Home » সাহিত্য » গল্প » ভালো আছি ভালো থেকো……
zihad

ভালো আছি ভালো থেকো……

Share Button

মিডিয়া খবর :-           -: সেলিম বিশ্বাস:-

সোনামণি জিহাদ,

জিহাদ করতে করতেই তুমি চলে গেলে। সেরাতে আমার ‘জামগাছ’ নাটকের কথা মনে পড়ে গেল। এত অসাধারণ ব্যক্তিদের কাজ দেখে আমার মতো সাধারণ মানুষ (পাবলিক) ‘জামগাছ’ নাটকের কথাই হয়ত ভেবেছেন।

তুমি যখন ৬০০ ফুট নিচের এক দুনিয়ায়, যখন হীমশীতল লৌহদেয়াল তোমায় ভয়াল স্পর্শ দিচ্ছিল, টিকটিকি, ব্যাঙ, তেলাপোকা তোমার শিশুমনে ভয়ের বিষ ঢালছিল, তখন আমরা গভীর উৎকন্ঠায় মূহুর্ত পার করছিলাম। তখন যে তুমি তোমার শুভ্রজীবনের শেষতম মূহুর্তগুলো পার করছিলে তা তো তুমি বোঝার সুযোগ পাওনি। বোঝার কথাও না। আসলে যমদূত এসে বড় মায়ায় পড়ে গিয়েছিলেন। তুমি হয়ত উপরের দিকে তাকাচ্ছিলে আর দেখছিলে গোলাকার একখানা চাঁদ। চাঁদের মানুষরা মাঝে মাঝে উঁকি দিয়ে কথা বলার চেষ্টা করছিল তোমার সাথে। তুমি হয়তো ভাবছিলে আত্মবিশ্বাসের সাথে, ‘এই বুঝি স্বর্গের দেবী মাগো আমার হাত বাড়িয়ে উদ্ধার করে বুকে জড়িয়ে উষ্ণতা দেবে পরম মমতায়। অথবা, দেবদূত বাবা সুপারম্যানের মতো মূহুর্তের মধ্যে তুলে নিয়ে যাবে…’ সোনামনি জিহাদ, তুমি যখন এতসব সহজ-সরল চিন্তায় আশায় বুক বাঁধছ, তখন কেউ ছিল আন্দোলন দমনে আর সাধারণ মানুষকে বোকা বানানোর কাজে কেউবা আন্দোলন করে দেশোদ্ধারের কাজে। তোমার মতো সমাজের নিম্ন শ্রেণির পিতার সন্তানকে উদ্ধারের জন্য সর্বোৎকৃষ্ট প্রস্তুতি প্রথমেই কেউ নেবে তা কি তুমি ভুল করে আশা করেছিলে? শোন সোনামনি, ওরা তোমাকে উদ্ধারে হয়তো আসতেই চায়নি। এতগুলো দুষ্টু সাংবাদিকের সমাগম এত এত মানুষ জেনে যাওয়াতেই তো ফেঁসে গেল তারা। শুধু শুধু রাতভর কাজ। এক থানার পুলিশ যেমন ভেসে ওঠা লাশ দেখে বলে- এটা আমাদের থানার আওতাধীন নয়, ঠিক এখানে এসে আমার থানার সীমানা শেষ। তেমনি তাদের  ডিউটিতো অনেক আগেই শেষ, কেন রাতভর কাজ করতে হবে!

তুমি হয়তো জানো না, তোমার পায়ের নিচের পাইপ যখন আমরা তোমাকে ক্ষত-বিক্ষত করে তুলে নিলাম, তখন তুমি নর্দমার পানিতে হাবুডুবু খাচ্ছ। যমদূত তখন কাঁদছেন। তাইতো সইতে না পেরে তোমায় শান্ত করে দিলেন। তুমি অভিমান করো না তোমার দেবদূত আর স্বর্গের দেবীর উপর। ওরা তোমার সুপারম্যানকে তোমাকে গুম করেছে সন্দেহে আটকে রেখেছিল। পরে তারা বলেছে, তোমার সুপারম্যনের নিরাপত্তা আর সুস্থ্যতার জন্য তারা নিরাপদে নিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু তাকে তারা দীর্ঘ আটকাবস্থায় কোন খাবারও দেয়নি। তবে তোমার সুপারম্যান খাবার না চেয়ে তোমার কাছে আসতে চেয়েছিলেন। আসতে দেয়নি। জিজ্ঞাসাবাদ বাকি ছিল। দায়িত্ব বলে কথা!

ক্ষুরধার মস্তিষ্কে (!) আট-নয় ঘন্টা পর যখন ক্যামেরা আর লাইটের বুদ্ধি বের হল আর তা সচল করতে হিমশিম খেল আরও ঘন্টাখানেক, তখন তুমি নিমজ্জিত। পাইপ তোলার আগেই যদি এই প্রযুক্তিটি ব্যবহার করা যেত তাহলে হয়তো তুমি পাইপের উপর দাঁড়ানোর অবস্থা থেকেই আমার মতো নিরীহ সাধারণ বাঙালীর মুখে একটু উৎকন্ঠা দুর করতে পারতে। কিন্তু তা আর হলো কই? মাদারীপুরের এক লঞ্চ মানুষ খুন করে যারা লাশ গুলোও পেতে দিলোনা, সেখানে মাঝরাতে তোমার অন্তর্ধানকে গুজব হিসেবে চালিয়ে দেবার অপচেষ্টা সফল হওয়ার চেয়ে তোমার লাশ একটা বড় প্রাপ্তি। ’’ ‘তারা হাগতে পারে না, হাগতে দিতেও চায় না।’’

বড় বলতে ইচ্ছে করছে, ভিনদেশী হায়েনার সামনে থেকেও আমরা ‘মনোয়ারা ক্লার্ক’কে জীবিত পেয়েছি, আর আজকের স্বাধীন দেশে প্রতিদিন লাশের মিছিল। এ কি গনহত্যা নয়।

সোনামনি জিহাদ, এ দেশ মাতার উপর অভিমান করো না। কিন্তু এদেশের ভালোমন্দ দেখার দায়িত্ব যারা পেয়েছে, তারা তাকে ক্ষমতা বলে তার অপব্যবহার করে অযোগ্য লোক বিভিন্ন আসনে বসিয়ে তোমাকে বলির পাঠা বানালো। ক্ষমা কোরো আমায় সোনামনি। তুমি ওপার থেকে বলছ? ‘ ভালো আছি, ভালো থেকো…….’

ইতি।

তোমার কোনো একজন কাকু অথবা মামা।

Check Also

syed shamsul haque

আমার পরিচয়-সৈয়দ শামসুল হক

মিডিয়া খবর :- বাঙালীর আত্মপরিচয় নিয়ে সৈয়দ শামসুল হকের লেখা অসাধারন কবিতা- ‘আমার পরিচয়’ আমি …

SKY

এ এস মাহমুদ খানের কবিতা

মিডিয়া খবর :-     দুঃখ বিলাস মন খারাপের বারন্দায় বসে এই হঠাৎ এমন কেন কিসে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares