Home » নিউজ » বর্ষবরণে বিলুপ্তপ্রায় ঐতিহ্যবাহী খেলা

বর্ষবরণে বিলুপ্তপ্রায় ঐতিহ্যবাহী খেলা

Share Button

মিডিয়া খবর:-      – প্রসীদ কুমার দাস –

১৬ এপ্রিল  সোমবার বিকাল ৪ টার সময় গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলায় বাংলা বর্ষবরণ -১৪২৫ উপলক্ষে পানিতে নেমে হাঁস ধরা প্রতিযোগিতা, তৈলাক্ত কলা গাছ বেয়ে ওঠা এবং ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কাশিয়ানী উপজেলার যায়যায়দিন ফ্রেন্ডস ফোরামের আয়োজনে বর্ষবরণ উৎসব উপলক্ষে প্রতিবছর আয়োজন করা হয় গ্রাম বাংলার বিলুপ্তপ্রায় ঐতিহ্যবাহী এই খেলা গুলো। নববর্ষের প্রতিটি দিন বাঙালীদের মনে আনন্দের ঝড় তোলে। সবাই হয়ে যায় আনন্দে আত্মভোলা। সকল ভেদাভেদ ভূলে সবাই মিলে ভেসে যায় আনন্দের খেয়ায়।

আজকের এই বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কাশিয়ানী উপজেলার নির্বাহী অফিসার জনাব এ.এস,এম মাঈন উদ্দিন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কাশিয়ানী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জনাব মোক্তার হোসেন, কাশিয়ানী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব কাজী জাহাঙ্গীর আলম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) কাশিয়ানী জনাব আল মোকতাদির হোসেন, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মুকসুদপুর সার্কেল), গোপালগঞ্জ জনাব হোসাইন মোহাম্মদ রায়হান, কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জনাব মোঃআজিজুর রহমান, কাশিয়ানী উপজেলার সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব মশিউর রহমান খান। এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন কাশিয়ানী উপজেলার মাহমুদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব মোঃ মাসুদ রানা, কাশিয়ানী উপজেলা শাখা সেচ্ছাসেবকলীগের সাধারন সম্পাদক জনাব মোঃ সাইফুল ইসলাম পিকুল, কাশিয়ানী সদর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক জনাব আনোয়ার হোসেন, কাশিয়ানী প্রেস ক্লাবের সাধারন সম্পাদক জনাব নিজামুল আলম মোরাদ।

অনুষ্ঠানটির সার্বিক পৃষ্ঠপোষকতা করেছেন কাশিয়ানী প্রেস ক্লাবের প্রধান পৃষ্ঠপোষক জনাব মুন্সী ওয়াহিদুজ্জামান ও সভাপতি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যায়যায়দিন ফ্রেন্ডস ফোরামের সভাপতি জনাব ইনায়েত হোসেন। তৎসঙ্গে অনুষ্ঠানকে প্রানোবন্ত করেছিল কাশিয়ানী উপজেলার বিভিন্ন স্থান হতে আশা প্রায় সহস্রাধিক দর্শনার্থী বৃন্দ। তাদের মনে বাদ্যযন্ত্রের ঝংকারের শব্দের সাথে সাথে নৃত্যের তালে তালে লাঠি খেলা দেখিয়ে আনন্দ ভাসিয়ে দেন এক দল লাঠিয়াল দল।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জনাব এ.এস.এম মাঈন উদ্দিন যায়যায়দিন ফ্রেন্ডস ফোরাম কে তাদের আজকের আয়োজনের জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন আমাদের যুগযুগের ঐতিহ্যকে বিলুপ্তপ্রায় অবস্থা থেকে উত্তরনের চেষ্টা করতে হবে। এ জন্য তিনি প্রতিটি গ্রাম ও মহল্লায় পূর্বের ন্যায় যথাযথ মর্যাদার সহিত বর্ষবরন উৎসবের আয়োজন করা জন্য আহ্বান জানান। এবং বলেন আমাদের সবার একত্রিত প্রচেষ্ঠার মাধ্যমে বাঁচিয়ে রাখতে হবে বাঙালিদের যুগযুগের ঐতিহ্যকে। অনুষ্ঠান শেষে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

 

 

Check Also

টিপিএ আনুষ্ঠানিকভাবে আত্বপ্রকাশ করল

মিডিয়া খবর :- বেসরকারী টেলিভিশনসমুহে কর্মরত প্রযোজকগনের প্রতিষ্ঠান টেলিভিশন প্রডিউসার্স এ্যাসোসিয়েশন-টিপিএ আজ আনুষ্ঠানিক ভাবে আত্বপ্রকাশ …

bookfare

শুরু হচ্ছে একুশে গ্রন্থমেলা

মিডিয়া খবর :- একুশে গ্রন্থমেলা দ্বার উন্মোচন হতে যাচ্ছে আজ বৃহস্পতিবার। মেলার ইতিহাসে সবচেয়ে বড় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares