Home » ইভেন্ট » দুই বাংলার বাউল সঙ্গীত উৎসব
baul mela

দুই বাংলার বাউল সঙ্গীত উৎসব

মিডিয়া খবর:- Image may contain: 1 person, on stage and indoorশিল্পকলা একাডেমিতে অনুষ্টিত হচ্ছে তিনদিন ব্যাপী বাংলাদেশ-ভারত বাউলসঙ্গীত উৎসব।

লালন বিশ্বসঙ্ঘ ও শিল্পকলা একাডেমির যৌথ উদ্যোগ এবং ইন্ডিয়া বাংলাদেশ ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় এ উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। Image may contain: 2 people, people on stage

শিল্পকলা একাডেমির উন্মুক্ত প্রাঙ্গণে উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন প্রাবন্ধিক সৈয়দ আবুল মকসুদ। শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন বাউল গবেষক আবদেল মাননান।

সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, বাউলের যে হাজার বছরের সংস্কৃতির ইতিহাস রয়েছে, সেই ইতিহাসের মূল উপাদান হচ্ছে বাউল ধারার গান। বাউলের দর্শন মানবতাবাদ। বাউলদের গানে গানে মানবতাবাদের এই চিন্তাধারার প্রকাশ ঘটেছে, যা আমাদের সংস্কৃতিরও মূল সুর। তিন দিনের এ বাউল উৎসব এ সময়ের জন্য উল্লেখযোগ্য ঘটনা। বাউল গানের বাণী উপভোগ করার পাশাপাশি, যারা গান শুনবেন তারা উপলব্ধিও করবেন। তাহলে সমাজ ও দর্শনের ভেতরে মানবতাবাদ প্রবেশ করবে।

বাউল গবেষক আবদেল মাননান বলেন, ‘বাউল সাধনা হচ্ছে একটি আধ্যাত্মিক সাধনার চরম পর্যায়। বাউল দর্শনের প্রকাশ ঘটে মূলত সঙ্গীতের মাধ্যমে। এ বাউল দর্শনের প্রভাব সমাজে বেশি ঘটলে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ মাথাচাড়া দিয়ে উঠত না।’

উদ্বোধনের আনুষ্ঠানিকতার সঙ্গে ছিল ‘ফকির লালন শাহ ও বাঙলার ফকিরী গানের উত্তরাধিকার’ শীর্ষক বিশেষ প্রদর্শনী। এতে উঠে আসে ফকির লালন সাঁইয়ের ওপর লালন বিশ্বসঙ্ঘের বিভিন্ন আয়োজনের আলোকচিত্র।

সবশেষে ছিল দুই বাংলার বাউলশিল্পীদের সঙ্গীত পরিবেশনা। শিল্পকলা একাডেমির বাউল দলের শতাধিক শিল্পীর সম্মিলিত সঙ্গীত পরিবেশনা দিয়ে শুরু হয় সঙ্গীতানুষ্ঠান। তাদের কণ্ঠে গীত হয় এসো হে দয়াল ও জমি করব আবাদ গান দুটি।

একক কণ্ঠে দিতি সরকার গেয়ে শোনান ‘কারো রবে না এ ধন’, ‘আল্লাহ বলো মনরে পাখি’ ও ‘যদি তরীতে বাসনা থাকে’। বিপাশা গেয়ে শোনান ‘ঘরের কে বা ঘুমায়’ ও ‘মিলন হবে কতদিনে’; আবীর বাউল ‘চাতক বাঁচে ক্যামনে’ ও ‘রাত পোহালে পাখি বলে’; ওমর আলী ‘বেত পুরানাদী’ ও ‘কোন নামে ডাকিলে’; আলমীনা আক্তার ‘ও যার নাম শুনিলে’; সোমা ব্যাপারী ‘শুনিলে প্রাণ চমকে ওঠে’। একক কণ্ঠে আরও গান গেয়ে শোনান শরীফ সাধু, সমীর বাউল, টুনটুন বাউল, আলীয়ার শাহ্‌, আরজু শাহ্‌, হিরক সরদার, হারুসন কবির প্রমুখ। ভারতের বাউলদের মধ্যে সঙ্গীত পরিবেশন করেন সঞ্জয় কীর্তনিয়া ও বন্যাশ্রী।Image may contain: 1 person, standing

শুক্রবার উৎসবের দ্বিতীয় দিনের আয়োজন শুরু হবে বিকেল ৪টায়। এদিন ‘সাম্প্রদায়িকতা ও জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় বাউল দর্শনের প্রয়োজনীয়তা’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সেমিনারে প্রবন্ধ পাঠ করবেন বাউল গবেষক আবদেল মাননান। বিকেল ৫টা থেকে শিল্পীদের পরিবেশনায় থাকছে কালজয়ী বাউল গানের পরিবেশনা।

শনিবার উৎসবের শেষ দিন বিকেল ৫টায় উৎসবের সমাপনী দিনে ‘দুই বাংলার বাউল সম্মাননা’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সিমিন হোসেন রিমি। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শুরু হবে বাউল গানের পরিবেশনা।  পুরো আয়োজনের মিডিয়া পার্টনার সমকাল।Image may contain: 2 people, crowd and wedding

 

Check Also

folkfest

আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব ৯ নভেম্বরে

মিডিয়াখবর:- আগামী ৯ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে তিন দিনব্যাপী ‘ঢাকা আন্তর্জাতিক লোকসংগীত উৎসব ২০১৭’। বনানীর বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে …

বেঙ্গল শাস্ত্রীয় সংগীত উৎসব হবে না এ বছর

মিডিয়া খবর :- ২৩ থেকে ২৭ নভেম্বর ঢাকায় বেঙ্গল শাস্ত্রীয় সংগীত উৎসবের ষষ্ঠ আসর বসার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *