় আসার পেছনের গল্পটা জানতে চাই?

শানুঃ  অভিনেত্রী হব এই স্বপ্নটা সবসময় আমাকে তাড়িয়ে বেড়িয়েছে। সেই সুবাদে আমার থিয়েটারে জয়েন করা। ২০০৫ সালে লাক্স চ্যানেল আই সুপারস্টার “রূপসী তোমার গুনের খোঁজে”র প্রমোশনাল চলছিল। আমি নিজেকে রুপসী ভাবি না, তবে নিজের গুন নিয়ে একটা কনফিডেন্স ছিল। সেই জায়গা থেকে আমি ফ্যামিলিকে না জানিয়ে ছবি পাঠাই। এরপর আস্তে আস্তে স্টেপ বাই স্টেপ সিলেক্টেড হতে হতে আমি চলে গেলাম টপ টেনে। এর পরতো আমার বাবা মা ভাই বন্ধুবান্ধব আশেপাশের সবাই আমাকে সাপোর্ট দিয়েছে, আমি আমার বন্ধুবান্ধব ও সারা সিলেটবাসীর কাছে কৃতজ্ঞ।

মি:খঃ  প্রতি বছর এইযে লাক্স সুন্দরী প্রতিযোগীতা হয়, আপনি কি মনে করেন? কেন একটা মেয়ে এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করবে বা করতে চায়?

শানুঃ  একটা স্বপ্নের জায়গা তো অবশ্যই আছে। যে মেয়েটি স্বপ্ন দেখে নিজেকে একজন মডেল হিসেবে, একজন অভিনেত্রী হিসেবে, একজন তারকা হিসেবে তারাই মুলত: লাক্স সুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করে। একটি মেয়ের জন্য লাক্স একটি বিশাল বড় প্লাটফর্ম। একটা মেয়েকে বদলে দেয় লাক্স। আর সে সেলিব্রেটি হয়ে ওঠে। তারই ফসল আজ আমি লাক্স সুপার ২০০৫ এর বিজয়ী হিসেবে খ্যাতিটা পেয়েছি।

মি:খঃ  লাক্স একটা তারকা খ্যাতি এনে দিয়েছে, কিন্তু তারপর মিডিয়াতে নিজের অবস্থান সুদৃঢ় করতে কিভাবে নিজেকে প্রস্তুত করেছেন?

শানুঃ খ্যাতি এনে দিয়েছে ঠিক, কিন্তু সুপারস্টার হিসেবে নিজেকে তৈরি করার ব্যাপারটা ভিন্ন। আমি কিন্তু নিজেকে একজন অভিনেত্রী হিসেবে দেখতে চেয়েছি, শিল্পী হতে চেয়েছি। সেক্ষেত্রে নিজেকে তৈরি করার বিষয়টা সবসময় ছিল, এখনও আছে এবং সবসময় থাকবে। শেখারতো কোন শেষ নেই, প্রতিটা মুহুর্ত শিখছি। প্রতিটা সেটে সহ অভিনেতাদের কাছ থেকে শিখি, আর এই ‍শিক্ষাটায় আমাকে প্রতিনিয়ত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। সুপারস্টার হিসেবে শুধু নয়, একজন অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে তৈরির প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

মি:খঃ  লাক্স সুপারস্টারের টপ টেনে যখন এসেছিলেন তখনকার অভিজ্ঞতাটা কেমন হয়েছিল?

শানুঃ  সেই অভিজ্ঞতাটা আমার জীবনে অন্যতম একটা অভিজ্ঞতা। লাক্সের ক্যাম্পে আপনজন ছেড়ে এত দুরে এসে তিন মাস থাকাটা শুধুমাত্র আমার জীবনে নয়, অনেক মেয়েরই জীবনের প্রথম অভিজ্ঞতা। অনেকেই কান্নাকাটি করতো। আমারও খুব মন খারাপ হত। সম্ভাবত: সেমিফাইনাল রাউন্ডে একটা ভিডিও ফুটেজ দেখানো হচ্ছিল, আমাদেরকে না জানিয়ে আমাদের বাবা, মা, ভাই, বন্ধুবান্ধব সবাই আমাদেরকে উইশ করছিল। যখন আমাদেরকে ফুটেজটি দেখানো হল-অপ্রত্যাশিতভাবে সবাইকে উইশ করতে দেখে আমি আবেগ আপ্লুত হয়ে গিয়েছিলাম। লাক্সের এই ক্যাম্পটা আমাদেরকে অনেক কিছু শিখিয়েছে। একজন স্টার হিসেবে কিভাবে মিডিয়াতে চলতে হবে, একজন অভিনেতা হিসেবে কিভাবে অভিনয় করতে হবে, একজন মানুষ হিসেবে নিজেকে কিভাবে মেইনটেইন করতে হবে। নিয়মানুবর্তিতা, সময়ানুবর্তিতা, অধ্যাবসায় সবকিছু শিখিয়েছে।

মি:খঃ  এবার একটা অন্য প্রসঙ্গ জানতে চাইবো। সৌন্দর্য চর্চা এবং ফ্যাশন সচেতনতা একটা মেয়ের ক্ষেত্রে কতখানি গুরুত্বপূর্ন?

শানুঃ  অবশ্যই ‍বিষয়টা গুরুত্বপূর্ন। একজন মেয়ে হিসেবে শুধু নয়, একজন মানুষ হিসেবেও। কারন সৌন্দর্যচর্চা ও ফ্যাশন সচেতনতা একজন মানুষের ব্যক্তিত্বের বহি:প্রকাশ ঘটায়। তাতে রুচিবোধের প্রকাশ পায়।আর সে যদি সেলিব্রেটি হয়, তাহলে তো তাকে অনস্ক্রিন অফস্ক্রিন সবখানেই সচেতন হতে হবে।যদিও ব্যক্তিগতভাবে আমি একজন সাধারন মানুষ। খুব বেশি ফ্যাশন সচেতন নই, আর সৌন্দর্যচর্চায় নিজেকে ডুবিয়েও রাখিনা। তারপরও বলবো নিজেকে পরিপাটি রাখাটা জরুরী।আমি একটা কথা বিশ্বাস করি, মানুষের আসল সৌন্দর্য তার মনে।কোন মানুষ যদি মন থেকে সুন্দর হয়, তাহলে বাহ্যিকভাবে তার সৌন্দর্যের বহি:প্রকাশ ঘটবেই।

মি:খঃ  বর্তমানে কি নিয়ে ব্যস্ত আছেন?

শানুঃ  মাঝখানে আমি অনেকদিন ছিলাম না। একটা দীর্ঘ বিরতিতে গিয়েছিলাম। বিয়ে করেছি, আমার একটা ফুটফুটে ছেলে সন্তান আছে ওদের নিয়ে ব্যস্ত ছিলাম। বর্তমানে অনেকগুলো ধারাবাহিক নাটক নিয়ে ব্যাস্ত আছি। মানিক মানবিকের কাম টু দ্যা পয়েন্ট, মন্তাজুর রহমান আকবরের একটা ডেইলি সোপ, জি এম সৈকত, অরন্য আনোয়ার, শহীদুজ্জামান সেলিম অনেক ডিরেক্টরের সাথে কাজ করছি।

মি:খঃ  টেলিভিশনে অনেক নাটক হচ্ছে এখন। আপনার কাছে জানতে চাইবো, বর্তমানে নাটকের অবস্থান কি?

শানুঃ  আগে নাটকের ধরণ ছিলো একরকম। একঘন্টার নাটক, ধারাবাহিক নাটক। আর এখন ডেইলি সোপ, মেগা সিরিয়াল, এক ঘন্টার নাটক হয় বিশেষ বিশেষ দিনে। এখন কাজ বেশি হচ্ছে কিন্তু কাজের কোয়ালিটিটা কিছু কিছু জায়গায় মেইনটেইন হচ্ছে না। আজ একটা ডেইলি সোপ এ কাজ করছিতো কাল আরেকটা ডেইলি সোপ এ কাজ করছি। কোয়ালিটির জায়গায় অনেক সময় কম্প্রোমাইজ করছি। অনেক সময় ডিরেক্টর একটু খারাপ শটও ওকে করছেন তাড়াহুড়ার কারণে। তবে শিল্পী হিসেবে আমি মনে করি কোয়ালিটি মেইনটেইন করা উচিত।আমাদের নিজেদের স্বার্থে, আমাদের দেশীয় নাটককে বাঁচিয়ে রাখার স্বার্থে সবাইকে একজোট হয়ে কাজ করতে হবে।

মি:খঃ  ভবিষ্যতের শানারেই দেবী শানুকে কোন অবস্থানে দেখতে চান?

শানুঃ  শানু নিজেকে একজন অভিনেত্রী হিসেবে দেখতে চেয়েছে সবসময়। একজন ভালো অভিনেত্রী হিসেবে।আমি কোন অবস্থানে আছি জানি না, দর্শকরাই বিচার করতে পারবেন। তবে আমি নিজের পরিচয় একজন অভিনেত্রী হিসেবে দিতে চাই। পাশাপাশি একজন ভালো মানুষ হিসেবে, একজন ভালো মা হিসেবে সবার কাছে গ্রহনযোগ্যতা পেতে চাই।

Check Also

pitha-660x330

শীতের পিঠা ছাড়া শীত যেন পূর্ণতা পায় না

মিডিয়া খবরঃ-      : সাজেদুর রহমান:- হলুদ পাতা চিঠি লেখে হাড়গিলাদের বাড়ি, আমার পাতা …

faria-sahrin-irfan-sazzad

ফারিয়ার বাকরখানি প্রেম

মিডিয়া খবর:- ফারিয়া শাহরিন অভিনয় ছেড়ে গত বছরের শুরুর দিকে দুই বছরের জন্য মিডিয়া মার্কেটিং …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares