Home » নিবন্ধ » চি ত্র প ট ও চ ল চ্চি ত্র

চি ত্র প ট ও চ ল চ্চি ত্র

মিডিয়া খবর:-    -: অরিন্দম মুখার্জী :-

চলচ্চিত্রের আদি যুগে নাম ছিলো পেইন্টিং উইথ লাইট। বাগর্থের মধ্যদিয়েই চিত্রকলার সঙ্গে চলচ্চিত্রের আত্মীয়তা ঘটে। উপযুক্ত কম্পোজিশন যেইসব দেশীয় ও আন্তর্জাতিক সিনেমার ফ্রেমকে পেইন্টিং করে তুলেছে।

৯ ফ্রেবরুয়ারি মুক্তি পাচ্ছে  ‘ভালো থেকো’। অনেকদিন পর বড় পরিসরে সোশ্যাল ড্রামা হিসেবে  জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত দের কোটি টাকা ব্যায়ে ‘ভালো থেকো’ সিনেমাটি আইডিনটিটি ক্রাইসিস নিয়ে নির্মিত। ছবিতে ডায়নামিক চরিত্রে অভিনয় করেছেন শুভ। ভালো থেকো সিনেমার গান দুটি শ্রোতারা পছন্দ করলেও কি যেনো একটা ছিলো না । আর সেই শূন্যতা পুরন করেছে মন দিওয়ানা গানটি । তবে মটর সাইকেলে চড়ে ডেটিং যাবার গতি উপযুক্ত কমপোজিশন সিনেমার ফ্রেমকে পেইন্টিং তুল্য করেছে।

ভালো থেকো : ছবির দৃশ্য

 

ছবিতে অভিনয় করেছেন কাজী হায়াৎ, আমজাদ হোসেন, অরুণা বিশ্বাস সহ অনেকে। ছবিটি নিয়ে দর্শকমনে আগ্রহ তৈরী হয়েছে ইতিমধ্যেই, আশা করা যাচ্ছে এই ছবিটি দর্শকদের প্রত্যাশা পূরনে সমর্থ হবে। বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনায় সিনেমা স্বপ্নজাল। নদীতীরবর্তী অঞ্চলে গড়ে ওঠা ইলিশ ব্যবসাকে কেন্দ্র করে গিয়াসউদ্দিন সেলিম নির্মান করেছেন ‘স্বপ্নজাল’-এর গল্প। গুম,সংঘাত, আর ডাকাতির দৃশ্যে আলোর প্রক্ষেপণে মাস্টার শর্টটি পেইন্টিং সুলভ আলোছায়ার ব্যঞ্জনায় স্থান পেয়েছে সিনেমার ক্যানভাসে। কঠোর বাস্তবতায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া অপু আর শুভ্রার চিত্রটি আধুনিক পরিপ্রেক্ষিতে  আমাদেরকে পরিপাশ্বিকতার ভেতরে নিয়ে যায়। দেশান্তরি শুভ্রার শিকড়ে ফেরার স্বপ্ন তার চোখে। দৃশ্যটিতে পরিচালক এক বিস্ময়কর চিত্রপট নির্মাণ করেছেন রূপালি পর্দায়। দু’টি প্রাণের বাঁধনহারা এক প্রেমের গল্প স্বপ্নজাল।

ছবিতে আরও অভিনয় করেছেন ফজলুর রহমান বাবু, মিশা সওদাগর, ফরহানা মিঠু, ইরেশ জাকের সহ অনেকে। যৌথ প্রযোজনার সিনেমাটি কবে মুক্তি পাবে তা এখনও কিছু জানা যায়নি ।

কোলকাতায় বাংলাসিনেমায় গ্ল্যামার জগতের অবাঙালি যুবক। জানেন না বাংলা বলতে। কিন্তু, অফার পেলেন বাংলা সিনেমার নায়কের চরিত্রের। ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হলেন সিনেমার নায়িকা। তিনিই বাংলা শেখালেন নায়ককে।

একজন বক্সারের জীবন নিয়ে তৈরি হলেও বক্সার সিনেমাটি আসলে একটি লাভ স্টোরি। এই প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের ভালোবাসা ও জীবনে কিছু করে দেখানোর চেষ্টাই ছবিতে তুলে ধরা হয়েছে । দুই কলেজ পড়ুয়ার প্রেমের গল্প। আর এই প্রেমের সঙ্গে সঙ্গে চলতে থাকে বক্সিং। প্রেম, ব্যার্থতা বক্সিং সব মিলিয়ে এক জমজমাট ছবি। বক্সার রনির সংগ্রাম করার দৃশ্যগুলি কাট কাট শর্টে যে লাইটের ব্যবহারটা, চিত্রকলার ডায়ানামিক পেইন্টিং চলচ্চিত্রের গতিকে বাড়িয়েছের অনেক গুন, পরিচালক সঞ্জয় বর্ধন

বক্সার ছবির দৃশ্য:

একগুচ্ছ নতুন অভিনেতা-অভিনেত্রীর সঙ্গে এই ছবিতে দেখা যায় বেশ কয়েকজন চেনা মুখেরও । ৫ জানুয়ারি মুক্তি পাওয়ার পর থেকেই জীবনের নানা রঙে রঙিন সুতোয় বোনা কাহিনীর বিন‍্যাস দর্শকদের মন জুড়ে রয়েছে সিনেমসা হল থেকে বেরিয়ে আসার পরেও । আর সুরেছন্দে মন মাতানো গানগুলো তো গুঞ্জন তুলছে চারিদিকে।

আবারও কিরীটি এসেছে ২ ফ্রেবরুয়ারি । ছবির নাম নীলাচলে কিরীটি। কিরীটির ভূমিকায়, এবারও ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত। তবে কিরীটি এবার বিবাহিত স্ত্রীর ভূমিকায থাকছেন অরুনিমা ঘোষ। নীহাররঞ্জন গুপ্তর তৈরী গোয়েন্দা কিরীটি রায় একটু সাহেবি ধাঁচের বাঙালি গোয়েন্দা। কালো ভ্রমরে সিকয্যোল। কিরীটির বিয়ের পর গিয়েছে হনিমুনে। গল্পের শুরু এখান থেকেই। সেখানে গিয়ে এক পুরনো বন্ধুর সঙ্গে দেখা হয়। বন্ধু নিখোঁজ হয়ে যান। অনেকগুলো ঘটনা মিলে মিশে এমন এক ফিল্মি কম্পোজিশন তৈরী হয় যা চিত্রকলা থেকেই গৃহিত ও অর্জিত। পাশাপাশি ওই সময়েই পরের পর খুন হতে থাকে। একটা খুনের সঙ্গে আর একটার মিল নেই।অনুসন্ধানে নামে কিরীটী। রহস্যের পাশাপাশি কিরীটী আর কৃষ্ণার দাম্পত্যও গল্পের অনেকটা জুড়ে যায়।

নীলাচলে কিরীটি ছবির পোস্টার

দু’টি ভিন্ন চরিত্রে দেখা গেছে ঋতুপর্ণা ও অভিষেক চ্যাটার্জীকে। চিত্রকলায় যেখানে চতুস্কোন পটের ওপর চরিত্রের স্থির প্রকাশ, চলচ্চিত্র সেখানে চতুস্কোন পর্দার ওপর চরিত্রের গতিশীল উদ্ভাস।

মুম্বাই ফ্রেবরুয়ারী প্রথম সপ্তাহে মুক্তি পাচ্ছে ৫ টি সিনেমা। ২ ফ্রেবরুয়ারি পরমানু, কুত্তে কি ডাম, দি উইন্ডো ও মুগল। ৩ ফ্রেবরুয়ারি প্লাটন ও গতবছরের ছবি রিলঞ্চ কুলদিপ পাটোয়াল। ৭ ফ্রেবরুয়ারি ক্যরোলি লাভস সুমিত ছবিটিও রিলঞ্চ হচ্ছে। তবে প্লাটন ও পরমানু সিনেমা দুটিতেই চলচ্চিত্র ও চিত্র কলা দুইয়ের ইমেজের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে।

পরমানু : অভিষেক শর্মা পরিচালিত পরমানু সিনেমাটি ৩৫ কোটি রুপি ব্যায়ে নির্মিত । ১৯৯৮ সালে ভারতের পোখরানে পরমাণু বোমা পরীক্ষার বিস্ফোরণকে কেন্দ্র করে নির্মিত হচ্ছে ’পরমাণু-দ্যা স্টোরি অব পোখরান’। এ ছবিটি জন আব্রাহাম বিজ্ঞানী অশ্বত রাইনার চরিত্রে অভিনয় করেছেন। লম্বা রেসের ঘোড়া  পদ্মাবত। ২৬ জানুয়ারি মুক্তির পর মাত্র চার দিনেই ১১২ কোটি রুপি ব্যাবসা করে ফেলেছে। ভারতেই নয়, বিদেশে, বিশেষ করে আমেরিকায় নজরকাড়া ব্যবসা করছে এই সিনেমাটি। রণবীর  চোখে লালসা, ক্রড়তা, ঈর্ষা, ঘেন্না, সব বোঝাতে বহু নতুন আলোর প্রক্ষেপণদেখা যায় । আলাউদ্দিন খিলজির চরিত্রটার মধ্যেই নানা কনফ্লিক্ট। সেগুলোই ভিসু্য়ালি প্রকাশ পেয়েছে । লুক, কস্টিউম টেক্সচার, কালার প্যালেট — সব সত্যিই খুব রিসার্চ করে বানানো৷ এই টোন, রং, টেক্সচার ও শার্পনেস মাত্রা ও বিন্যাস আদতে চিত্রকলা থেকেই গৃহীত ও অর্জিত।  রণবীরের বৈপরীত্যে দাঁড়িয়ে শাহিদ কপূর। ছবিতে স্থির দৃঢ়তা, রাজপুতের জোশ অবাক করার মতো। ইতিহাসকে ছবির বিশালতার মধ্যে উপস্থাপনে নানা ধাঁচের আলোর ব্যাবহার হৃদয়গ্রাহী ও দৃষ্টিমুখর। ছবি জুড়ে যেমন গভীর আলোর হাতছানি, তেমনই নরম রঙের খেলা! সিনেমা হলের পর্দার মধ্যে যখন চলমান চিত্রগুলি পরপর চলতে থাকে, তখন আমরা্ও সেই জগতের অংশিদার হয়ে পড়ি। আধুনিক পরিপ্রেক্ষিতে আমরা আমাদের পরিপার্শিকতার ভেতরে ঢুকে যাই। এবং আমরা প্রভাবিত হই।

পদ্মাবত ছবিতে রণবীর

এই সপ্তাহে ইউ.এস এ‘তে মুক্তি পাচ্ছে ১৪টি সিনেমা। তারমধ্যে অন্যতম ২ ফ্রেবরুয়ারীতে  মুক্তি পাওয়া বিলাল : এ নিউ ব্রিড অফ হিরো। শুধুমাত্র পেইন্টিংয়ের ওপর বিশাল ক্যানভাস। ফ্রেমে ঘটনাকে দৃশ্যের সাথে অভিনয় শিল্পীদের কথোপকথন ও অভিনয় সঞ্চালিত যুক্ত করে নির্মান হলো এ্যনিমেশন বিলাল : এ নিউ ব্রিড অফ হিরো । ইতিহাস থেকে নেওয়া এক আফ্রেকিান নায়কের গল্প। প্রায় এক হাজার বছর আগে, এক বালকের স্বপ্ন যোদ্ধা হবার।কি কিন্তু বিলাল ও   বিতহতার বোনকে অপহরন করে বাড়ি থেকে বেশ কিছু দুরে এক স্থানে নিয়ে যায় দুস্কৃতিকারিরা। লোভ লালসা ও দুর্নিতিগ্রস্থ্য স্থানটি থেকে নানা সংগ্রামের মধ্যদিয়ে বিলাল মুক্ত হয়।

বিলাল : এ নিউ ব্রিড অফ হিরো

শিল্প শিল্পীর অনুভবকে, অনুভূতিকে প্রকাশ করে। শিল্পের গোড়ার কথাই হলো ‘রিয়েলিটি’।মহত্তম শিল্প থেকেই তার কাঙ্ক্ষিত সত্য ও সুন্দরকে খোঁজে পায় শিল্পরসিক। ২৪ জানুয়ারি মুক্তি পাওয়া ছবি টি রেটিং এ প্রথম স্থানে অবস্থান করছে।

আধুনিক চিত্রশিল্পে প্রধান্য পায় চাক্ষুস অভিজ্ঞতার দ্রুত পরিবর্তনশীলতা। এখন শিল্প সৃষ্টি হয় বিভিন্ন পরিপ্রেক্ষিতের যৌথ প্রয়োগের মধ্য দিয়ে। আধুনিক পরিপ্রেক্ষিতে আপেক্ষিকতার কিছু বৈশিষ্ট্যগুলো বিশেষ ভাবে প্রভাবিত করেছে চলচ্চিত্রকে।চিত্র কলার কম্পোজিশন থেকে ফটোগ্রাফিক কম্পোজিশন হয়ে ফিল্মি কম্পোজিশনে বিবর্তণ পেয়েছে।

Image may contain: 1 person, closeup

অরিন্দম মুখার্জী মিডিয়া কর্মী ও লেখক

Check Also

যশোর মুক্ত দিবস

মিডিয়া খবরঃ-         সাজেদুর রহমানঃ- ৬ ডিসেম্বর ১৯৭১ সালের এই দিনেই যশোর …

৫ই ডিসেম্বর ১৯৭১

 মিডিয়া খবরঃ-        সাজেদুর রহমানঃ- ৫ই ডিসেম্বর ১৯৭১।   সকাল ৯ টায় মিত্রবাহিনীর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *