Home » নিউজ » মৌলবাদীদের ভয়ে চুপ থাকব না: অভিজিতের স্ত্রী

মৌলবাদীদের ভয়ে চুপ থাকব না: অভিজিতের স্ত্রী

মিডিয়া খবর :-

‘মৌলবাদীদের ভয়ে চুপ থাকব না, আমি কথা বলেই যাব’ বলেছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক অভিজিৎ রায়ের স্ত্রী রাফিদা আহমেদ বন্যা। ধর্মনিরপেক্ষতা ও বিজ্ঞানের উন্নতির জন্য আততায়ীর ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার স্বামী প্রাণ হারালেও এর পক্ষে সোচ্চার থাকার কথা জানিয়েছেন তিনি। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম বিবিসির কাছে স্মৃতিচারণ করে এসব কথা বলেছেন তিনি। 

২৬ ফেব্রুয়ারি বইমেলা থেকে ফেরার পথে ঢাকা বিশ্বদ্যালয়ের টিএসসির সামনে লেখক ও ব্লগার অভিজিৎকে কুপিয়ে জখম করে অজ্ঞাত হামলাকারীরা। হাসপাতালে নেওয়ার পর তার মৃত্যু হয়। ওই হামলায় তার স্ত্রী বন্যাকে আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া হয়েছে।

ওই হামলার ঘটনার পর নিরাপদ স্থান থেকে বিবিসির সঙ্গে বিশেষ সাক্ষাৎকারে অভিজিৎ হত্যার সেই দিনটির স্মৃতিচারণ করে বন্যা জানান, বাংলাদেশে মৌলবাদ অনেক গভীরে শিকড় গেড়েছে। এর বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকবেন তিনি। মারাত্মক জখম হওয়া বন্যা জানান, ধীরে ধীরে তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন। ভয়াবহ ওই হামলার কিছু ঘটনা তার স্মৃতিতে রয়েছে। ওই হামলার আগ মুহূর্তের ঘটনা প্রসঙ্গে বন্যা বলেন, ‘পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে রাতের খাবার খাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি ফিরছিলাম। আমরা একে অন্যের হাত ধরে হাঁটছিলাম এবং কথা বলছিলাম। আমাকে গাড়িতে তোলা অবস্থায় এবং কেউ আমাকে নিয়ে যাওয়ার আগের আর কোনো কিছু মনে করতে পারছি না। তবে আমার মনে আছে, রক্তে আমার পুরো শরীর ভিজে গিয়েছিল।’

তিনি আরো বলেন, ‘হামলার পর যখন আমি হাসপাতালে ছিলাম তখন জানতে পারলাম, মাথায় আঘাত করা হয়েছে। হাতেও মারাত্মকভাবে জখম করা হয়েছে। একটি আঙুলও আমি হারিয়েছি।’

হাসপাতালের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অভিজিৎ আমার পাশেই শোয়ানো ছিল। চিকিৎসকরা এসে আমাকে বললেন, তাকে (অভিজিৎ) আগে চিকিৎসা দিতে হবে। কারণ আমার অবস্থা তার চেয়ে ভালো। অভিজিৎ শব্দ করছিল। কিন্তু তার জ্ঞান ছিল না।’

স্বামী অভিজিৎকে ‘বুদ্ধিবৃত্তিক একজন নাস্তিক’ উল্লেখ করে বন্যা বলেন, ‘ধর্মনিরপেক্ষতা ও বিজ্ঞানের প্রচারে অভিজিৎ জীবন উৎসর্গ করেছে। আমি কথা বলেই যাব। আমরা যা বিশ্বাস করি তার প্রকাশ করতেই থাকব। এই কারণেই তো অভিজিৎকে মরতে হলো। তবে আমি হাল ছাড়ব না।’

এর আগে অভিজিৎয়ের পরিবার জানিয়েছিল, মুক্তমনা ব্লগে ধর্মনিরপেক্ষতা, বিজ্ঞান ও সামাজিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে লেখালেখি করতেন অভিজিৎ। এ কারণে তাকে প্রায়শ হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। ফেসবুকেও চিন্তা-চেতনা নিয়ে লিখতেন অভিজিৎ।

হত্যার হুমকিকে তারা কতটা গুরুত্বের সঙ্গে দেখতেন- এমন প্রশ্নে বন্যা বলেন, ‘হত্যার হুমকি মূলত ছিল ফারাবি নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে।’ নিজের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওই ব্যক্তিকে ‘ব্লক’ করার কথাও জানান রাফিদা।

তিনি বলেন, ‘এ ধরনের হুমকি অনেক বুদ্ধিজীবী ও লেখককেই দেওয়া হয়েছে- যার দু-একটিই এ পর্যন্ত কার্যকর করা হয়েছে।’ হত্যার হুমকি নিয়ে বাংলাদেশে এসে নিজেদের নিরাপত্তার বিষয়টিও ভেবেছিলেন বলে উল্লেখ করেন অভিজিৎ রায়ের স্ত্রী।

কিন্তু বই মেলা থেকে টিএসসির মোড় পর্যন্ত এইটুকু রাস্তায় এত মানুষের মধ্যে এ রকম একটি হামলা হতে পারে, এটি তাদের কল্পনার বাইরে ছিল বলেই জানান বন্যা। এ ঘটনার ‘প্রধান সন্দেহভাজন’ শফিউর রহমান ফারাবিকে ইতিমধ্যে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

Check Also

emi

এশিয়া মডেল ফেস্টে বাংলাদেশের ইমি

মিডিয়া খবর :- বাংলাদেশের মডেল ইমি এ বছর ‘এশিয়ান মডেল অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন। রবিবার দক্ষিণ কোরিয়ার সিউলের …

sheikh hasina

স্কুলে দুপুরের খাবারের ব্যবস্থা করতে প্রধানমন্ত্রীর আহবান

মিডিয়া খবর :- দেশের সব স্কুলে দুপুরের খাবারের ব্যবস্থা করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানালেন প্রধানমন্ত্রী …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *