Home » নিউজ » অর্থাভাবে বন্ধ হয়ে গেল দুটি দৈনিক

অর্থাভাবে বন্ধ হয়ে গেল দুটি দৈনিক

Share Button

মিডিয়া থবর:-

অর্থনীতি প্রতিদিনের পর এবার বন্ধ হয়ে গেল দৈনিক বর্তমান।  সোমবার পত্রিকাটির শেষ সংখ্যা বের হয়েছে। রোববার রাতে সংবাদকর্মীরা কাজ শেষ করে চলে যাওয়ার পর গভীর রাতে মালিক পক্ষ পত্রিকাটি বন্ধের ঘোষণা সম্বলিত নোটিশ টানিয়ে দেয়। মালিক জেলে থাকায় আর্থিক সংকটে পত্রিকাটি বন্ধ হয় বলে জানা গেছে।

বর্তমানের সাংবাদিকরা জানান, সোমবার সকালে তারা মতিঝিলের সানমুন স্টার পাওয়ার ভবনে অবস্থিত পত্রিকাটির কার্যালয়ে যান। দেখতে পান ওই ভবনের ১১ তলার লিফটটি বন্ধ। পরে উপরে ওঠে দেখেন কলাপসিবল গেটও বন্ধ। সেখানে দেখেন পত্রিকাটি বন্ধের নোটিশ টানানো।

দৈনিক বর্তমানের কয়েকজন সংবাদকর্মী জানান, তারা এই পরিস্থিতিতে আলোচনার জন্য রমনার একটি রেস্টুরেন্টে বসেছিলেন। তবে তারা কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারেননি। একজন সংবাদকর্মী জানিয়েছেন, তারা আন্দোলনে যাবেন।

দৈনিক বর্তমান বাজারে আসে ২০১৩ সালের ২ জুলাই। এর মালিক কল্যাণপুর মিজান টাওয়ারের মিজানুর রহমান। তিনি একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। পত্রিকাটি বাজারে আসে ‘উদ্ভুত’ কায়দায়। এর আগে বাংলাদেশে কোনো পত্রিকা এভাবে বিজ্ঞাপন দিয়ে বিরাট অংকের বেতনভাতায় সাংবাদিক নিয়োগ করা হয়নি। শুরুতে পত্রিকাটির সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন বিশিষ্ট লেখক, সাংবাদিক রাহাত খান। পরে তিনি পদত্যাগ করেন।

শুরু থেকেই দৈনিক বর্তমান নানা সমস্যার মধ্য দিয়ে সময় পার করছিল। কিছুদিন আগে ঢাকা সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ তাদের অফিসটি ভেঙে ফেলে। পরে অন্যত্র স্থানান্তর করা হয় পত্রিকার কার্যালয়।

প্রসঙ্গত, দৈনিক বর্তমানের মালিক ও প্রকাশক মিজানুর রহমান দুর্নীতি ও হেফাজতে ইসলামের মতিঝিলের ঘটনার মামলায় কারাগারে আছেন। তার জেলে যাওয়ার পর থেকেই পত্রিকাটির সংকট ঘনীভূত হতে থাকে।

গত রোববার সকালে  বন্ধ হয়ে গেল আর একটি পত্রিকা অর্থনীতি প্রতিদিন। বেকার হয়ে গেলেন শতাধিক সাংবাদিক।   রোববার সকালে দৈনিকটি বন্ধের ঘোষণা দেয় কর্তৃপক্ষ। গত ২৬ নভেম্বর  পরিচালনা পর্ষদের সভায় পত্রিকাটি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

প্রায় ছয় ঘণ্টা স্থায়ী পর্ষদের সবার শুরুতে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল যে, দৈনিকটিতে একজন ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও হেড অব মার্কেটিং নিয়োগ দেয়া হবে। ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক হিসেবে সিনিয়র একজন সাংবাদিককে  নিয়োগের বিষয়টি চূড়ান্তও হয়। তবে পর্ষদ সভার শেষ দিকে পরিচালকরা এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন। তারা সিদ্ধান্ত নেন, পত্রিকাটি আপাতত বন্ধ থাকবে।

বন্ধের ঘোষণা দিয়ে টানানো নোটিশে বলা হয়েছে, আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারণে পত্রিকাটির প্রকাশনা অব্যাহত রাখা সম্ভব হচ্ছে না।   নোটিশে আরো বলা হয়েছে, আগামী ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে নিয়মানুযায়ী সাংবাদিক-কর্মচারীদের যাবতীয় পাওনা বুঝিয়ে দেয়া হবে।

গত ২৬ নভেম্বরের পর অর্থনীতি প্রতিদিনের সাংবাদিকরা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেন। সবশেষ শনিবার পত্রিকাটির প্রকাশক ও সম্পাদক আব্দুল হকের সঙ্গে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের দুই গ্রুপের নেতারা বৈঠক করেন। তাদের পক্ষ থেকে পত্রিকাটি চালু রাখার অনুরোধ জানানো হয়। কিন্তু সম্পাদক অপারগতা প্রকাশ করেন।

প্রসঙ্গত, অর্থনীতি প্রতিদিন ২০১২ সালে ২ ডিসেম্বর বাজারে আসে। শুরু থেকেই নানা সংকটে চলছিল এর প্রকাশনা। গত কয়েক মাস আগে হঠাৎ করে পত্রিকাটির প্রকাশনা বন্ধ করে দিলেও পরে কর্মীদের চাপে পুনরায় চালু হয়। তবে সে সময় অনেককে ছাঁটাই করা হয়।

Check Also

FDC

শিল্পী সমিতির শপথ নিলেন ১১ জন, অনুপস্থিত ১০

মিডিয়া খবর :- শুক্রবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) শপথ নিয়েছেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির …

prangonemore

সফল পথ চলার ১৪ বছরে প্রাঙ্গণেমোর

মিডিয়া খবর :- শনিবার ৬ মে, ১৪ বছরে পা রেখেছে নাট্যদল প্রাঙ্গণেমোর। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দলটি তাদের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares