Home » নিউজ » আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে হ্যাপি
happy

আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে হ্যাপি

Share Button

মিডিয়া খবর:-

রাতে ত্রিশটা ঘুমের ট্যাবেলট খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন চিত্রনায়িকা নাজনীন আক্তার হ্যাপি। আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজধানীর একটি সরকারি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাকে। বুধবার রাত ৯টা থেকে বৃহস্পতিবার ভোর পর্যন্ত তিনি ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

বুধবার রাত ৯টার দিকে হ্যাপি মিরপুরের বাসায় অসুস্থ হয়ে পড়েন। এ অবস্থায় তার পরিবার তাকে রাজধানীর পপুলারসহ তিনটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিলেও ওইসব হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে ভর্তি করতে অপারগতা প্রকাশ করে। পরে রাত ১০টার দিকে তাকে রাজধানীর একটি সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এদিকে ওই ঘটনার কিছুক্ষণ আগে ফেসবুক স্ট্যাটাসে হ্যাপি লেখেন ‘আমি বড় দুর্ভাগা। শেষ কথাটাও তোমাকে বলতে পারলাম না। অনেক ভালবাসি বাবু, কোনো ভুল করলে মাফ করে দিও। আম্মু আব্বু তোমরাও মাফ করে দিও, আমি তোমাদের যোগ্য সন্তান হতে পারলাম না। আমার জন্য অনেক কষ্ট করেছ তোমরা। এর ঋণ শোধ করা সম্ভব না। এটাই আমার শেষ স্ট্যাটাস। বাবু তুমি অন্য কাউকে বিয়ে করবে এটা দেখা আমার পক্ষে সম্ভব হলো না।’ স্ট্যাটাস শেষে লিখেন, ফিলিং লস্ট। জানা যায়, এর পর পরই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি।

হাসপাতালে সাত ঘণ্টা চিকিৎসা নেওয়ার পর আজ ভোর ৫টায় বাসায় ফেরেন হ্যাপি। এখনও তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ বলে পারিবারিকভাবে জানানো হয়েছে। সকালে ডাক্তার বাসায় এসে তাকে দেখে গেছেন বলে জানা যায়।

পারিবারিক সূত্রে বলা হয়, হ্যাপি রাতে ত্রিশটা ঘুমের ট্যাবেলট খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন। এরপর তাকে ক্লিনিকে নেওয়া হয়। কিন্তু একে একে তিনটি ক্লিনিকে নেওয়া হলেও কোনটিই তার চিকিৎসা দিতে চায়নি। পরে তাকে সরকারি একটি মেডিক্যালে নেওয়া হয়।’ কোন মেডিক্যাল হাসপাতাল এটা জানতে চাইলে হ্যাপির পরিবার নিরাপত্তাজনিত কারণে তা জানাতে চায়নি।

Check Also

bou-boka-day

মারুফ রেহমানের নাটক বৌ বকা দেয়

মিডিয়া খবর :- মারুফ রেহমানের রচনা ও মারুফ মিঠুর পরিচালনায় একুশে টেলিভিশনে প্রচারিত হতে যাচ্ছে …

women

পালিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক নারী দিবস

মিডিয়া খবর:- আজ ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। এবার নারী দিবসের প্রতিপাদ্য ‘নারী-পুরুষ সমতায় উন্নয়নের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares