Home » শিল্পকলা » শিল্পকলা একাডেমিতে দ্বিবার্ষিক এশীয় চারুকলা প্রদর্শনী
asian-art-summit

শিল্পকলা একাডেমিতে দ্বিবার্ষিক এশীয় চারুকলা প্রদর্শনী

Share Button

মিডিয়া খবর:-

আঞ্চলিক সম্প্রীতি বৃদ্ধি ও সাংস্কৃতিক দৃঢ় বন্ধনের লক্ষ্যে প্রতি দুই বছর পর শিল্পকলা একাডেমিতে আয়োজিত হয় এশীয় চারুকলা প্রদর্শনী। চলতি বছরের ১ ডিসেম্বর শুরু হয়েছে ‘১৬তম দ্বিবার্ষিক এশীয় চারুকলা প্রদর্শনী’। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সংস্কৃতি ও ভাবনার আদান-প্রদানের লক্ষ্যে ১৯৮১ সালে প্রথম যাত্রা করে অনন্য এ শিল্পকর্ম প্রদর্শনী। প্রতিটি দেশের সংস্কৃতির বিকাশ, বিনিময় ও ঐতিহ্য যথাযথভাবে তুলে ধরা সম্ভব শিল্পের মাধ্যমে। 

দ্বিবার্ষিক এশীয় চারুকলা প্রদর্শনীতে এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অন্যান্য মহাদেশের মোট ৩০ দেশ এবার অংশগ্রহণ করে। দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে- বাংলাদেশ, ভারত, আফগানিস্তান, পাকিস্তান, ওমান, নেপাল, কুয়েত, শ্রীলংকা, থাইল্যান্ড, তুরস্ক, লেবানন, মিয়ানমার, সিরিয়া, অস্ট্রেলিয়া, সৌদি আরব, কাতার, সিঙ্গাপুর, কাজাখস্তান, দক্ষিণ কোরিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত প্রভৃতি। এ দেশগুলোর ১০৪ জন শিল্পীর মোট ২০৪টি শিল্পকর্ম স্থান পায়। এসব শিল্পকর্মের মধ্যে- চিত্রকর্ম, ভাস্কর্য, ইনস্টলেশন, ছাপচিত্র, স্থিরচিত্রসহ শিল্পের সবগুলো মাধ্যমই স্থান পায়।

এছাড়া এবারই প্রথমবারের মতো এ প্রদর্শনীতে স্থান পেয়েছে পারফরম্যান্স আর্ট। এতে মোট ১০ জন শিল্পী অংশ নেন। উদ্বোধনী দিনে ‘৫০০০ ফিট আন্ডার’ নামে ৪ ঘণ্টাব্যাপী পারফরম্যান্সের মাধ্যমে শিল্পী ও নাট্যকর্মী ঋতু সাত্তার তুলে ধরেন বিশ্বের মানবিক বিপর্যয় আর ক্ষমতার নেতিবাচক দিকগুলোকে। পাঁচ হাজার ফুট নিচে বসবাসরত মানুষগুলোর জীবনের রোজকার অনিশ্চয়তার কথা বলেন তিনি, যা আমাদের প্রশ্নের সামনে দাঁড় করিয়ে দেয়।

বাংলাদেশী শিল্পীদের কাজগুলোর মধ্যে ভাস্কর্য ও ইনস্টলেশনধর্মী কাজগুলো বেশ প্রশংসনীয়। বিদেশী শিল্পীদের বেশকিছু কাজের মধ্যে চিম পমসহ কয়েকজন শিল্পীর কাজ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। বাংলাদেশী শিল্পীদের শিল্পকর্ম নির্বাচনের জন্য কমিটিতে নির্বাচনী সদস্য হিসেবে ছিলেন শিল্পী মনিরুল ইসলাম, শিল্পী সমরজিত রায় চৌধুরী, শিল্পী সৈয়দ আব্দুল্লাহ খালিদ, শিল্পী মনসুর উল করিম এবং শিল্পী ফরিদা জামান। প্রদর্শনীর কাজগুলোর সার্বিক দিক বিচারে মোট ১০টি সম্মাননার মধ্যে ছয়টি লাভ করেন বাংলাদেশী শিল্পীরা।

১৬তম এ প্রদর্শনীতে বিশেষভাবে সংযোজিত হয়েছে ‘কনটেম্পোরারি নিউ মিডিয়া আর্ট অ্যান্ড প্র্যাক্টিসেস’ শীর্ষক সেমিনার। ঢাকা শিল্পকলা একাডেমিতে শুরু হওয়া এ প্রদর্শনী চলবে মাসজুড়ে। ১৬তম এ প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। প্রদর্শনীটি প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে খোলা হলেও শুক্রবার বেলা ৩টা থেকে চলবে রাত ৮টা পর্যন্ত।

 

Check Also

konok-champa-art

কনকচাঁপার একক চিত্রপ্রদর্শনী

মিডিয়া খবর :- কন্ঠশিল্পী কনকচাঁপার আঁকা ছবি নিয়ে জাতীয় চিত্রশালায় চলছে প্রদর্শনী। সদ্য প্রয়াত চিত্রশিল্পী ও …

film-day-1

হারানো দিনের আবহে চলচ্চিত্র দিবস

মিডিয়া খবর:- ০৩ এপ্রিল ছিল জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস। জাতীয় চলচ্চিত্র দিবস ২০১৬ উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares