Home » সাহিত্য » নাটক » ৭০০তম মাইলফলকে কঞ্জুস
konjush

৭০০তম মাইলফলকে কঞ্জুস

মিডিয়া খবর :-

১৫ ডিসেম্বর লোক নাট্যদলের বিখ্যাত হাসির নাটক কঞ্জুসের ৭০০তম প্রদর্শনী হবে। এ শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় এই বিশেষ konjushপ্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। লোকনাট্যদলের প্রধান লিয়াকত আলী লাকী জানিয়েছেন, এবারই প্রথম মঞ্চে বাংলাদেশের কোনো নাটকের ৭০০তম প্রদর্শনী হচ্ছে। সেজন্য তারা এ প্রদর্শনীকে মাইলফলক স্পর্শ বলে মন্তব্য করছেন।

ফরাসি নাট্যকার মলিয়ের ‘দ্য মাইজার’ অবলম্বনে নাটকটির রূপান্তর করেছেন তারিক আনাম খান। নির্দেশনা দিয়েছেন লিয়াকত আলী লাকী। তিনি বলেন, ‘৩০ বছর ধরে নাটকটি মঞ্চস্থ হচ্ছে। আর তা সম্ভব হয়েছে দর্শকের কারণে। আমরা “কঞ্জুস” নাটকটি নিয়ে দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে চাই।’

১৯৮১ সালের ৬ জুলাই লিয়াকত আলী লাকী’র নেতৃত্বে নাট্যপ্রেমী কিছু তরুণদের নিয়ে দেশের সংস্কৃতি অঙ্গনে যাত্রা শুরু করে লোক নাট্যদল। নিরলস স্পৃহা নিয়ে সৃষ্টির অদম্য আকাঙ্খায় প্রতিষ্ঠিত লোক নাট্যদলের মূল লক্ষ্য, আধুনিক নাট্যমনষ্ক দর্শকদের উপযোগী করে বাংলার ঐতিহ্যবাহী নাট্যকর্মের শিল্পিত উপস্থাপনসহ বিশ^নাট্যের বিভিন্ন ধারার নাটক প্রযোজনা এবং বাংলা নাটককে সমৃদ্ধ করা।

জন্মলগ্ন থেকেই নিয়ত নিরীক্ষার মাধ্যমে নতুন নতুন নাট্য বিষয় ও আঙ্গিকের সাথে দর্শকদের সম্পৃক্ত করা, নিয়মিত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ নাট্যকর্মী তৈরী করা, সৃষ্টিশীল ও নিষ্ঠাবান নাট্যকর্মীদেরকে সম্মানিত করা, নাট্যচর্চার ইতিহাস সংরক্ষণ করা, ভবিষ্যত প্রজন্মকে নাটকের সাথে যুক্ত করা, বড়দের পাশাপাশি শিশু-কিশোর ও যুবদের জন্য নাট্যান্দোলন পরিচালনা করা, নতুন দর্শক সৃষ্টি করা, সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে সুশিক্ষিত ও সচেতন সমাজ গড়ার দায়িত্ব পালন করাসহ নানাবিধ সৃজনশীল কার্যক্রম লোক নাট্যদল সম্পন্ন করছে নিষ্ঠা ও দক্ষতার সাথে।

দলের উদ্যোগে ১৯৯০ সালের ১লা জানুয়ারি প্রতিষ্ঠিত হয় শিশু-কিশোর ও যুবদের জাতীয় নাট্য সংঘ ‘পিপল্স থিয়েটার এসোসিয়েশন (পিটিএ)’ এবং শিশু নাট্যদল ‘পিপল্স লিট্ল থিয়েটার (পিএলটি)’। গত ২৬ বছরে পিটিএ’র সাথে যুক্ত হয়েছে ২৮০টি সংগঠন। পিটিএ’র উদ্যোগে নিয়মিতভাবে শিশুদের নাট্যপাঠশালা, কর্মশালা, সেমিনার, সিম্পোজিয়াম, জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক শিশু-কিশোর ও যুব নাট্যোৎসবের আয়োজন করা হয়। পিটিএভুক্ত দলগুলো এপর্যন্ত ৯২টি আন্তর্জাতিক উৎসবে অংশগ্রহণ করেছে। লোক নাট্যদলের অন্যান্য সহযোগী সংগঠনগুলো হলো- পিপল্স রিপার্টরী থিয়েটার ও নাট্য তথ্য ব্যাংক। ‘পিপল্স রেপার্টরী থিয়েটার (পিআরটি)’ নামক পেশাদার নাট্য সংগঠনটি লোক নাট্যদলের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত হয়। পিআরটি নিয়মিত নাটকের পাশাপাশি ‘শিশুদের জন্য বড়দের নাটক’ প্রযোজনা করছে।

জীবন ঘনিষ্ঠ ও নিরীক্ষাধর্মী নাটক মঞ্চায়নের অঙ্গিকারে বিশস্ত থেকে লোক নাট্যদল শিশু নাটকসহ ৬০টি নাটক প্রযোজনা করেছে। এর মধ্যে ৫২টি মঞ্চ নাটক, ৭টি পথ নাটক, ১টি সঙ্গীতালেখ্য। লোক নাট্যদল মূলত বাংলাদেশের নাটককে সামাজিক ক্রিয়ার সাথে সম্পৃক্ত করা এবং আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সুপ্রতিষ্ঠিত করার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করে থাকে। দেশের বিভিন্ন জেলায় নাটক প্রদর্শনের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও লোক নাট্যদলের রয়েছে দৃপ্ত পদচারণা। লোক নাট্যদল ও পিএলটি নাটক নিয়ে ভ্রমণ করেছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জার্মানী, মোনাকো, জাপান, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া, রাশিয়া, কিউবা, তুরষ্ক, লাওস, নেপাল, ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ।

প্রথম প্রদর্শনী : ৮ মে ১৯৮৭
শততম মঞ্চায়ন : ১২ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৩
দুইশতম মঞ্চায়ন : ৫ ডিসেম্বর ১৯৮৪
তিনশতম মঞ্চায়ন : ১১ জুলাই ১৯৯৭
চারশতম মঞ্চায়ন : ২১ সেপ্টেম্বর ২০০১
পাঁচশতম মঞ্চায়ন : ২৯ ডিসেম্বর ২০০৬
ছয়শতম মঞ্চায়ন : ২১ এপ্রিল ২০১২
সাতশতম মঞ্চায়ন : ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭
১৯৮৭ সাল থেকে যাত্রা শুরু হয় কঞ্জুসের। বিগত ৩০ বছরে এ নাটক রাজনৈতিক এবং সামাজিক বিবর্তনের সাথে সাথে নিজের শৈলিও পরিবর্তন করে যুগপোযোগী হয়েছে। ভ্রমণ করেছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। অংশ নিয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক নাট্যোৎসবে। ইংল্যান্ড, আমেরিকা, মোনাকো, ভারত সহ বিভিন্ন দেশে মঞ্চায়ন হয়েছে ‘কঞ্জুস’।

আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে ‘কঞ্জুস’-এর উল্লেখযোগ্য অর্জন:  ১৯৯৩ সালে দিল্লীতে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক থিয়েটার অলিম্পিয়াডে অন্যতম শ্রেষ্ঠ প্রযোজনার পুরস্কার লাভ। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় অনুষ্ঠিত ‘এএসিটি ওয়ার্ল্ড ফেস্ট ২০১৪’-তে ‘আউটস্ট্যান্ডিং কমেডিয়ান’ এবং ‘আউটস্ট্যান্ডিং কষ্টিউম ডিজাইন’ বিভাগে পুরস্কার লাভ।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *