Home » নিউজ » সড়ক নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার জন্য সমন্বয় সভা

সড়ক নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার জন্য সমন্বয় সভা

Share Button

মিডিয়া খবর:- 

২২ মার্চ (২০১৫) সকাল ১০টায় সড়ক নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার ক্ষেত্রে যে সকল প্রতিষ্ঠান ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করছে সে সকল প্রতিষ্ঠানসমূহের মাঝে সমন্বয় ও সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য নিয়ে এক বিশেষ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ধানমন্ডি ৭ নং রোডে অবস্থিত বিলিয়া অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত ট্রমালিংক আয়োজিত এ আলোচনায় সেন্টার ফর দ্যা রিহ্যাবিলিটেশন অফ দ্যা প্যারালাইজড (সিআরপি), সেন্টার ফর ইনজ্যুরি প্রিভেনশন এন্ড রিসার্চ বাংলাদেশ (সিআইপিআরবি), ওয়ার্ক ফর এ বেটার বাংলাদেশ (ডাব্লিউবিবি ট্রাস্ট), রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি, এক্সিডেন্ট রিসার্চ ইন্সটিটিউট (এআরআই), ব্র্যাক, এমপাওয়ার সোশ্যাল এন্টারপ্রাইজেস, দি হাঙ্গার প্রজেক্ট, স্টেট ইউনিভার্সিটিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

আলোচনায় বিশিষ্ট কলামিস্ট ও গবেষক সৈয়দ আবুল মকসুদ উপস্থিত থেকে বলেন, প্রতিষ্ঠানসমূহ কে কি করছে তা অনেকেই বলে না কিংবা এক প্রতিষ্ঠান অন্য প্রতিষ্ঠানকে বলতে চায় না এটা অনর্থক গোপনীয়তা। এর কোন কারণ নেই। তিনি বলেন, এ ধরনের মানসিকতা থেকে আমাদেরকে বেরিয়ে আসতে হবে। দুর্ঘটনা যাতে সর্বনিম্ন পর্যায়ে থাকে এটাই আমাদের প্রধান উদ্দেশ্য কিন্তু সেই সাথে যারা দুর্ঘটনার কবলে পড়েছেন সেই সময়ে তাদের যাতে সর্বোচ্চ সেবাটুকু নিশ্চিত হয় সেটাও গুরুত্ব সহকারে দেখতে হবে। এক প্রতিষ্ঠানের সাথে অন্য প্রতিষ্ঠানের একটি সমন্বয় থাকলে ভালো হয়। তিনি বলেন এটা মানবতার জন্য কাজ ফলে সকলকে একত্রিক হতে হবে এবং সকল প্রতিষ্ঠানকে তিনি এজন্য দল, মত, স্বার্থ সবকিছুর উর্দ্ধে উঠে চিন্তা করার অনুরোধ জানান।

আমরা যাতায়াতের উন্নত সেবা থেকে বঞ্চিত উল্লেখ করে সভায় আয়োজকদের পক্ষে মূল উপস্থাপনায় লেখক, গবেষক এবং ট্রমালিংক এর ভাইস প্রেসিডেন্ট বিধান চন্দ্র পাল দুর্ঘটনার বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরে বলেন, দুর্ঘটনার চিত্র কম-বেশি আমাদের সকলেরই জানা। আমরা দুর্ঘটনা চাই না, দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রিত ও সর্বনিম্ন পর্যায়ে থাকুক সেটাই আমাদের আকাঙ্ক্ষা হবে। দুর্ঘটনোত্তর মানবিক এবং চিকিৎসা সেবা সহায়তা কর্মসূচি দেবার উদ্দেশ্য নিয়ে ট্রমালিংক ঢাকা চট্টগ্রাম হাইওয়েতে দাউদকান্দি থেকে পুটিয়া পর্যন্ত ১৫কিলোমিটার এলাকায় কাজ করছে বলে এ সময় তিনি উল্লেখ করেন। ইতোমধ্যে ইউএসএআইডি, ব্র্যাক, সিআরপিসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় অন্যান্য হাইওয়েতে বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলেও তিনি তাঁর উপস্থাপনায় তুলে ধরেন।

ট্রমালিংক-এর সভাপতি ড. জন মুজালে তাঁর বক্তব্যে ট্রাফিক এক্সিডেন্ট শব্দটার ওপর গুরুত্ব দিয়ে বলেন, এক্সিডেন্ট বললে মনে হয় এটা এড়ানো যায় না, এটা সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছার ওপর নির্ভর করে। তিনি ভিন্নমত পোষণ করে বলেন, এটা এক্সিডেন্ট নয় কারণ এই দুর্ঘটনাগুলো অনুমান করা এবং প্রতিরোধ করা সম্ভব। তিনি বলেন, প্রতি তিন মাস অন্তর নিজেদের মাঝে সমন্বয় সাধনের জন্য এই কোয়ালিশন বসতে পারে। এছাড়া তিনি দুর্ঘটনাসংক্রান্ত একটি তথ্যবহুল ড্যাটাবেইজ গড়ে তোলারও আহ্বান জানান।

সভায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা এক্ষেত্রে নিজ প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রমসমূহ তুলে ধরেন। এতে দেখা যায় সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ও বিভিন্ন ইস্যুতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নানা আয়োজনের মাধ্যমে অ্যাডভোকেসি কার্যক্রম পরিচালনা করছে, কয়েকটি প্রতিষ্ঠান আলাদাভাবে যানবাহন চালকদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বিভিন্ন পর্যায়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে কাজ করছে প্রায় সকল প্রতিষ্ঠান। এছাড়া শিক্ষা কার্যক্রমে সড়ক নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়াবলী অন্তর্ভুক্তকরণ, ব্ল্যাক স্পট চিহ্নিতকরণ, দুর্ঘটনার কারণ নির্ণয় বিশ্লেষণ ও সচেতনতা সৃষ্টি, দিবস উদযাপন, রোড মার্কিং, রোড সাইন স্থাপন, মিডিয়ায় গুরুত্ব সহকারে লেখালেখি ও খবর প্রকাশ, ভুক্তভোগী পরিবারকে সমবেদনা প্রকাশ ও ক্ষতিপূরণ প্রদান, সচেতনতা সৃষ্টির উপকরণ হিসেবে নাটক, পথনাটক, ডকুমেন্টারী নির্মাণ ইত্যাদি কর্মকাণ্ড অব্যাহত রয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এক্ষেত্রে গবেষণা কার্যক্রমও পরিচালনা করছেন।

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষে কথা বলেন, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির স্বাস্থ্য কর্মসূচির পরিচালক আফসার উদ্দিন, সিআইপিআরবি-এর ন্যাশনাল কোঅর্ডিনেটর ড. মোঃ কামরান উল বাছেত, স্টেট ইউনিভার্সিটির পাবলিক হেলথ ডিপার্টমেন্ট-এর প্রধান ড. নাজিয়া ইয়াছমিন, সিআরপি’র এ্যডভোকেসি এন্ড নেটওয়ার্কিং অফিসার মোঃ মাসুদ রানা, আইনজীবী ও নীতি-বিশ্লেষক মাহবুবুল আলম তাহিন, ব্র্যাক-এর সিনিয়র সোশ্যাল কমিউনিকেটর রোনাল্ড চাকমা, দি হাঙ্গার প্রজেক্ট এর ইয়ূথ এন্ডিং হাঙ্গারের ঢাকা সিটি ইউনিটের যুগ্ম সমন্বয়কারী আরেফিন রহমান হিমেল, সাউথ এশিয়ান ইয়ূথ সোসাইটির কাজী জিয়াদ আনসারী, এম পাওয়ার সোশ্যাল এন্টার প্রাইজেস-এর প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা সুমন কান্তি দাস, রেডক্রিসেন্ট-এর সাবেক উর্দ্ধতন কর্মকর্তা আলী আশরাফ প্রমুখ।

Check Also

tpa

বিশ্ব টেলিভিশন দিবসে টিপিএ’র স্বতস্ফুর্ত সমাবেশ

মিডিয়া খবর :- বিশ্ব টেলিভিশন দিবস আজ। ১৯২৬ সালের এইদিনে বিজ্ঞানী জন লোগি বেয়ার্ড টেলিভিশন …

প্রযোজকদের একসুত্রে বাঁধবে টিপিএ

মিডিয়া খবর :- নবগঠিত টেলিভিশন প্রডিউসার্স অ্যাসোসিয়েশনের (টিপিএ) উদ্যোগে মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হল ১৭ নভেম্বর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares