Home » ইভেন্ট » অনন্য মামুনকে নিয়ে ফেসবুকে ঝড়
ananyad-9

অনন্য মামুনকে নিয়ে ফেসবুকে ঝড়

Share Button

অনন্য মামুনকে নিয়ে ফেসবুকে ঝড়

ঢাকা, ১৪ মে:-

অনন্য মামুন। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রাঙ্গনের এই মুহুর্তে সবচেয়ে আলোচিত সমালোচিত নাম। তার ‘আমি শুধু চেয়েছি তোমায়’ ছবিটি নিয়ে চলছে বির্তকের ঝড়। যৌথভাবেপ্রযোজনার ছবি হলেও এখানে বাংলাদেশকে উপেক্ষা করা হয়েছে, মিথ্যা আর ছলচাতুরীর আশ্রয় নেবার কথা উঠেছে তার বিরূদ্ধে। সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে তিনি দায়সারা ভাবে আত্বপক্ষ সমর্থন করেছেন। এই ছবি নিয়ে কাকরাইল ফিল্ম পাড়াসহ দেশের গোটা চলচ্চিত্রাঙ্গনে চলছে আলোচনা-সমালোচনার ঝড়। কারন ছবিটির বাংলাদেশের পোস্টারে অনন্য মামুনের নাম পরিচালক হিসেবে থাকলেও কলকাতার পত্র-পত্রিকায় কোথাও তার নাম নেই। এইছাড়া ছবিটির মূল নায়ক নায়িকার সবাই কলকাতার। বেশিরভাগ মানুষ বলছে যৌথ প্রযোজনার নামে এটি বাংলাদেশে ভারতীয় ছবি চালানোর একটি অপপ্রয়াস।

এক সাক্ষাতকারে অদ্ভুত কিছু যুক্তি দিয়েছেন অনন্য মামুন। ফেসবুকেএগুলোরকড়াজবাব পোস্ট করেছেন অন্তর রায় নামে একজন টিভি নাটক নির্মাতা এবং মিডিয়া কর্মী তির্থক আহসান রুবেল। পাঠকদের উদ্দেশে তারে পোস্টের কিছু অংশ তুলে ধরা হল।

. তির্থক আহসান রুবেল-

অনন্য মামুনের সাক্ষাৎকার এবং প্রতি উত্তর:

অনন্য মামুনের শেষ কথাগুলোতে কষ্ট পেলাম। সন্তানের মৃত্যু অবশ্যই এতটা কষ্টকর যে ভাষায় প্রকাশ করা সম্ভব না। আশা রাখছি সে শোক কাটিয়ে সামনে এগোবেন তিনি। যদিও এ শোক সারা জীবনের।
সিনেমা প্রসঙ্গে আসি:
১. ভারতের পোস্টার বা ট্রেইলারে মামুনকে বলা হচ্ছে সহ: পরিচালক। অথচ একজন পরিচালক হিসেবে তার কোন প্রতিবাদ নাই। এই ব্যপারে তার যুক্তি লজ্জাজনক।
২. যৌথ প্রযোজনার সিনেমায় একটা দেশের কোন আর্টিস্ট না থাকলেও সেটা যৌথ প্রযোজনাই হবে। কাজেই অনন্য মামুন অত্যন্ত দূর্বলতার পরিচয় দিয়ে ‘মনের মানুষ’ সিনেমার রেফারেন্স দিয়ে জানতে চান কেন ‘গৌতম ঘোষ’ একা করেছিল পরিচালনা!!!! যৌথ প্রযোজনা মানে যৌথ বিনিয়োগ। যৌথ ডিরেকশন বা যৌথ আর্টিস্টের অংশগ্রহণ নয়।
৩. সরকারের অনুমতি সাপেক্ষে যে কোন দেশেরই মানুষ আরেক দেশে সুটিং করতে পারে। কাজেই বাংলাদেশে তারা এসে সুটিং করে গেছে, এটা কোনভাবেই প্রমাণ করে না যে, এটা যৌথ প্রযোজনার সিনেমা। আমাদের দেশ থেকে সিঙ্গাপুর-মালেয়শিয়া যায় সিনেমার সুটিং এ….. আমরা নিশ্চয়ই বলবনা যে, তাদের সাথে যৌথ প্রযোজনা। আবার ভারতের পরিচালকরা ‘চট্টগ্রাম’ বা ‘বুনোহাস’ সিনেমার সুটিং করে গেছে। সেটাও নিশ্চয়ই যৌথ প্রযোজনা না।
৪. সিনেমা ভাল হয়েছে, হিট হবে… তাই হয়ত এফডিসির অনেকে চায় না যে সিনেমাটি চলুক। কথা শতভাগ সত্য। কিন্তু আমরা কেন চাইনা!!! কারণ, সিনেমাটি নিয়ে ধুম্রজাল তারা নিজেরাই তৈরি করেছে। হয় মামুন আমাদের সাথে প্রতারণা করেছে নিজেকে পরিচালক ঘোষণা করে, অথবা এসকে মামুনের সাথে। ২য়টা হলে মামুনের প্রতিবাদ করা উচিত ছিল। কিন্তু মামুন তা করেনি। আবার সহ: পরিচালক তো সুটিংএ থাকবেই। কাজেই বরফের মাঝে সুটিং এ একজন সহ: হিসেবে তিনি থাকবেন এবং কাজের কথা ফেসবুকে লিখবেন এটাই স্বাভাবিক।

** কাজেই এখন পর্যন্ত আমি বলবো, এটা প্রতারণা। নির্ভেজাল মিথ্যাচার। ধারণা করছি, মামুন শুধুমাত্র একজন কমিশন এজেন্ট। কিন্তু বাণিজ্যের কথা চিন্তা করে, তাকে এইসব টাইটেল দেয়া হয়েছে। কারণ তারা ব্যবসা করে টাকাটা নিয়ে যাবে….. কোথাকার কোন মামুনে তাদের কিছু যায় আসবে না। কিন্তু, আমরা আমাদের একজন প্রতিভাবান নির্মাতার দায়বোধ এবং সততার দূর্বলতার দরুণ আজীবন গালি দিয়ে যাবো…………

 

এবার আরেকটি পোস্ট

২. অন্তর রায়-      অদ্ভুত কিছু যুক্তি অনন্য মামুনের!

* শাকিব কি আমাকে টানা তিনমাস সময় দিবে? তাই ভারতের নায়ক নিয়েই যৌথ প্রযোজনার ছবি করেছি।
* এত দেশপ্রেমিক এখন কোথা থেকে আসল? এতদিন কোথায় ছিল?
* ভারতে ছবির পোস্টারে ‘এ্যাকশন কাট এন্টারটেনমেন্ট’ এর লোগো ব্যবহার করা হয়নি কারন, তাতে ২৫% ট্যাক্স দিতে হতো।
* ভারতের পোস্টারে নিচে ছোট অক্ষরে অনন্য মামুনের নাম আছে তো। সহ-পরিচালক হিসেবে!
* সরকার আমাকে বাধ্য করেছে ৯ মে সিনেমাটিমুক্তিদিতে।
* আপনারা সবাই আগে দেখেন, সিনেমায় নায়িকা বাংলাদেশের মেয়ে দেখানো হয়েছে, বাংলাদেশকে নিয়ে সিনেমায় একটি গানও আছে, অসংখ্যবার ‘বাংলাদেশ’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে।
* ‘এ্যাকশনকাটএন্টারটেনমেন্ট’ যৌথভাবেপ্রযোজনাকরেছে “আমিশুধুচেয়েছিতোমায়” সিনেমাতে।

– শাকিব বাংলাদেশের একনাম্বার হিরো, তার সাথে অঙ্কুশের তুলনা করলে চলবে? দেব-জিৎ হলে না হয় কথা ছিল।
– দেশ প্রেমিকরা তখনো ছিল, আছে, থাকবে। কারন  এর আগে এই ধরনের জুচ্চরি করে কোন সিনেমা যৌথ প্রযোজনার নামে বাংলাদেশে মুক্তি দেয়া হয় নাই।
– ব্যবসা করবেন, অথচ ট্যাক্স কেন দিবেন না? আজব তো! এটাতো আরেকটা অপরাধ! তার মানে ভারতের সরকার এবং ভারতীয়রা জানেইনা, এটা যৌথ প্রযোজনার ছবি!
– পরিচালক আর সহ-পরিচালকের পার্থক্য নিশ্চয়ই আপনি ভাল করে জানেন? আগে ঠিক করেন, আপনি সিনেমায় কি? পরিচালক না কি সহ-পরিচালক। তারপর দুটোতেই সেটাই ব্যবহার করেন।
– সরকার বাধ্য করেনি ৯মে মুক্তি দিতে। মৌখিকভাবে নির্দেশ দেয়া হয়েছে যেন ১৬ তারিখে মুক্তি দেয়া যাবে না। আপনি পরেও দিতে পারতেন।
– বাংলাদেশের একটি সিনেমায় নায়িকার চরিত্র যদি থাকে কলকাতার মেয়ে। সেই সিনেমাতে কলকাতা নিয়ে একটি, না দুটি গানও থাকবে, এবং ৫০০ বার কলকাতা বা ভারত ভারত উচ্চারণ করা হবে। শুধু এর জন্যই কি সেই ছবিটি যৌথ প্রযোজনার ব্যানারে ভারতে মুক্তি দিবে ভারতীয় সরকার?
– এ্যাকশন কাটের কর্ণধার অনন্য মামুন। আর “আমি শুধু চেয়েছি তোমার” সিনেমার বাজেট ভারতীয় রুপিতে চারকোটি রুপি। যা বাংলাদেশের টাকায় পাঁচ কোটির বেশী। তার মানে অনন্য মামুন আড়াই কোটি টাকা ইনভেস্ট করেছে? এত টাকার উৎস কি? ট্যাক্স ঠিক মতো দেয়া হচ্ছে তো? আয়কর বিভাগের দৃষ্টি আকর্ষন করা হলো।

 

Check Also

nuru miah o tar beauty driver

নুরু মিয়া ও তার বিউটি ড্রাইভার

মিডিয়া খবর :- গত ২৪ জানুয়ারি কোনও কর্তন ছাড়াই বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের ছাড়পত্র পায় …

tanha, shuva

ভাল থেকো চলচিত্রের পোস্টার প্রকাশ

মিডিয়া খবর:- প্রকাশ হল জাকির হোসেন রাজুর নির্মিতব্য চলচিত্রের পোস্টার। জাকির হোসেন রাজুর নির্মাণে আসছে নতুন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares