Home » সঙ্গীত » আরজে টুটুলের তোকে পাওয়ার সম্ভাবনা
RJ-TUTUL-WEB-3

আরজে টুটুলের তোকে পাওয়ার সম্ভাবনা

Share Button

 ঢাকা, ১২ এপ্রিল:-

সপ্তাহের একটি দিন শুক্রবার ছাড়া প্রতিদিন রেডিও আমার টিউন করলেই সকাল ৭ টা থেকে দুপুর ১ টা অবধি যে কণ্ঠটি পুর শহরটাকে উচ্ছ্বসিত করে দেয় সেই হচ্ছে শ্রোতা নন্দিত সময়কে জয় করা আর জে টুটুল। বিধাতা প্রদত্ত চমৎকার কণ্ঠ, বিশুদ্ধ উচ্চারণ আর জাদুকরী বাচনভঙ্গি দিয়ে যিনি এরই মধ্যে আপন প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে চলেছেন। রেডিও আমারআমার সকাল’, ‘ওল্ড ইজ গোল্ডআমার ভালোবাসাঅনুষ্ঠানে প্রোগ্রামের মাধ্যমে শ্রোতাদের মন জয় করেছেন কথাবন্ধু টুটুল এই বৈশাখেই সংগীতশিল্পী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছেন আরজে টুটুল। তার প্রথম একক অ্যালবাম ‘তোকে পাওয়ার সম্ভাবনা’।

জনপ্রিয় মিউজিশিয়ান ‘সজীব দাস’ এর সুর ও সংগীতে ‘তোকে পাওয়ার সম্ভাবনা’য় থাকছে মোট নয়টি গান। আধুনিক, ফোক, ফিউশন এবং সমসাময়িক ধারার চমৎকার মিশ্রণ ঘটানো হয়েছে গানগুলোতে।

গানগুলোর ব্যাপারে আশাবাদী এ তরুণ কন্ঠশিল্পী। তার বিশ্বাস, গানের কথাগুলো শ্রোতাদের মন ছুঁয়ে যাবে।
এবারের বৈশাখে শ্রোতাদের জন্য নিয়ে আসছেন তাঁর প্রথম একক অ্যালবামতোকে পাওয়ার সম্ভাবনা তাঁর গানে আসার গল্প এবং বিভিন্ন টুকিটাকি নিয়ে কথা বলেছেন

আরজে  কি মানে কি?

এটাতো রেডিও জকি, আমি মনে করি আমরা যারা রেডিওতে কাজ করি তারা সময়টা বেধে ফেলি একটা সুন্দর উপস্থাপনার মাধ্যমে, অনুষ্ঠানটির সার্বিক পরিচালনার কাজটি করতে হয় আমাদের, আমার মতে এটাই রেডিও জকি|

আরজে টুটুল যখন গায়ক-

এখানে একটু ভ্রু কুঁচকানোর ব্যাপার থাকে মানুষের, আমাদের দেশে। যেমন, কোনো ভালো অভিনেতা যদি ভালো গান করে তখন অনেকেই বলে, ‘উনি অভিনয় করতেছেন, ওনার আবার গান করার দরকারটা কী?’। কোনো ভালো শিল্পি যদি একটা নাটক করে, তখনও আমাদের নাক সিঁটকানোর একটা ব্যাপার থাকে যে, ‘উনি বোধহয় এখন আর গান-বাজনায় তেমন ভালো করতে পারতেছেনা, তাই নাটক শুরু করেছেন।’ ব্যাপারগুলো কি আসলেই তাই? না।
তো, আমার কাছে মনে হয়না যে গান আমাকে আলাদা করে পরিচয় করিয়ে দেবে। আমি এক টুটুল যে ক’টা কাজ করবো, ভালো করেই করবো। পৃথিবীর ইতিহাসে তো এরকম আছেই; কিশোর কুমার থেকে শুরু করে অনেকেই আছেন, যারা প্রত্যেকটা জায়গাতেই অনেক ভালো। আমি যতটুকু জায়গায় ভালো করতে পারবো, আমি কেনো করবো না?

গানে শুরুটা কিভাবে?—

গান নিয়ে পাগলামি তো একদম স্কুল থেকেই। আর ওস্তাদ ধরে যেটা শেখা, সেটাও একই সময়ে। কেরাণীগঞ্জে মোহাম্মদ আলী নামের একজন শ্রদ্ধেয় ওস্তাদ ছিলেন, উনি এখন প্রয়াত; তাঁর কাছ থেকে প্রায় একটানা পাঁচ বছরের একটা তালিম নিয়েছিলাম। আর, নার্সারিতে পড়ার সময়ই স্কুলের একটা প্রোগ্রামে সর্বপ্রথম আমার শ্রদ্ধেয় রায়হান স্যার আমাকে মাইক্রোফোন ধরিয়ে দেন।
সংগ্রামের কথা শুনব-

অনেক, অনেক বেশি। লাইফের কিছু স্ট্রাগল পার্ট আছে আমার। ক্লাশ টেনে থাকতেই আব্বু চলে গেলেন আমাকে ছেড়ে। তখন থেকে অনার্স-মাস্টার্স পর্যন্ত আমার গান, আমার মিডিয়ার কাজ, আমার লেখাপড়া- সবকিছুই আমাকে এক হাতে টানতে হয়েছে। আমি আর কোনো সাপোর্ট পাইনি।

এবার আপনার এ্যালবাম তোকে পাওয়ার সম্ভাবনা—

এই সময়ের জনপ্রিয় মিউজিশিয়ান ‘সজীব দাস’ এর সুর ও সংগীতায়জনে অ্যালবামটিতে মোট নয়টি গান নিয়ে বের হবে এ বৈশাখে। আধুনিক, ফোক, ফিউশন এবং সমসাময়িক ধারার চমৎকার মিশ্রণ ঘটানো হয়েছে গানগুলোতে। প্রত্যেকটি গানের কথাগুলো শ্রোতাদের মন ছুঁয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস।

অ্যালবাম এর কাজ শুরুর পেছনের গল্পটা-

যখন অনার্সে পড়তাম, তখনই আমি অ্যালবাম করার জন্য দৌঁড়ঝাপ শুরু করেছিলাম। স্বনামধন্য অনেকের কাছে গিয়েছিলাম, অথচ স্যান্ডেল ক্ষয় হওয়া ছাড়া আর কোনো কাজই হয়না। কিন্তু স্বপ্ন তো আর ভেঙ্গে যায়না। তারপরেই হঠাৎ করে আমার চিন্তা হলো যে মিডিয়ার যে কোনো যায়গায় আমাকে পা রাখতেই হবে। এখন থেকে প্রায় সাড়ে তিন বছর আগের কথা। তখন বন্ধুদের উৎসাহে ‘রেডিও আমার’ এ সিভি জমা দিলাম। এবং কয়েক হাজার সিভির মধ্যে থেকে সর্বশেষ ওরা নিলো পাঁচজন এবং ওই পাঁচজনের মধ্যে আমি ছিলাম বেস্ট। এখান থেকেই আমার মিডিয়াতে আনুষ্ঠানিক পা দেয়া, দিনটা ছিলো ২০১০ এর ৭ ডিসেম্বর। তখন থেকেই আসলে আমার জন্য গানের ব্যাপারটা একটু সহজ হয়ে গেলো এবং আস্তে আস্তে শুরু করে দিলাম কাজ। আমি প্রথম যে গানটা করলাম সেটা ‘সুহৃদ সুফিয়ান’ এর লেখা, ‘সজীব দাশ’ এর মিউজিক কম্পোজিশন এবং সুরে ‘তোকে পাওয়ার সম্ভাবনা’ শিরোনামে।

কারা গান লিখেছেন গান–
এই সময়ের কয়েকজন প্রতিভাবান গীতিকবিদের লেখা গান দিয়ে সাজানো হয়েছে অ্যালবামটিকে। তাঁদের মধ্যে অন্যতম হলেন সুহৃদ সুফিয়ান, রাইসুল ইসলাম চৌধুরী, আশিক বন্ধু, আমিরুল মোমেনীন মানিক, আর আই রুবেল, স্নেহাশিষ ঘোষ, মাহবুবুর রহমান সজীব ও মাসুদ ।

সহ শিল্পীকে কে?—

অ্যালবামটিতে তিনটি ডুয়েট গান থাকছে । গানগুলোতে টুটুলের সঙ্গে কণ্ঠ দিয়েছেন কোনাল, কণিকা এবং শশী। কোনাল গাচ্ছেন ‘ভালোবাসিনি ২’ শিরোনামের গান, আর কণিকা গাচ্ছেন ‘চুপচাপ নগরী’; দুটো গানই আরজে রাজুর লেখা।

বাবাকে নিয়ে গান বিষয়ে জানতে চাই—

যে মানুষটার মতো করে কেউ কোনোদিন আমাকে বোঝেনি, বুঝবেও না… যে মানুষটা আমাকে ভালোবাসতেন সবার চেয়ে বেশী; আদর করতেন, শাসন করতেন অন্তরের সবটুকু মধু ঢেলে, আবদারগুলো মেটাতেন সাধ্যমত, মাঝেমধ্যে গানও গেয়ে শোনাতেন। এমনকি যেদিন তিনি আমাকে ছেড়ে একেবারে চলে যাবেন, সেই দিনও জানতে চাইছিলেন আমার কিছু লাগবে কি না। আমার সেই ‘আব্বুকে’ নিয়ে আমার প্রথম একক অ্যালবাম-এ গান থাকবে না এটা হতেই পারেনা!
‘সাদা রঙে খুঁজিনা সেই শুভ্রতা, চশমার ফাঁক গলে দেখিনা নিরবতা.. কেউ আর ডাকেনা ওরে খোকা বুকে আয়, আকাশের বুকে শুণ্যতা.. তারাগুলো জলে–নেভে, সূর্যটা রোজ হাসে.. শুধু নেই আমার বাবা.. বাবা তুমি আছো কোথায়, খুঁজে ফিরি শুধু তোমায়..’- বাবাকে নিয়ে এমনই কথার গানটি লিখেছি আমি এবং আমিরুল মোমেনীন মানিক।

অ্যালবাম নিয়ে স্বপ্ন –

এটা একটা স্বপ্ন আমার। আমি সায়েন্স ব্যকগ্রাউন্ড থেকে লেখাপড়া করেছি তবে কখনোই ডক্টর-ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার ইচ্ছে ছিলো না। আমার কাছে মনে হতো যে, আমাকে যে কোনো মূল্যে মিডিয়াতেই কাজ করতে হবে; লোকে আমার সাথে দেখা সাক্ষাত করবে, ফোন করবে, ছবি তুলবে, অটোগ্রাফ নেবে… এই জিনিসগুলো আমি খুব এঞ্জয় করতাম। মানুষ আমাকে চিনবে এটা হচ্ছে বড় ব্যাপার। অ্যালবামের ব্যাপারটা তো ছিলোই; আমার গান অ্যালবামে থাকবে, মানুষ সেটা শুনবে, কিনবে, আমি রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাবো, লাউড স্পীকারে আমার গানটাই বাজবে- এটা একটা অন্যরকম অনুভূতি।

আমাদের অডিও ইন্ড্রাস্ট্রির বর্তমান অবস্থা-

এখন এটার কথা যদি চিন্তা করে গান করি, তাহলে আমাদের গান-বাজনা বন্ধ করে দিতে হবে। ৯০ দশকের মাঝামাঝি থেকে শুরু করে শেষ পর্যন্ত কিন্তু আমাদের অডিও ইন্ড্রাস্ট্রির অবস্থা ভালো ছিলো। কিন্তু এখন! পাইরেসিটাও একটা ব্যাপার। এটা রোধের জন্য দরকার হচ্ছে নীতিমালা। আমি যখন ফ্রি ক্লিক করে গান পেয়ে যাবো, তখন তো নিশ্চয়ই আমি বাজার থেকে কিনতে যাবো না! গান ঠিকই হিট হবে, কিন্তু দেখা যাবে প্রোডিউসার এবং শিল্পী দুজনেই ফিট!

 

Check Also

oishi-ashik

ঐশী ও আশিক গাইবেন আজ

মিডিয়া খবর:- জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী ঐশী ও আশিক সরাসরি গাইবেন বৈশাখী টেলিভিশনে। ৬ জানুয়ারি শুক্রবার রাত ১১টায় বৈশাখী টেলিভিশনের …

bakir-fasol

জুয়েল মোর্শেদ ও মমর বাকির ফসল

মিডিয়া খবর:- সংগীতশিল্পী  মাহফুজা মমর ‘বাকির ফসল’ গানটির মিউজিক ভিডিও ইউটিউবে গত ৩০ ডিসেম্বরে প্রকাশিত হয়েছে। …

One comment

  1. Md. Aminul Islam

    Onek Onek Shuvokamona taklo DaDA.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares