Home » নিউজ » মিরাজ ভাইয়ের স্পিকারটি বাজবে কাল থেকে
Nazmul-Miraj

মিরাজ ভাইয়ের স্পিকারটি বাজবে কাল থেকে

Share Button

মিডিয়া খবর :-         -: তির্থক আহসান রুবেল :-

মাত্র কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে যারা জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন, তাদের অনেকেই হয়ত জানেন না যে, মানুষটা আর নেই ইন্ডিপেন্ডেন্ট টিভির তুমুল জনপ্রিয় অনুসন্ধানী অনুষ্ঠানতালাশএবং এসএটিভির অনুসন্ধানী অনুষ্ঠানখোঁজযার হাত ধরে পথ চলা শুরু করেছিলসেই তুমুল সাহসী, মানুষটা জন্মদিনে সবার ভালবাসায় সিক্ত হয়ে, মধ্যরাতে আত্মহত্যা করেন কাজের সময় যেমন খুব সিরিয়াস, কাজের বাইরে কখনো কখনো উদাসীন যেন। অনেক অনেক স্মৃতি মনে পড়ে যায় নাজমুল মিরাজ এসএটিভির প্রতিষ্ঠার বছরে দুটি এ্যওয়ার্ড বয়ে এনে গর্বিত করেছিল আমাদের অনেককে আমার খুঁতখুতেঁ স্বভাবের দরুণ প্রায়শই নিজের শো’র প্রোমো তৈরি শেষে খুব আদর নিয়েই ডাকতেন, বিজ্ঞানী (এই নামেই আমাকে ডাকতেন) এইটা একটু দেখেন তো ভুলটুল পান কিনা! আমি দাড়ি রাখায় বলেছিলেন, ‘আমার সাথে কম্পিটিশনে নামছেন! দাড়ি রাখলেই মিরাজ হওয়া যায় না’। আমিও জবাব দিতাম, এ দাড়ি মিরাজের দাড়ি নয়, এ দাড়ি নচিকেতার! অফিসে সবাই যখন নিজেকে নিয়ে আড্ডায় মত্ত, তখন তিনি স্পিকারে গান বাজাতেন।উনার ব্যবহার করা কম্পিউটারের সাথে ব্যক্তিগত স্পিকার লাগানো ছিল। একদিন কি জন্য যেন প্রচন্ড মেজাজ খারাপ করে স্পিকারের তার ছিড়ে ফেলেন। সকালে অফিসে এসে দেখি, তার ছেড়া। এখানে একটা কথা বলতে হয়, কেউই ভয়ে উনার কম্পিউটারে বসতো না। যাবতীয় কাজ হতো উনার কম্পিউটারটিকে এড়িয়ে। একমাত্র আমার বিভিন্ন সময় সেখানে বসার আনুষ্ঠানিক অনুমতি ছিল। যদি কখনো কেউ সেই কম্পিউটার ব্যবহার করতে বসতো, তাকে সেখান থেকে তুলে দিতাম আমরা যে কেউ।কারণ এটা মিরাজ ভাই’র কম্পিউটার।শেষ দিকে মেরাজ ভাইর সাথে সেভাবে দেখা হতো না। একদিন আমাকে ডেকে বলেন, ‘আমি জানি আর কেউ দায়িত্ব নিয়া এই কাজটা করতে পারবো না, তাই আপনারেই বলি: আমার এই স্পিকারটা ঠিক কইরা আপনে ব্যবহার করতে থাকেন। নয়ত এমনেই পইড়া থাইক্যা ভেনিস হইয়া যাইবো’। স্পিকারটা ঠিক করে এখন আমার কম্পিউটারের মনিটরের দু পাশে শোভা পাচ্ছে। মাঝখানে মাস কয়েক। মিরাজ ভাই’র সাথে আর দেখা হয়নি। গত ২৫ তারিখ যখন আনিস ফোন করে বলল, খবর পাইছেন!মিরাজ ভাই মারা গেছে…. খুব স্বাভাবিকভাবে বললাম, সবাই জানে! খুব স্বাভাবিকভাবে সিগারেট টানতে টানতে রুমে ঢুকলাম। প্রতিদিনের মতো কম্পিউটারের সামনে বসলাম। চোখ পড়ল মনিটরের পাশে দুটো কালো স্পিকারের দিকে। দুম করে চোখে পানি চলে এলো। কে যেন গলা চেপে ধরেছে! আজ পর্যন্ত একদিনও আমার কম্পিউটারে স্পিকারটি বাজেনি। কারণ এর প্লাগটি একটু ভিন্ন। দুদিকে কোনাকুনি। একটা মাল্টিপ্লাগ কিনবো কিনবো করেও কেনা হয়নি। কালকেই একটা মাল্টি কিনবো এবং আগামীকাল থেকে সেটি বাজবে আমার কম্পিউটারে। miraj

এই মিডিয়াতে আমার কয়েকজন ভাইবন্ধু ছিল যারা প্রফেশনাল ভাইবন্ধু নয় ভাই দেখা আর পাবো না শাসনমূলক সমীহ দিয়ে প্রশ্রয় দেবার মতো একটা আশ্রয় ঠিকানাহীন হয়ে গেলভাইরে, তোমারে কতলোক ভালবাসতো, তা তোমার ফেসবুক টাইমলাইন জানতে পারছে। আর যারা এমন ভালবাসা পায়, তারাই বোধহয় এমন পাগলামীকে সঙ্গী করে, ভালবাসা থাকতে থাকতে হারিয়ে যায়। ঘৃনিতরা বেহায়ার মতো বেঁচে থাকে ৯৩ বছর বয়স পর্যন্ত। গালির পাশাপাশি অনেক অনেক ভালবাসাও পাই প্রায়শই। আমার গুরুর একটা কথা প্রায়শ:ই বলি আমি। সে কথাটা আপনি নিয়ে নিলেন, তবে পুরোটা পারলেন না। গুরু শ্রীমান নচিকেতা চক্রবর্তী বলেছেন: ‘আমার জনপ্রিয়তা থাকতে থাকতে একদিন আমি দুম করে হারিয়ে যাবো। আমার মৃত্যুটা হবে খুব রহস্যজনক। কেউ জানবে না। অনেকে আমাকে ভালবাসবে এবং আবিস্কার করবে, তাদের ভালবাসা নিয়ে আমি হারিয়ে গিয়েছি। এটা আমার স্বপ্ন’। আমার গুরুর স্বপ্ন কিঞ্চিত হলেও আপনি দখল করলেন। দেখা হয়ে যাবে, জীবনটা খুব বড় নয়। বড় হয় কর্ম।

 

লেখক: গণমাধ্যমকর্মী

Check Also

Sohel-Rana

সোহেলরানা এখন আশঙ্কামুক্ত

মিডিয়া খবর :- বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় অভিনেতা মাসুদ পারভেজ সোহেল রানার গলায় অস্ত্রোপচার হয়েছে। গত …

prescription

পড়ার উপযোগী প্রেসক্রিপশন লেখার নির্দেশ হাইকোর্টের

মিডিয়া খবর:- হাইকোর্ট চিকিৎসকদের প্রেসক্রিপশন পড়ার উপযোগী করে লেখার নির্দেশ দিয়েছেন। এ বিষয়ে আগামী ৩০ …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares