Home » মঞ্চ » বটতলার নতুন নাটক বিছন

বটতলার নতুন নাটক বিছন

Share Button

মিডিয়া খবর :-

নাট্যদল বটতলা তাদের ৭ম প্রযোজনা হিসেবে মঞ্চে নিয়ে আসছে নাটক বিছন। নিয়মিত চলছে মহড়া। মহাশ্বেতা দেবীর গল্প অবলম্বনে নাটকটি নাট্যরুপ ও নির্দেশনা দিয়েছেন মেহেদী তানজির। আগামী এপ্রিল মাসের মাঝামাঝি সময়ে নাটকটি মঞ্চে আসবে বলে বটতলা আশা করছে। দেশজ নাট্যাঙ্গিকে নির্মিত এ নাটকটির উপজীব্য সাওতাল সম্প্রদায়ের জমি রক্ষা ও মজুরির লড়াই।bichon-1 

নাট্যকাহিনী  – দলবেঁধে নাচ গান করছে কুরুডা ও হেসাাডি গ্রামের বুড়ো, শিশু ও যুবক যুবতীরা। হঠাৎ গ্রামের বয়োজ্যেষ্ঠ ধাতুয়ার মা আসে পুলিশদের ভাগাতে ভাগাতে। দুলন, ধাতুয়ার মার স্বামী গ্রামের আরেক বয়োজ্যেষ্ঠ আসে নতুন খবর নিয়ে। দুলনকে একটি অকলা জমি দিয়ে দিয়েছে গ্রামের রাজপুত মহাজন লছমন সিং। এ খবরে সবাই অবাক হয়। বিপাকে পরে যায় দুলন। কি করবে সে এ জমি নিয়ে। অনেক ভেবে দুলন আবার লছমন সিং এর বাড়িতে যায়। সার ও বিছন চাইতে। লছমন সিং সরকারী অফিস থেকে সার ও বিছনের ব্যবস্থা করে দেয় দুলনকে। কিন্তু দুলন বিছন না বুনে সিদ্ধ করে খায় পরিবার নিয়ে। জেল খেটে গ্রামে ফিরে আসে গ্রামের প্রতিবাদী ছেলেদের করন। মজুরী বাড়ানোর আন্দোলনে গ্রামবাসীকে উৎসাহী করে সে। গ্রামবাসীর আন্দোলনে ন্যায্য মজুরীর দাবী মেনে নিতে বাধ্য হয় লছমন সিং। তবে পরবর্তীতে গ্রামবাসীর আনন্দ উৎসবে অর্তকিতে হামলা চালায় নছমনের লোকেরা। বাড়ি ঘর পোড়ে, লাশ পড়ে। সেই লাশ অফলা জমিতে দুলনকে দিয়েই পুতে ফেলে লছমন। দুলনকে থাকতে বলে জমিতে। স্ব-জাতির পুতে ফেলা লাশের পাহাড়ায়। আবার ফসল কাটার সময় আসে। সরকারী নতুন অফিসার  আসে দায়িত্বে। নতুন বামপন্থী অফিসার গ্রামবাসীকে ন্যায্য মজুরীর বিষয়ে উস্কে দিয়ে চলে যায়। গ্রামবাসীরা আবার একজোট হয়ে আন্দোলনে  নামে। মজুরী মেটাবার দিন হাঙ্গামা বাঁধে। এবার নিখোঁজ হয় দুলনের ছেলে ধাতুয়া ও আরো অনেকে। ছেলের খোঁজে জমিতে গিয়ে দুলন দেখতে পায় ধাতুরার লাশ। লছমনের ভয়ে সে লাশও বন্ধ্যা জমিতে পোতে দুলন। পালিয়ে যায় লছমন সিং। দুলন লোভে দু:খে দিশেহারা। বৈশাখী বৃষ্টি এলে বন্ধ্যা জমির আগাছা সাফ করে একা। একাই বিছন ছিটায় জমিতে। মানুষের হাড়ের সারে  সে জমিতে সবুজ, পুষ্ট ফসল দোলে বাতাসে। এর মাঝে একদিন ফেরে লছমন সিং। আসে জমিতে দুলনের কাছে গোপনে। তাকে একা পেয়ে দুলন ক্ষোভে, প্রতিহিংসায় পাথরের আঘাতে হত্যা করে প্রতিশোধ নেয় স্ব-জাতি হত্যার, এতদিনের নির্যাতনের। স্থির হয় দুলন ডাকে গ্রামবাসিকে। সবাইকে বিলিয়ে দেয় জমির ধান। সন্তান ও স্ব-জাতির রক্ত মাংস হাড়ে বেড়ে ওঠা বিছন। চাপা ক্ষোভে ও কষ্টে হাহাকার করে দুলনের মন। একটি কথাই বলে সে “ধাতুরা, ধাতুয়ারে তুদের হাম বিছন বনা দিয়া।”

নাটকটিতে অভিনয় করছেন মোহাম্মদ আলী হায়দার, সামিনা লুৎফা নিত্রা, মিজানুর রহমান, পারভীন কনা, নায়লা আজাদ নুপুর, মাহাফুজা পলি, দোলা বিশ্বাস, জিয়াউল আবেদীন রাখাল, ইভান রিয়াজ, মো রহিম, তাহিম, নাফিজ বিন্দু, মো রাসেল. 

নাটকটির আলোক নির্দেশনা দেবেন খালিদ মাহমুদ সেজান, পোষাক ও প্রপস  সেউতি শাগুফতা, সেট  ইমরান খান মুন্না, কোরিওগ্রাফী নায়লা আজাদ নুপুর ও মঞ্চ ব্যবস্থাপনা মাহফুজা পলি।

bichon-2

Check Also

আজ নাটক কঞ্জুসের ৬৯০ তম মঞ্চায়ন

মিডিয়া খবর :- ৭০০ তম মঞ্চায়নের পথে এগিয়ে চলেছে হাসির নাটক কঞ্জুস। আজ নাটকটির ৬৯০ …

সেলিম আল দীন মুক্তমঞ্চে ‘শিখণ্ডী কথা’

মিডিয়া খবর:  হিজলতলী গ্রামে বাড়ি রমজেদ মোল্লার। তার পরিবারে জন্ম হয় রতন মোল্লার। কিন্তু বয়ঃসন্ধিকালে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares