Home » মঞ্চ » আবারও শিল্পকলায় ‘বন মানুষ’
bon-manush

আবারও শিল্পকলায় ‘বন মানুষ’

Share Button

মিডিয়া খবর:-

প্রাচ্যনাট মঞ্চে নিয়ে আসছে ‘বন মানুষ’ নাটকটি। ৩ আগস্ট বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে এ নাটকটি মঞ্চস্থ হবে। ইউজিন  ও নিলের দ্য হেয়ারি এপ অবলম্বনে নাটকটি নির্দেশনা দিয়েছেন তরুণ নির্দেশক ও অভিনেতা বাকার বকুল। এটি প্রাচ্যনাটের ২৭তম প্রযোজনা।

নাটক প্রসঙ্গে বাকার বকুল জানান- নাটকটি নির্দেশনা দিতে গিয়ে আমার মনে হয়েছে- ‘এ জাহাজটা যেন জাহাজ নয়, একটি পৃথিবী। যে পৃথিবীতে শ্রেণী বৈষম্য বেড়েই চলেছে। এমন সীমাহীনতায় পৌঁছেছে, যেখানে দিনমজুর মানুষগুলোকে উপরতলার মানুষেরা অসভ্য জানোয়ার মনে করছে। প্রশ্ন আসে- চুল্লিতে কয়লা দিয়ে জাহাজের ইঞ্জিনটাকে সচল রাখছে কারা? এই নাটকের মূল চরিত্র ইয়াংকের তীব্র বেদনাবোধ ও ক্ষোভের মধ্য দিয়ে পৃথিবীর লাঞ্ছিত নিপীড়ত মানুষের আর্ত হাহাকার ও ক্ষোভ ফুসে উঠেছে।’

নাটকের গল্পে প্রসঙ্গে তিনি জানান, জাহাজের খোলের ভেতর দাঁড়িয়ে ইঞ্জিনের চুল্লিতে কয়লা ভরে কয়েকজন শ্রমিক। তাদেরই অন্যতম হচ্ছে- ইয়াংক। দেখতে প্রায় বন মানুষের মতো। কালিকুলি মাখা অবস্থায় তাকে আরো বন্য মনে হয়। মিলড্রেড ডগলাস, পুঁজিপতির আদুরের কন্যা, যে পুঁজিপতি আবার এ জাহাজের পরিচালক মন্ডলীর অন্যতম। ডগলাস এ জাহাজের যাত্রী। সে একবার জাহাজের খোলো নেমে ইয়াংককে দেখে ভয়ে চিৎকার দেয়। ইয়াংক যখন বুঝতে পারে যে তাকে উপলক্ষ করেই এই চিৎকার, তখন তীব্র একটা ঘৃণাবোধ জন্ম নেয় তার মধ্যে।

ডগলাসকে কেন্দ্র করেই সারা দুনিয়ায় পুঁজিপতিদের ঘৃণা করতে থাকে সে। ভাঙতে চায় পুঁজিপতিদের ‘স্বর্গ’ তুল্য প্রাসাদ। জাহাজ বন্দরে ভিড়লে সে শহরে ঘুরতে বের হয় তার এক সঙ্গীকে নিয়ে। শহরের জৌলুস ও উচ্চবিত্তের জাঁকজমক তাকে ক্ষিপ্ত করে তোলে। নানারকম পাগলামি প্রকাশ পায় তার মধ্যে। শেষে সে জেলে প্রেরিত হয়। জেল থেকে পালিয়ে সে সরাসরি চিড়িয়াখানায় বন মানুষের খাঁচার কাছে গিয়ে জন্তুটাকে ডাক দেয়। তার নিজের সাথে হাত মেলানোর জন্য। শেষে বনমানুষের আক্রমনে নিহত হয় ইয়াংক।

নাটকের বিভন্ন চরিত্র রূপায়ন করবেন- শশাংক সাহা, তৌফিকুল ইসলাম ইমন, সাদিকা স্বর্ণা, আজাহার উদ্দিন রিয়াজ, সোহেল মণ্ডল, এবিএস জেম, সোহেল রানা, রুহুল আমিন, চেতনা রহমান ভাষা, হাসনাত রিপন, আরিফ রেজা খান, শাহরিয়ার রানা জুয়েল, ফুয়াদ, নাইমি নাফসীন মুস্তাফা, শাফিন আহমেদ, মাসুদ রানা প্রমুখ।

নাটকটির কোরিওগ্রাফী করেছেন- পারভিন সুলতানা কলি, মঞ্চ ও আলোক পরিকল্পনা করেছেন- এ. বি. এস জেম এবং সংগীত পরিকল্পনা করেছেন নোবেল।

Check Also

paicho

হাসির নাটক পাইচো চোরের কিচ্ছার ৫০তম প্রদর্শনী

মিডিয়া খবর :- আগামী ১৭ ডিসেম্বর শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল …

Abdul-Hadi

আব্দুল হাদির দেশের গান ‘সেই দেশেতে জন্ম আমার’

মিডিয়া খবর :- দেশের গান গাইলেন বাংলাদেশের সংগীতের কিংবদন্তী অসংখ্য জনপ্রিয় গানের শিল্পী আব্দুল হাদি। গানের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares