Home » মঞ্চ » শিল্পকলা একাডেমীর পরীক্ষণ থিয়েটার হলে গুপী গাইন বাঘা বাইন
gupi-gain-bagha-bain

শিল্পকলা একাডেমীর পরীক্ষণ থিয়েটার হলে গুপী গাইন বাঘা বাইন

Share Button

মিডিয়া খবর:-

আজ ৭ই জুলাই, সন্ধ্যা ৭টা ৩০ মিনিটে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর পরীক্ষণ থিয়েটার হলে প্রাচ্যনাট স্কুল অভ্ অ্যাকটিং এন্ড ডিজাইন-এর ২৮তম ব্যাচের শিক্ষার্থীরা তাদের সনদপত্র বিতরণ অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন নাট্য ব্যক্তিত্ব গোলাম সারোয়ারও চলচ্চিত্র পরিচালক মোরশেদুল ইসলাম। এই ব্যাচের শিক্ষার্থীরা সমাপনী প্রযোজনা হিসেবে সত্যজিৎ রায়ের চিত্রনাট্য অবলম্বনে ‘গুপী গাইন বাঘা বাইন’ নাটক উপস্থাপন করবে। নাটকটির নির্দেশনায় রয়েছেন শাহরিয়ার ফেরদৌস সজীব। আপনার সবান্ধব উপস্থিতি প্রাচ্যনাট স্কুল এবং এর শিক্ষার্থীদেও জন্য অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে। নাটক ছাড়াও মিলনায়তনের বাইরে রয়েছে উন্মুক্ত পোস্টার প্রদর্শনী।

কাহিনী সংক্ষেপঃ আমলকি গ্রামের সাদাসিধে ছেলে গোপীনাথ। তার গান গাইবার অনেক আগ্রহ। গ্রামের বয়স্করা মজা করে পরামর্শ দেয় রাজার বাড়ীর সামনে গিয়ে গান শুনিয়ে আসতে। অতি উৎসাহী গুপী গান শোনাতে যায় রাজার বাড়ী, অপমানিত হয়ে ফিরে আসতে হয় তাকে। উত্তরকুট গ্রামের ছেলে বাঘা নাথেরও কপাল একই রকম। তার আবার ঢোল বাজানোর শখ। কিন্তু বাঘার প্রলয় বাদন শুনে গ্রামের লোকেরা তাকেও বের করে দেয়। এই ভাগ্যাহত মানুষ দুটির দেখা হয় গ্রামের বাইরে অনেক দূরের বনে। রাতের বেলা তারা দেখা পায় ভূতের রাজার। ভূতের রাজা গুপী-বাঘার গান শুনে খুশি হয়ে তিনটি বর দিয়ে তাদের জীবন পাল্টে দেন।

শুন্ডি নামক এক রাজ্যে চলছে গানের প্রতিযোগিতা। গুপী-বাঘাও ছুটে যায় শুন্ডি রাজ্যে, গীতবাদনে তারা মন জয় করে শুন্ডি রাজার। তারা জানতে পারে এক মহামারীর প্রভাবে সমস্ত রাজ্যের মানুষ তাদের বাকশক্তি হারিয়ে ফেলেছে। হঠাৎই দূরের রাজ্য হাল্লা থেকে আসে যুদ্ধের ফরমান। তাতে শুন্ডি রাজ্যকে হাল্লা রাজ্যের কাছে আত্মসমর্পণ করার আদেশ দেয়া হয়। গুপী-বাঘা আতংকিত রাজাকে আশ্বস্ত করে, এ সংকট থেকে তারা শুন্ডি রাজ্যকে বাঁচাতে চায়। রহস্য উদঘাটনে গুপী ও বাঘা হাল্লায় গিয়ে দেখে এই সব চক্রান্তের পেছনে হলেন কুচক্রী মন্ত্রী। সে-ই রাজাকে ওষুধ প্রয়োগের মাধ্যমে সম্মোহিত করে প্রলুব্ধ করেছে যুদ্ধের আদেশ দিতে – তার লক্ষ্য শুন্ডি রাজ্য দখল।

গুপী-বাঘা হাল্লা রাজ্যে গিয়ে গান শোনায়, গান শুনে চোখে জল আসে রাজার, এতে তাদের ওপর নজর পড়ে মন্ত্রীর। গান শুনে ওষুধের প্রভাব কেটে যায়, সরল মনের শিশু হয়ে উঠেন রাজা। মন্ত্রী বৈজ্ঞানিক বরফিকে আরো কড়া ওষুধ বানাতে বলে এবং কারাগারে বন্দী করে রাখা হয় গুপী বাঘাকে। বরফি’র ওষুধের প্রভাবে আরো হিংস্র হয়ে ওঠেন হাল্লার রাজা, যুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে বলেন সবাইকে। কারাগারের প্রহরীদের ভালো খাবারের লোভ দেখিয়ে মুক্ত হয় গুপী-বাঘা। হাল্লা রাজ্যের সৈন্যরা শুন্ডির উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করতেই গুপী-বাঘা এসে তাদের গান ধরলে সবার চলাচল থেমে যায়। তারা হাত-তালি দিয়ে নামিয়ে আনে বিভিন্ন স্বাদের মিষ্টান্ন যা দেখে সৈন্যরা যুদ্ধ ভুলে গিয়ে খাবারের দিকে মনোযোগ দেয়। লন্ডভন্ড হয়ে যায় কুচক্রী মন্ত্রীর পরিকল্পনা। হাল্লারাজ এবং শুন্ডিরাজ এই দুই ভাইয়ের মিলন ঘটে। বরফির ওষুধের ধোঁয়া সমস্ত রাজ্যে ছড়িয়ে দেয়া হয় আর এতে রাজ্যের মানুষ আবার কথা বলতে শুরু করে।

রচনা উপেন্দ্রকিশোর রায়চৌধুরী,  চিত্রনাট্য লিখেছেন সত্যজিৎ রায়, নির্দেশনা দিয়েছেন শাহ্‌রিয়ার ফেরদৌস সজীব। মঞ্চ ভাবনা মোঃ শওকত হোসেন সজীব, আলোক পরিকল্পনা ও প্রয়োগ মোখলেছুর রহমান, পোশাক ভাবনা প্রজ্ঞা তাসনুভা রূবাইয়াৎ, দ্রব্য সামগ্রী পরিকল্পনা আফসান আনোয়ার, সঙ্গীত শরীফুল ইসলাম, কোরিওগ্রাফি ফরহাদ আহমেদ শামীম, পোস্টার ও লিফলেট ডিজাইন এ বি এস জেম, নির্দেশনা সহকারী পারভীন পারু। মঞ্চ সহকারী রনি, সাদী, কাজল, সুব্রত, তানজিম, আল আমিন, রনি, নেওয়াজ, জয়, র‍্যাসি, আলোক সহকারী আসাদুজ্জামান সাদী, পোশাক সহকারী নায়মী, কাঁকন, জুঁই, দ্রব্যসামগ্রী সহকারী রনি, সুব্রত, কাজল, সামি, মাহফুজ, র‍্যাসি, কাঁকন সঙ্গীত প্রয়োগ নোবেল, রেজা, সজীব, গোপী, শর্মী, রূপসজ্জা মোহাম্মদ আলী বাবুল, ফটোগ্রাফি মোহাম্মদ রফিক, ভিডিওগ্রাফি শাফিন আহমেদ, গানের কথা সত্যজিৎ রায়। প্রযোজনা অধিকর্তা শুভ কুমার পাল, এম এ কাদের পারভেজ, প্রযোজনা ব্যবস্থাপনা ফুয়াদ বিন ইদ্রিস, মোঃ সোহেল রানা, সার্বিক তত্ত্বাবধান সাইফুল ইসলাম জার্নাল, সার্বিক ব্যবস্থাপনা প্রাচ্যনাট।

কুশীলবঃ

নূর মূহাম্মদ মুন্না/আবদুল্লাহ মাহফুজ খান – বাঘা, আশরাফুল আলম র‍্যাসি – গুপী, তানজিম ইমরান মাহমুদ/কৃষ্টি রেজা/আবদুল্লাহ মাহফুজ খান – ভূতের রাজা, এম এ কাদের পারভেজ – শুন্ডির রাজা, তানজিম ইমরান মাহমুদ – হাল্লার রাজা ,কৃষ্টি রেজা – হাল্লার মন্ত্রী, রকিবুল হাসান রাকিব – বরফি, আবদুল্লাহ মাহফুজ খান/নূর মূহাম্মদ মুন্না – আমলকির রাজা/জল্লাদ/ভূত/গ্রামবাসী, মোঃ মাহবুব ভুঁইয়া – গুপ্তচর/গ্রামবাসী/ভূত/বাঘ, শাবনাম রহমান সন্ধি – ভূত/গানের প্রতিযোগী/আমলকির মন্ত্রী/ফৌজ/নর্তকী, জাহানারা আক্তার জুঁই – আমলকির সভাসদ/ভূত/গানের দল/গ্রামবাসী/ফৌজ, কামরুন্নাহার কাঁকন – আমলকির সভাসদ/ভূত/গ্রামবাসী/গানের দল/ফৌজ/মুক্তামালা, মাহমুদা বেগম লাকী – মণিমালা/গ্রামবাসী/ফৌজ/গানের প্রতিযোগী, শুভ কুমার পাল – সেনাপতি/গানের দল/ভূত/গুপী (২), আল আমিন – খুড়ো (২)/ভূত/ফৌজ/পেয়াদা/বাঘ/শুন্ডির পেয়াদা/বোবা লোক, শাওন মিত্র – খুড়ো (১)/গ্রামবাসী/ফৌজ/ভূত/গানের দল/শুন্ডির সভাসদ, রনি ইসলাম – খুড়ো (৩)/ভূত/পেয়াদা/বিক্রেতা/প্রহরী/ফৌজ, মোঃ নেওয়াজ শরিফুল হক – খুড়ো (৪)/গানের দল/ভূত/ফৌজ/আমলকির সভাসদ/শুন্ডির সভাসদ/গ্রামবাসী, সঞ্জয় কুমার শর্মা জয় – গুপীর বাবা/ভূত/গানের দল/হাল্লার সভাসদ/হাল্লার বার্তাবাহক, ফয়সাল কবীর সাদী – ঘোষক/আমলকির পেয়াদা/ভূত/গ্রামবাসী/হাল্লার পেয়াদা/বাঘা (২)/বিক্রেতা।

Check Also

areef

আরেফ সৈয়দ আসছেন নজরুল হয়ে

মিডিয়া খবরঃ- ১৭ নভেম্বর  থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ‘ঢাকা লিটারারি ফেস্টিভাল’। ষষ্ঠবারের মতো আয়োজিত এ …

বিবাদী সারগাম

শিল্পকলায় নাটক বিবাদী সারগাম ও মরা ময়ূর

মিডিয়া খবর :- আজ রবিবার ৬ নভেম্বর শিল্পকলা একাডেমীতে মঞ্চস্থ হতে যাচ্ছে দুটি নাটক বিবাদী সারগাম …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares