Home » ইভেন্ট » ২২ মে শুরু হচ্ছে জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মেলন ও প্রতিযোগিতা
rabindrasangit-sammilon

২২ মে শুরু হচ্ছে জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মেলন ও প্রতিযোগিতা

Share Button

মিডিয়া খবর:-

২২ মে ২০১৫ শুক্রবার থেকে ধানমন্ডির ছায়ানট সংস্কৃতি ভবনে তিন দিনব্যাপী শুরু হচ্ছে এ বছরের জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদের ৩৪তম বার্ষিক অধিবেশন, জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মেলন ও প্রতিযোগিতা। ‘এখনও ঘোর ভাঙে না তোর যে’ আহ্বান নিয়ে জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদের আয়োজনে এবারের এই সম্মেলন উদ্বোধন করবেন শিক্ষাবিদ ও সংস্কৃতিকর্মী অধ্যাপক ড. অনুপম সেন। প্রধান অতিথি থাকবেন কবি সৈয়দ শামসুল হক। গুণী সম্মাননা প্রদান ও রবীন্দ্রপদকে ভূষিত করা হবে প্রবীণ শিল্পী সুধীন দাশ এবং প্রকৃতিবিদ দ্বিজেন শর্মাকে।

এ উপলক্ষে মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় ছায়ানট সংস্কৃতি ভবনে একটি সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পরিষদের সহসভাপতি আ ব ম নূরুল আনোয়ার, সাধারণ সম্পাদক লাইসা আহমেদ লিসা, মিতা হক, কোষাধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দীন, সিনিয়র সদস্য গোলাম রাব্বানী, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য লিলি ইসলাম, শর্মিলা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এবারের আয়োজনে অংশ নিচ্ছেন দেশের নানা অঞ্চল থেকে সমাগত ছয় শতাধিক শিল্পী, সংস্কৃতিকর্মী ও সংগঠক। উৎসবের প্রথম দিন উদ্বোধন পর্বের পর সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হবে সংগীতানুষ্ঠান। তিন দিনই সান্ধ্য অধিবেশন সাজানো হয়েছে গুণিজনের সুবচন ‘রবিরশ্মি’, আবৃত্তি, পাঠ, নৃত্য ও গান দিয়ে।

দ্বিতীয় দিন বিকেল ৪টায় রয়েছে সেমিনার। এতে উপস্থাপিত হবে আবুল মোমেনের প্রবন্ধ ‘রাষ্ট্র ও ধর্ম: রবীন্দ্র ভাবনা ও বর্তমান বাস্তবতা’। সেমিনারে সভাপতিত্ব করবেন জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদের সভাপতি সানজীদা খাতুন। আলোচনায় অংশ নেবেন ডা. সারওয়ার আলী ও মফিদুল হক। এ ছাড়া দৈনিক আয়োজন রবিরশ্মিতে কথা বলবেন বিশিষ্টজনেরা।

কিশোর ও সাধারণ সংগীত প্রতিযোগিতার বাছাই পর্ব হবে উদ্বোধনের আগের দিন, বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে। শুক্রবার দুপুরে কিশোর বিভাগ এবং শনিবার সকালে সাধারণ বিভাগের চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। উভয় বিভাগের পুরস্কার এবং গুণী সম্মাননা ও রবীন্দ্রপদক প্রদান করা হবে সমাপনী দিনের বিকেলের অধিবেশনে। এ ছাড়া বার্ষিক অধিবেশন উপলক্ষে এ বছরও যথারীতি প্রকাশিত হচ্ছে রবীন্দ্রনাথের সৃষ্টির নানা দিক নিয়ে বিশিষ্টজনদের লেখা প্রবন্ধ সঙ্কলন ‘সংগীত সংস্কৃতি’।

বাঙালি সংস্কৃতির চর্চা ও প্রসারের লক্ষ্য নিয়ে জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত পরিষদের যাত্রা শুরু হয় ১৯৭৯ সালে জাহিদুর রহিম স্মৃতি পরিষদ নামে। দেশব্যাপী বৃহত্তর পরিসরে কর্মকাণ্ড পরিচালনার লক্ষ্যে পরবর্তী সময়ে রবীন্দ্রনাথের নাম যুক্ত করে সংগঠনের নাম করা হয় জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদ। মূল সংগঠনের নাম বদলে গেলেও প্রয়াত রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী ও সংস্কৃতিকর্মী জাহিদুর রহিমের অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ঢাকার সম্মেলনে নিয়মিত প্রদান করা হয় জাহিদুর রহিম স্মৃতি পুরস্কার।

Check Also

chowdhury jarafullah

জাহিদ হাসান-জাফরউল্লাহ শরাফতের মিউজিক ভিডিও

মিডিয়া খবর:- পহেলা জানুয়ারী ইউটিউবে মুক্তি দেয়া হয়েছে জাহিদ হাসান ও ধারাভাষ্যকর জাফরউল্লাহ শরাফতের মিউজিক …

oishi-ashik

ঐশী ও আশিক গাইবেন আজ

মিডিয়া খবর:- জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী ঐশী ও আশিক সরাসরি গাইবেন বৈশাখী টেলিভিশনে। ৬ জানুয়ারি শুক্রবার রাত ১১টায় বৈশাখী টেলিভিশনের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares