Home » মঞ্চ » কথা ৭১ নাটকের ৫০তম প্রদর্শনী ২৩ জানুয়ারী বুধবার
katha 71

কথা ৭১ নাটকের ৫০তম প্রদর্শনী ২৩ জানুয়ারী বুধবার

মিডিয়া খবর :- বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মুল হলে বুধবার ২৩ জানুয়ারী সন্ধ্যা সাতটায় মঞ্চায়িত হবে ঢাকা পদাতিকের নিয়মিত প্রযোজনা কথা ৭১ এর ৫০তম প্রদর্শনী। গোলাম মোস্তফার ভাবনা অবলম্বনে কুমার প্রীতীশ বল রচিত এই নাটকটির নির্দেশক দেবাশীষ ঘোষ। নাটকের বক্তব্য উঠে এসেছে দেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন এবং তাদের মর্মান্তিক ধর্মান্তরের কথা। স্বাধীনতাবিরোধীদের শান্তি কমিটি, রাজাকার-আলবদর বাহিনী গঠন, তাদের এবং পাকিস্তানি হানাদারদের পৈশাচিক নির্যাতন, ধর্ষণ, গণহত্যার কথা।

মঞ্চে কুশীলবের ভূমিকায় আছেন কাজী চপল, ফিরোজ হোসাইন, সিফাত বিন আজিজ, শেখ শান-এ-মাওলা, এইচ এম মোতালেব, যাকারিয়া কিরণ, জোসেফ পরিমল রোজারিও, আবুল হাসনাত, শ্যামল হাসান, তারেক আলী মিলন, শরিফুল ইসলাম মামুন, সালাউদ্দিন রাহাত, সম্রাট,  আখতার হোসেন, ইকরা, বর্ণালী আক্তার সেতু, মারজিয়া জাবীন তম্বী প্রমুখ।

একটি সফল সমাবেশ সম্পন্ন করে ওই মুক্তিযোদ্ধা বাসায় ফিরে দেখেন তাঁর সন্তান ঘরে উচ্চ শব্দে ইংরেজি গান শুনছে। মুক্তিযোদ্ধা পিতা এ জন্য বিরক্ত বোধ করেন, তিনি গান বন্ধ করে দেন। এতে ছেলে ক্ষুব্ধ হয়ে পিতার সঙ্গে তর্কে লিপ্ত হয়। পিতা-পুত্রের এই বিতর্কের ভেতর দিয়ে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বেরিয়ে এ আসে নাটকে ।

মুক্তিযুদ্ধের শুরুতেই অপারেশন সার্চলাইট নিয়ে পাকিস্তানি আর্মিরা পর্যালোচনার মাধ্যমে গণহত্যার রূপরেখা চূড়ান্ত করে। এসময় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী  বর্বর হামলা পরিচালনার দায়িত্ব নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নেয়। শুরু হয় গণহত্যা।  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের সেই গণহত্যা প্রকৌশল  বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েটের) অধ্যাপক নূরুউল্লা নিজের ভিডিও ক্যামেরায় ধারণ করার মধ্যমে ৭১ এ গণহত্যার প্রামাণ্য দলিল তৈরি করেন। জগন্নাথ হলের নিহতের লাশ সরায় ডোমরা। এরই মধ্যে চুন্নু ডোম এবং পরদেশী ডোম কথা বলে ঢাকা শহরের নির্মম গণহত্যা নিয়ে। নাটকের ভিতরেই জানা যায়, সংখ্যালঘু নির্যাতন এবং মর্মান্তিক ধর্মান্তরের কথা।

স্বাধীনতা বিরোধীদের শান্তি কমিটি রাজাকার-আলবদর বাহিনী গঠন, তাদের এবং পাকিস্তানি আর্মিদের অমানবিক নির্যাতন, ধর্ষণ, গণহত্যায় দিশেহারা বাঙালি রুখে দাঁড়ায়। গঠিত হয়, মুক্তি বাহিনী, মুজিবনগর সরকার, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র। স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে পরিবেশিত অনুষ্ঠান সেদিনের বিধ্বস্ত বাঙালি জাতির মনে বিরাট আশার সঞ্চার করে।

‘কথা ৭১’ নাটকের মাধ্যমেই মুক্তিযোদ্ধারা বার বার ইতিহাসের সত্যের মুখোমুখি হন। মুক্তিযোদ্ধাদের  এই সত্য  ইতিহাস যথার্থভাবে উপস্থাপন হয়নি বলেই তরুনদের  একটি অংশ আজও বিভ্রান্ত, ‘কথা ৭১’ ইতিহাসের সত্যকে প্রতিষ্ঠিত করারই একটি উদ্যোগ মাত্র।

 

 

Check Also

শিল্পকলায় পাইচো চোরের কিচ্ছা আজ

মিডিয়া খবর :- আজ বৃহস্পতিবার ১৫ মার্চ সন্ধ্যা ৭•০০ টায় ‌শিল্পকলা একা‌ডে‌মির জাতীয় নাট্যশালায় ঢাকা পদাতিক …

বছরের শেষদিনে স্বপ্নদলের ত্রিংশ শতাব্দী

মিয়িা খবর :- ‘শিল্প শুদ্ধতায় শুচি হোক ধরা’- স্লোগানে নাট্যাধার, সিরাজগঞ্জ আয়োজিত চলমান সপ্তাহব্যাপী নাট্যোৎসবে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *